Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : ১৬ অক্টোবর, ২০১৬ ০৩:১৪
মহাকাশে নতুন দেশ, বাসিন্দা হতে পারেন আপনিও
অনলাইন ডেস্ক
মহাকাশে নতুন দেশ, বাসিন্দা হতে পারেন আপনিও

মহাকাশে সাধারণ মানুষের স্থায়ীভাবে বসবাস করাটা এত দিন শুধুমাত্র কল্পবিজ্ঞানের বইতেই আটকে ছিল। এবার সম্ভবত খুলতে চলেছে কল্পবিজ্ঞানের সেই ‘দরজা’। গত ১২ অক্টোবর ভিয়েনার অ্যারোস্পেস ইন্টারন্যাশনাল রিসার্চ সেন্টার (এআইআরসি)-র প্রতিষ্ঠাতা রাশিয়ান বিজ্ঞানী ইগর আশুরবেলি সাংবাদিকদের সঙ্গে বৈঠকে এই অদ্ভুত স্বপ্ন দেখিয়েছেন। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।

ইগরের দাবি, “এবার পৃথিবীর বাইরে নতুন দেশ গড়ে তুলব আমরা। সেটা খুব শিগগিরই। ২০১৭ সালেই আমরা পাড়ি দেব মহাকাশে। স্থায়ীভাবে বসবাস করব সেখানে। ” ভাবছেন প্রলাপ বকছেন বিজ্ঞানী! একদমই না। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে থাকা বিজ্ঞানীরাও তার এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন। কিন্তু মহাকাশে আন্তর্জাতিক দেশ গড়ার ভাবনা কীভাবে এল? সফল হবে এই প্রোজেক্ট? কীভাবে আবেদন করবেন মহাকাশের নাগরিক হতে গেলে? আপনার মনে ভিতর উঁকি দেওয়ার এসব প্রশ্নগুলোর উত্তর এক নজরে জেনে নেওয়া যাক।

অ্যারোস্পেস ইন্টারন্যাশনাল রিসার্চ সেন্টারের প্রতিষ্ঠাতা ইগর আশুরবেলি জানিয়েছেন, যে কোন মুহূর্তে মহাকাশে থেকে আসা গ্রহাণুর সঙ্গে বড়সড় ধাক্কা লাগতে পারে পৃথিবীর। মানবজাতিকে সুরক্ষিত রাখতেই মহাকাশে আলাদা করে স্পেস নেশন তৈরি করার পরিকল্পনা করা হয়েছে। তাদের এই প্রোজেক্টের পরিকল্পনা নিয়ে কথা বলতে গিয়ে ২০১৩ সালে রাশিয়াতে পড়া চেলিয়াবিনস্ক উল্কা পিণ্ডের আঘাতে প্রায় এক হাজার লোক আহত হয়েছিল। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল হাজার চারেক বাড়ি। এই রকম মহাকাশ থেকে আসা নানা ধরনের বিপদের আশঙ্কা থেকে বাঁচতে বিকল্প বাসস্থান তৈরি করতে চলেছেন এআইআরসি-র বিজ্ঞানীরা।

তিনি আরও জানান, গ্রহাণুর সঙ্গে ধাক্কা, সূর্যের প্রখর উত্তাপ কিংবা স্পেস স্টেশনের ধ্বংসাবশেষ পৃথিবীকে বিপদে ফেলতে পারে। প্রায় ২০ হাজার মহাজাগতিক বর্জ্য পৃথিবীর কক্ষপথে ঘুরে বেড়াচ্ছে। যে কোন মুহূর্তে এগুলো আঘাত করতে পারে পৃথিবীকে।

তাঁরা যে নতুন স্পেস নেশন তৈরি করতে চলেছেন তার নাম আসগার্ডিয়া। আসগার্ডিয়া মানে আকাশের শহর। নর্স পৌরাণিকে বর্ণিত গড অডিন শাসন করত এই আকাশের শহরকে। আজ আমরা সেই শহরেই হয়ত বাস করতে চলেছি।

নতুন আন্তর্জাতিক এই দেশের নাগরিকরা ধর্ম, বর্ণ কিংবা ভাষা দিয়ে পরিচিতি পাবে না। পৃথিবীর যাবতীয় সামাজিক নিয়মকে উপেক্ষা করে প্রতিভা ও মানবতাকে গুরুত্ব দেওয়া হবে বলে দাবি করেছে এআইআরসি। তাদের এই দেশে প্রাথমিক ভাবে এক লক্ষ মানুষকে নাগরিকত্ব দেওয়া হবে।

বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের বিশেষজ্ঞদের একত্র করে তৈরি করা হচ্ছে প্রোটোটাইপ স্যাটেলাইট। এই স্যাটেলাইট ২০১৭ সালের মাঝামাঝি সময়ে পাঠানো হবে। বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, স্যাটেলাইটটি অবস্থান করবে পৃথিবীর খুব কাছের কক্ষপথে, (লো আর্থ অরবিট) যাকে বলা হয় ডেমোক্র্যাটিসেশন অব স্পেস।

স্পেস নেশন আসগার্ডিয়ার নাগরিক হতে পারেন আপনিও। এর জন্য আপনাকে আসগার্ডিয়ার নিজস্ব ওয়েবসাইটে ফর্ম পূরণ করতে হবে। নতুন দেশের জন্য পতাকা, জাতীয় সঙ্গীত এবং দেশের লোগো তৈরির ভাবনা আপনি দিতে পারেন। এ সবের জন্য রীতিমতো প্রতিযোগিতাও শুরু করেছে এআইআরসি।

তবে এখনও পর্যন্ত আসগার্ডিয়ার পক্ষ থেকে পরিষ্কার করে জানানো হয়নি মহাকাশে কীভাবে লক্ষাধিক মানুষের আশ্রয় দেবে তারা। বিশ্ববাসী কিন্তু এখনই দিন গুণছে সেই রূপকথার দেশের নাগরিক হওয়ার।

বিডি-প্রতিদিন/১৬ অক্টোবর, ২০১৬/মাহবুব

 

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow