Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : বুধবার, ১৬ মে, ২০১৮ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ১৫ মে, ২০১৮ ২১:২৮
স্বাস্থ্যসচেতনদের জন্য রোজায় ব্যায়াম
স্বাস্থ্যসচেতনদের জন্য রোজায় ব্যায়াম

শুরু হয়েছে রমজান মাস। ইতিমধ্যে পরিবর্তন আসতে শুরু করেছে দৈনন্দিন লাইফস্টাইলে। রোজার মাসে বেশির ভাগ মানুষই এই সময়টায় ঘরে একটু বিশ্রামে থাকতে পছন্দ করেন। তবে সেই অলসতা ঝেড়ে ফেলে স্বাভাবিক জীবনযাপন করতে হবে, যা আমাদের স্বাস্থ্যকর জীবনযাপন করতে সাহায্য করতে পারে।

এ সময় অনেকেই মনে করেন, রোজা রেখে শরীরচর্চা করা যাবে না। বিশেষজ্ঞদের মতে, রোজা রেখে শরীরচর্চা করা যেতে পারে। তবে শরীরচর্চা কোন সময়ে করা হচ্ছে এবং কতটা সময় ধরে করা হচ্ছে, তা খেয়াল রাখতে হবে।

শারীরিক কোনো প্রতিবন্ধকতা না থাকলে সবারই রমজান মাসে কিছু হালকা-পাতলা ব্যায়াম করা উচিত। বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, রোজায় সকালেই শরীরচর্চা করা উচিত। তবে খুব বেশি ভারী ব্যায়াম না করাই ভালো। সাঁতার, হাঁটা, সাইকেল চালানো ইত্যাদি।

 

হাঁটার অভ্যাস যাদের

সকালের দিকে ব্যায়ামের কাজটি করে ফেলতে পারলে ভালো। প্রথমে ২০ মিনিট ধরে হাঁটা শুরু করতে পারেন। খুব জোরে না হেঁটে স্বাভাবিকের চেয়ে একটু দ্রুত হাঁটতে পারেন। রোজা রেখে বিকালের দিকে না হাঁটাই ভালো, বিশেষ করে ডায়াবেটিসের রোগীরা বিকালে হাঁটবেন না। কারণ, এ সময় রক্তে শর্করার পরিমাণ কমে যায়। তবে খেয়াল রাখবেন শরীর যেন খুব বেশি ঘেমে না যায়।

 

কঠোর ব্যায়ামের ক্ষেত্রে

রোজার মাসে যে ব্যায়ামগুলো করলে খুব বেশি ঘাম ঝরায়, সেগুলো না করাই ভালো। তবে খুব বেশি সময় ধরে ব্যায়াম করবেন না এবং ব্যায়াম শেষে শরীরের ঘাম মুছে নিন। তাছাড়া ব্যায়ামাগারে গিয়ে ব্যায়াম করার অভ্যাস থাকলে সকালের দিকেই যান। কিছু ফ্রি-হ্যান্ড এক্সারসাইজ করতে পারেন। খুব বেশি ভারী ওজন তুলে ব্যায়াম করা উচিত হবে না। নিয়ম-কানুন মেনে ঠিকভাবে ব্যায়াম করলে রমজান মাসেও ফিট থাকা সম্ভব।

 

খাওয়া হোক ঠিকঠাক

রোজার সময় যারা ব্যায়াম করতে চান, তাদের খাদ্যতালিকা থেকে শর্করাজাতীয় খাবার বাদ দিলে চলবে না। ইফতার, রাতের খাবার এবং শেষ রাতের খাবারে শর্করাজাতীয় খাবার অবশ্যই রাখবেন। এমন খাবার খাবেন, যা থেকে দ্রুত ক্যালরি পাওয়া যায়। বয়স, উচ্চতা ও ব্যায়ামের মাত্রা অনুসারে ক্যালরির পরিমাণ নির্ধারণ করা উচিত। রাতে পর্যাপ্ত পানি পান করুন। চাইলে ইফতারের পানীয়তে একটু লবণ মিশিয়ে নিতে পারেন।

 

ব্যায়ামের জন্য উপযুক্ত কাপড় নির্বাচন করবেন। খুব বেশি ভারী কাপড় পরে ব্যায়াম করবেন না। ব্যায়াম করার সময় শ্বাস-প্রশ্বাস স্বাভাবিক রাখাটা জরুরি। এ মাসে ব্যায়াম করার ক্ষেত্রে ভালো হয় যদি বাইরে যাওয়ার পরিবর্তে ইনডোর লোকেশন বেছে নিতে পারেন।

এই পাতার আরো খবর
সর্বাধিক পঠিত
up-arrow