Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : ২ জুন, ২০১৬ ০৯:২৭
চলতি মাসেই মোদির মন্ত্রিসভায় বদল
অনলাইন ডেস্ক
চলতি মাসেই মোদির মন্ত্রিসভায় বদল

চলতি মাসেই ভারতের কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার রদবদল করতে চলেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷ তবে তার দিনক্ষণ নিয়ে এখনই কেউ মুখ খুলতে চাইছেন না৷ বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ দিনকয়েক আগেই মন্ত্রিসভার রদবদল প্রসঙ্গে বলেছেন, “রদবদল অবশ্যই হবে, তবে তার দিনক্ষণ এখনও চূড়ান্ত করা হয়নি৷” খবর ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম 'সংবাদ প্রতিদিন'-এর।

২০১৪-র নভেম্বরে শেষবার মন্ত্রিসভায় বড় ধরনের রদবদল হয়েছিল৷ তখনই রেলমন্ত্রী হিসেবে সুরেশ প্রভু ও প্রতিরক্ষামন্ত্রী হিসেবে মনোহর পারিক্কর মন্ত্রিসভায় এসেছিলেন৷ তবে এবার বড় পরিবর্তনের সম্ভাবনা কম৷ বরং মন্ত্রিসভার আয়তন বাড়ানোই লক্ষ্য৷ মন্ত্রিসভায় নতুন মুখের সম্ভাবনাও প্রবল৷ বিশেষ করে আগামী বছরের নির্বাচনমুখী উত্তরপ্রদেশ, পাঞ্জাব, গুজরাত, গোয়া এবং পূর্বাঞ্চলের রাজ্য থেকে মন্ত্রিসভায় বেশ কিছু নতুন মুখ আসতে পারে বলেই শোনা যাচ্ছে৷ কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় ৮১ জন মন্ত্রীর সংস্থান থাকলেও বর্তমানে ৬৫ জন মন্ত্রী রয়েছেন৷ সরকারের দু’বছর পার করে এবার রদবদলে মোদি সব শূন্য আসনই পূর্ণ করতে পারেন বলে বিজেপির অন্দরে খবর৷

অর্থ, স্বরাষ্ট্র, প্রতিরক্ষা, পররাষ্ট্র, সড়ক পরিবহন, রেলের মতো প্রধান মন্ত্রণালয়গুলোতে রদবদলের সম্ভাবনা প্রায় নেই বললেই চলে৷ তবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের স্বাস্থ্যের কথা বিবেচনা করে তার জায়গায় রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী বসুন্ধরা রাজেকে নিয়ে আসা হতে পারে বলে জল্পনা চলছে৷ একইসঙ্গে বিদেশমন্ত্রকের রাষ্ট্রমন্ত্রী জেনারেল ভি কে সিংকেও সরানো হতে পারে৷ প্রতিরক্ষামন্ত্রী মনোহর পারিক্করকে গোয়া বিধানসভা নির্বাচনের কথা মাথায় রেখে প্রথমে সংগঠনের কাজে পাঠানোর কথা হলেও পরে তাকে মন্ত্রিসভায় রাখারই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলেই শোনা যাচ্ছে৷ বিহার থেকে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় মোট ৭ জন রয়েছেন৷ তাদের কয়েকজনকে সংগঠনের কাজে ফেরানো হতে পারে৷ সেখানে উত্তরপ্রদেশ থেকে গোরখপুরের সাংসদ যোগী আদিত্যনাথ ও সাহারানপুরের সাংসদ রাঘব লখনপালকে মন্ত্রিসভায় আনা হতে পারে৷ অাসামের মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার পরে সর্বানন্দ সোনওয়াল ক্রীড়ামন্ত্রীর পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছেন৷ সেখানে পাঞ্জাবের বিজেপি নেতা ও রাজ্যসভার সাংসদ নভজ্যোত্‍ সিং সিধুকে আনা হতে পারে৷ বাণিজ্যমন্ত্রী নির্মলা সীতারামণ ও বিদ্যুৎমন্ত্রী পীযূষ গোয়েলের পদোন্নতি করে পূর্ণমন্ত্রী হিসেবে মন্ত্রিসভায় জায়গা দেওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে৷

মন্ত্রিসভার রদবদলের সঙ্গেই মোদি সরকার বেশ কয়েকটি রাজ্যের রাজ্যপাল বদল করতে চলেছে বলেও শোনা যাচ্ছে৷ মন্ত্রিসভা থেকে সরিয়ে কয়েকজনকে রাজ্যপাল করা যেতে পারে৷ প্রধানমন্ত্রী মোদি ৭৫ বছর বয়সের বেশি কাউকে মন্ত্রিসভায় রাখতে চান না৷ সেই হিসেবে নাজমা হেপতুল্লা ও কলরাজ মিশ্রকে সরানোর কথা৷ নাজমাকে সরালেও অবশ্য মিশ্রকে এখনই মন্ত্রিসভা থেকে সরানোর ঝুঁকি বিজেপি নেবে না বলেই মনে করা হচ্ছে৷ কারণ উত্তরপ্রদেশের এই ব্রাহ্মণ নেতাকে মন্ত্রিত্ব থেকে সরানো হলে রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনে ব্রাহ্মণদের মধ্যে বিরূপ প্রভাব পড়তে পারে৷ আবার অন্যদিকে গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী আনন্দীবেন প্যাটেলের কাজে মোদি বা শাহ কেউই সন্তুষ্ট নন৷ তাকেও রাজ্যপাল করে অন্য কোন রাজ্যে পাঠানো হতে পারে৷

এদিকে, উত্তরাখণ্ডের রাজ্যপাল কৃষ্ণকান্ত পলকে নিয়েও সরকারের মনে ক্ষোভ রয়েছে৷ তাকেও অন্য রাজ্যে সরানো হতে পারে৷ উত্তরপ্রদেশের রাজ্যপাল কল্যাণ সিংকে রাজ্যপালের পদ থেকে সরিয়ে এনে সংগঠনের কাজে লাগানো হতে পারে৷ সে রাজ্যের নির্বাচনে কল্যাণের মতো দলিত মুখকে বিজেপি প্রচারের জন্য ব্যবহার করতে চাইছে বলেও শোনা যাচ্ছে৷

সূত্র: সংবাদ প্রতিদিন

বিডি-প্রতিদিন/০২ জুন, ২০১৬/মাহবুব

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow