Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১০:৫০
আপডেট : ১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৬:০০
খবর আজকালের
সরস্বতী পুজায় খিচুড়িকে টপকে গেল ফ্রাইড রাইস
অনলাইন ডেস্ক
সরস্বতী পুজায় খিচুড়িকে টপকে গেল ফ্রাইড রাইস

সরস্বতী পুজায় এখন খিচুড়িকে সরিয়ে নিজের জায়গা করে নিচ্ছে নিরামিষ ফ্রায়াড রাইস। একটা সময় ছিল যখন সরস্বতী পুজায় খাওয়াদাওয়া মানেই  ফুলকপি আর মটরশুঁটি দিয়ে মুগ ডালের খিচুড়ি। বাড়ি হোক বা স্কুলের পুজা, এই দিনটায় রান্নার মেনু সীমাবদ্ধ ছিল সাবেকিয়ানার মধ্যে।  

কিন্তু এখন সময় পাল্টেছে। খিচুড়িতে অনীহা ছোটদের। তাদের বায়না সামলাতে বড়রাও নিরামিষ রান্নায় চান বৈচিত্র। আর বাগদেবীর আরাধনায় আমিষে নিষেধ থাকলেও, বিদেশি খাবারে মানা নিয়ে কোন কথা বলা নেই কোথাও। তাই বাঙালির কাছে নিরামিষ চাইনিজ এই পদটি আপন হয়ে উঠেছে।  

শুধু স্বাদ বদল নয়, বর্তমানে বাজারে সবজি, চাল, ডালের দাম বাড়ার কারণেও কদর বাড়ছে ফ্রাইড রাইসের। খিচুড়ি করতে গেলে তার সঙ্গে আলাদা করে একটি সবজির পদ তৈরি করতেই হয়। সেই জায়গায় শুধু ফ্রাইড রাইস অনেক রকম সবজি দিয়ে রান্না করা যায়। নিরামিষ এই একটি পদেই খাওয়া যায় হরেকরকমের সবজি।  

রান্নায় ঝামেলা অনেকটাই কমে যায়। আবার মুগের ডালের দাম এখন বেশ চড়া। ১ কেজি মুগ ডাল ১৬০ টাকা। অনেকটা খিচুড়ি একসঙ্গে করতে গেলে খরচও পড়ে যায় বেশি। এই কারণেও অনেকেই বেছে নিচ্ছেন ফ্রাইড রাইসের মতো উপাদেয় পদ। সময়ের আগে শীত কমে যাওয়ায় ফ্রাইড রাইসের রমরমা। ঠান্ডা তেমন না থাকলে খিচুড়িতে রুচি আসে না অনেকেরই। তাঁদের দাবি, খিচুড়িতে বদহজমের সমস্যা থেকেই যায়। সেই জায়গায় সবজি মেশানো হালকা তেলে রান্না করা ফ্রাইড রাইস পছন্দ করছেন অনেকেই।  

এদিকে ভারতে পুজার সামগ্রীর দাম বেড়েছে অনেকটা। বাগদেবীর আরাধনার প্রধান উপকরণ গাঁদা ফুলের মালা। কমলা গাঁদার একফুট লম্বা মালা বিক্রি হচ্ছে ১০ থেকে ১২ টাকায়। বাসন্তী রঙের গাঁদার একটি মালার দাম ১৫ টাকা থেকে শুরু। চন্দ্রমল্লিকা একটি ৫ টাকা, ছোট গোলাপ ১০ টাকা। আরও একটি প্রধান উপকরণ, আমের বোল, ধানের শিষ ও পলাশ ফুলের প্যাকেট ১০ টাকা। ফলের মধ্যে শাঁকালু প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ৪০ থেকে ৫০ টাকা দরে। শসার দাম শুরু হয়েছে ৩০ টাকা থেকে। কুল ২৫০ গ্রাম ১০ টাকা থেকে ১৫ টাকা। সজনে ফুলের দাম কিছুটা বেশি, ১০০ গ্রাম ২৫ টাকা। আপেলের দাম তুলনামূলকভাবে অনেকটাই বেশি, কেজি প্রতি ১৫০ টাকা। গোটা সিদ্ধর উপকরণের মধ্যে শিষ পালং, রাঙালু, বেগুন, কড়াইশুঁটি প্রধান। রাঙালু, বেগুন ও কড়াইশুঁটি দাম কেজি প্রতি ৪০ টাকা। শিষ পালং ২০ টাকা। নতুন ছোট আলু ১০ টাকা কেজি। বড় চাঁদমালার দাম শুরু হচ্ছে প্রায় ৫০ টাকা থেকে। তবে বাজার অনুযায়ী দামের হেরফের কিছুটা থাকছে। ‌‌‌‌‌

 

বিডি প্রতিদিন/০১ ফেব্রুয়ারি ২০১৭/হিমেল

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow