ঢাকা, রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮

আজকের পত্রিকা

ঘড়ি ধরে ৫ মিনিট
লেখালেখিটা দারুণ উপভোগ করি
কনকচাঁপা
আলী আফতাব

গান আর কনকচাঁপা যেন একটি সমার্থক শব্দ। পাশাপাশি চলছে আঁকাআঁকি ও কবিতা লেখা। সমসাময়িক নানা বিষয় নিয়ে আজ তার আলাপন।

 

শুনলাম আপনার একটি বই এসেছে?

আমি বিভিন্ন সময় ফেসবুকে নানা কিছু  লেখি। একদিন মাহমুদুল হাসান মানিক আমার কাছ থেকে কিছু কবিতা চায়। আমার কাছে তেমন বেশি কবিতা ছিল না। তাই ফেসবুকে দেওয়া পাঁচটি কবিতা আমি তাকে দিই। এরপর সে আমাকে জানায়, ‘কাননে কৃষ্ণচূড়া’ নামে একটি কবিতার বই মেলায় প্রকাশিত হয়েছে। তাতে আমার পাঁচটি কবিতা আছে।

 

দেবদাস মিউজিক ভিডিওটির সাড়া কেমন?

এটি আমার ৩৫ বছরের সংগীতজীবনে প্রথম মিউজিক ভিডিও ছিল। গল্প ও নৃত্যনির্ভর এ ভিডিওটি তৈরি করেছিলেন আমার স্বামী মঈনুল ইসলাম খান। ‘রাতের জলসা ঘরে, নাচে চন্দ্রমুখী, দেবদাস জানে না সে দুঃখী’ অসাধারণ একটি গানের ভিডিও ছিল এটি। গানটির গীতিকার ছিলেন হুমায়ুন কবির। গানটি প্রকাশ হওয়ার পর বেশ সাড়া পাচ্ছি।

 

আঁকাআঁকি কেমন চলছে?

গত বছরের এপ্রিল মাসে আমার একটি চিত্র প্রদর্শনী হয়েছিল। আর আঁকাআঁকির জন্য সময় লাগে। মনের ভিতরে যদি কোনো ছবি না আসে তবে আঁকব কী করে। তাই একটু সময় নিচ্ছি। 

 

সংগীতশিল্পী, চিত্রশিল্পী, লেখক। অনেক পরিচয় আপনার। কোন বিষয়টি আপনাকে সবচেয়ে বেশি টানে?

মানুষ কিন্তু আমাকে কণ্ঠশিল্পী হিসেবেই চেনে। আর গানটা আমি কোনো দিনও শখের বসে করিনি। কিন্তু আমি লেখালেখিটা দারুণ উপভোগ করি। নতুন কাগজ আর কলমের প্রতি আমার প্রবল নেশা। আমি টাকা জমিয়ে জমিয়ে দিস্তার পর দিস্তা কাগজ কিনতাম। নতুন নতুন কলম কিনতাম। এখনো কিনি। ফাইনালি আমার পরিচয়, আমি একজন শিল্পী।

 

ভালোবাসা দিবসে কিছু করছেন?

ভালোবাসা দিবসে নতুন কোনো গান করছি না। কিন্তু ১৪ ফেব্রুয়ারি চ্যানেল আইয়ে ‘ভালোবাসার গল্প’ নামে একটি অনুষ্ঠানে থাকছি আমি আর আমার স্বামী।



এই পাতার আরো খবর