ঢাকা, সোমবার, ১৯ নভেম্বর, ২০১৮

আজকের পত্রিকা

নেত্রকোনায় কবর থেকে ৩ শ্রমিকের লাশ তুলে ময়নাতদন্ত
নেত্রকোনা প্রতিনিধি:

সিলেটের কোম্পানিগঞ্জে শাহ আরেফিন টিলার পাথর কোয়ারীতে চাপা পড়ে নিহত ৩ শ্রমিকদের লাশ দাফনের ৬ দিন পর ময়নাতদন্তের জন্য কবর থেকে তোলা হয়। মঙ্গলবার বিকাল ৫ টায় নেত্রকোনা সদর উপজেলার কে-গাতী ইউনিয়নের মসুয়া ও স্বর্নখলা গ্রাম থেকে লাশ ৩টি উত্তোলন করা হয়। বুধবার ময়নাতদন্তের পর লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়। 

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পূর্ণেন্দু দেবের উপস্তিতিতে কোম্পানীগঞ্জ থানার ইন্সপেক্টর মামলার আয়ু মুহম্মদ রুহূল আমীন নেত্রকোনা মডেল থানার পুলিশের সহায়তায় লাশ উত্তোলন করেন। 

পুলিশ জানায়, পাথর কোয়ারীতে অবৈধভাবে পাথর উত্তোলনকারীদের বিরুদ্ধে পুলিশ বাদী হয়ে কোম্পানীগঞ্জ থানায় ৫ জনের নাম উল্লেখসহ আরো ৬ থেকে ৭ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করে। মালিকের মদদে পুলিশকে না জানিয়ে গোপনে ৩ জনের লাশই দাফন করা হয়। পরে খবর পেয়ে লাশের ঠিকানা সনাক্ত করে ময়নাতদন্তের জন্য আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী লাশ উত্তোলন করে ময়নাতদন্ত করা হয়েছে। 

নিহতরা হচ্ছেন, নেত্রকোনার সদর উপজেলার কে’গাতি ইউনিয়নে কর্ণখলা গ্রামের মৃত মফিজ উদ্দিনের ছেলে কাদির মিয়া (২০) একই গ্রামের আব্দুর রশিদের ছেলে আব্দুল হাদি (২০) ও জঈন উদ্দিনের ছেলে জাহের উদ্দিন (৪০)। 

উল্লেখ্য গত ২৩ জানুয়ারী পাথর কোয়ারীতে গিয়ে অন্যান্য শ্রমিকের সাথে তারা নিহত হন। এদিকে নিহত শ্রমিকদের স্বজনরা ক্ষতিপূরণ দাবি না করলেও এলাকাবাসী দায়ীদের বিচার দাবি করে ক্ষতিপূরণ চান। 

 

বিডি প্রতিদিন/০১ ফেব্রুয়ারি ২০১৭/হিমেল



এই পাতার আরো খবর