Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : ১০ অক্টোবর, ২০১৬ ১৩:৫১
যৌন হয়রানির শিকার ১০০ ব্রিটিশ নারীর গল্প
অনলাইন ডেস্ক
যৌন হয়রানির শিকার ১০০ ব্রিটিশ নারীর গল্প

ব্রিটেনের বিশ্ববিদ্যালয়ে নানাভাবে যৌন হয়রানির শিকার হতে হয় নারীদের। তেমনই ১০০ নারী নিজেদের নির্মম অভিজ্ঞতা গল্পগুলো ভাগাভাগি করেছেন যা সম্প্রতি প্রকাশিত হয় দেশটির বিখ্যাত গণমাধ্যম গার্ডিয়ানে।

এতে ওই নারীদের পরিচয় গোপন রাখা হয়েছে।  

নারীরা তাদের সেই গল্পগুলো তুলে ধরেন যা তারা কখনই কাউকে বলতে পারেননি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক নারী প্রফেসর বলেন, একজন লেকচারারকে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে তার অফিসের বাইরে দেখা করা নিষেধ ছিল। প্রায় এক দশক আগে তিনি আমাকে হেনস্থা করছিলেন। আর এ ক্ষেত্রে আমাকে বেছে নিতে হয়েছিল যে, আমি নিজের অভিযোগ করব নাকি আমার শিক্ষার্থীদের অভিযোগ করব। আমি নিজে তা করিনি, কারণ আমি অতটা সাহসী নই। আপনি অভিযোগ করার জন্য মিথ্যাবাদী প্রমাণিত হতে পারেন।  

আরেক প্রাক্তণ ছাত্রী বলেন, আমি কয়েক বছর আগে মাস্টার্সের ছাত্রী ছিলাম। দুজন লেকচারার সিঁড়িসহ বিভিন্ন স্থানে পেছন থেকে আমাকে পর্যবেক্ষণ করতেন। আর তাদের মধ্যে একজন আমাকে স্পর্শও করেন। একদিন পেছন থেকে আমাকে এত জোরে ধাক্কা মারেন যে আমি প্রায় পড়েই যাচ্ছিলাম।  

তিনি আরো বলেন, বিষয়টি আমাকে খুবই যন্ত্রণা দেয়। আমার ব্যক্তিগত জীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে। আমি বিষণ্ণতায় আক্রান্ত হই। ঘুমেরও ব্যাঘাত ঘটে। এ বিষয়ে আমার স্বাভাবিক হতে প্রায় তিন বছর লেগে যায়।

পোস্টডক্টরাল রিসার্চার বলেনম, আমি যখন পোস্ট-গ্র্যাজুয়েট রিসার্চ ছাত্রী ছিলাম সে সময়ই ঘটনার সূত্রপাত। আমার সুপারভাইজারের সঙ্গে সমস্যা চলছিল। আমি বিশ্ববিদ্যালয়ে অভিযোগ করি। আর এতে বিষয়টি বহুদূর গড়ায়। পরবর্তীতে এ বিষয়টি নিষ্পত্তি করতে তিন বছর পার হয়ে যায়। কর্তৃপক্ষ আমাকে বলে বিষয়টি তার সঙ্গে মিটিয়ে ফেলতে না হয় আইনি ব্যবস্থা নিতে। কিন্তু এটি আমার জীবনের মূল্যবান সময় নষ্ট করেছে বিধায় আমি পিছিয়ে আসিনি।  

আরেক ছাত্রী বলেন, এক তরুণ লেকচারার ক্লাসে প্রায়ই যৌন রোগ, যৌনতা ইত্যাদি নিয়ে আলোচনা করতেন। একদিন তিনি এক শিক্ষার্থীকে চুমু খান। এ বিষয়টি সে সময় বেশিদূর গড়ায়নি, যদিও সবাই বিষয়টি জানতেন। এরপর তিনি আরেকটি শীর্ষস্থানীয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে চলে যান। আমার কলিগরা বলেন যে, তার স্বভাব-চরিত্রে কোনো পরিবর্তন হয়নি।  


বিডি প্রতিদিন/১০ অক্টোবর, ২০১৬/ফারজানা

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত
up-arrow