ঢাকা, শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর, ২০১৮

আজকের পত্রিকা

পিরোজপুরে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া
পিরোজপুর প্রতিনিধি:

পিরোজপুরে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের দুই মনোনয়ন প্রত্যাশীর কর্মী সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া, ইটপাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটেছে। দুই পক্ষই শহরে পাল্টাপাল্টি মিছিল করেছে। দীর্ঘ দিন পরে শহরে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের মারমুখি অবস্থানের কারনে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে পরিবেশ। বুধবার রাতে শহরের কাব রোড ও সদর রোডে দু'পক্ষের মধ্যে এ ঘটনা ঘটে।

দলীয় সূত্রে জানা যায়, পিরোজপুর-১ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী পিরোজপুর পৌরসভার মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি হাবিবুর রহমান মালেকের সমর্থকবৃন্দ এবং পিরোজপুরের সাবেক সংসদ সদস্য প্রায়ত আওয়ামী লীগ নেতা এডভোকেট এনায়েত হোসেনের কন্যা শেখ এ্যানী রহমানের সমর্থকদের মধ্যে এ অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে। ঘটনার সূত্রপাত হয় মঙ্গলবার রাতের একটি ঘটনায়। এ্যানী রহমান বঙ্গবন্ধু মোমোরিয়াল  ট্রাষ্টের সদস্য সচিব শেখ হাফিজুর রহমান টোকোনের স্ত্রী।

মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে শেখ এ্যানী রহমান টুঙ্গীপাড়া থেকে পিরোজপুরে আসেন গাড়ির বহর নিয়ে। এ সময় শহরের দামোদার ব্রিজের কাছে তাদের গাড়ি বহরে হামলার অভিযোগ ওঠে। হামলা প্রতিহত করতে ব্যক্তিগত নিরাপত্তা কর্মীরা ফাকা গুলি চালায়। এ ঘটনা নিয়ে কাল রাত থেকে শহর উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। এ ঘটনার প্রতিবাদে শেখ এ্যানী রহমানের কর্মী-সমর্থকরা শহরে মঙ্গলবার রাতে তাৎণিক মিছিল সমাবেশ করে। এর প্রেক্ষিতে আবার বুধবার বিকেলে শহরের কাব রোডে মেয়র হাবিবুর রহমান মালেক সমর্থকরা শহরে মিছিল ও সমাবেশ করে। সমাবেশে তারা কালকের ঘটনায় মেয়রের বিষয়ে অপপ্রচার ও আপত্তিকর মন্তব্যের প্রতিবাদ জানায়। মেয়র পক্ষের মিছিল সমাবেশ শেষ হওয়ার পরে রাতে এ্যানী রহমানের সমর্থকরা একটি মিছিল বের করে। এ সময় তাদের ধাওয়া দিলে শুরু হয় ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ায়। ঘটে ইটপাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা। এ সময় এ্যানী রহমানের ২ সমর্থক আহত হয়েছে বলে জানা যায়। পরে পুলিশের হস্তক্ষেপে পরিস্তিতি কিছুটা নিয়ন্ত্রনে আসে।

এ্যানী রহমানের সমর্থক পিরোজপুর জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও কলেজ ছাত্র সংসদের সাবেক ভিপি মাকসুদুল ইসলাম লিটন জানান, সন্ধ্যার পর শহরে মিছিল বের করার জন্য নেতা-কর্মীদের নিয়ে সদর রোডে যাওয়ার সময় পুলিশের উপস্থিতিতে কেন্দ্রীয় মসজিদ মোড়ে পিছন দিক থেকে মেয়র সমর্থকরা লাঠিসোটা নিয়ে হামলা চালায় এবং ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। এতে সুইট সিকদারসহ তাদের ৩/৪ জন কর্মী আহত হয়।

এদিকে মেয়র মালেক সমর্থক জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আমিরুল ইসলাম মিরণ জানান, তাদের মিছিল সমাবেশ শেষ করে নেতা-কর্মীরা টাউন কাব মাঠে শান্তিপূর্ণ অবস্থান নেয়। সন্ধ্যার পর লিটন সিকদারে নেতৃত্বে একটি গ্রুপ মেয়র মালেকের বিরুদ্ধে শ্লোগান দিয়ে যাওয়ার সময় দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। সিনিয়র নেতৃবৃন্দ নেতা-কর্মীদের শান্ত করে, তবে কোন হামলার ঘটনা ঘটেনি।

পিরোজপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এস এম জিয়াউল হক জানান, বিকেলে এক পক্ষের মিছিল-সমাবেশ করার খবর পুলিশের জানা থাকলেও সন্ধ্যার পর অপর পক্ষ হঠাৎ করে মিছিল বের করলে পরিস্থিতি কিছুটা উত্তপ্ত হয়। তবে পুলিশ কঠোর অবস্থান নেয়ায় বর্তমানে শহরে শান্তিপূর্ণ অবস্থা বিরাজ করছে।

বিডি প্রতিদিন/ ওয়াসিফ



এই পাতার আরো খবর