ঢাকা, বুধবার, ২১ নভেম্বর, ২০১৮

আজকের পত্রিকা

কলকাতা বিমানবন্দরে অস্ত্র-গুলিসহ বাংলাদেশি আটক
দীপক দেবনাথ, কলকাতা:

অস্ত্র ও গুলি বহনের অভিযোগে কলকাতার নেতাজী সুভাষ চন্দ্র বসু আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর (এনএসসিবিআই) থেকে এক বাংলাদেশিকে আটক করা হয়েছে। 

সোমবার তাকে আটক করে বিমাবন্দরের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা সেন্ট্রাল ইন্ডাস্ট্রিয়াল সিকিউরিটি ফোর্স (সিআইএসএফ)-এর সদস্যরা। পরে থাকে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়।

আটক ওই বাংলাদেশি নাগরিকের নাম মোহাম্মদ গোলাম হায়দার (৭১)। বাড়ি বাংলাদেশের সিরাগঞ্জে। সোমবার সকালে বিমান বাংলাদেশের একটি বিমানে কলকাতা বিমানবন্দর থেকে ঢাকার পথে যাওয়ার সময় হায়দারের লাগেজ থেকে বেশকিছু গোলাবারুদ উদ্ধার করা হয়।

এব্যাপারে সিআইএসএফ-এর কর্মকর্তা জানান ‘বিমানবন্দরে ওই বাংলাদেশি নাগরিকের লাগেজ চেক-ইন’এর সময় তাঁর ব্যাগ থেকে ৩৬ রাউন্ড পয়েন্ট ৩২ বোরে আম্মো গুলি (রিভলবারের গুলি) উদ্ধার করা হয়।’   বিমানবন্দর সূত্রে জানা গেছে দুই বছর আগেই কলকাতা বিমানবন্দরে আন্তর্জাতিক টার্মিনালে যাত্রীদের ব্যাগেজ পরীক্ষার জন্য চারটি স্তরে চেক-ইন ব্যবস্থা চালু হয়। প্রথম তিনটি স্তর পার হয়ে যাওয়ার পরই সন্দেহ হওয়ায় নিরাপত্তা কার্যালয়ে হায়দারকে ডেকে পাঠানো হয় এবং জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করা হয়। 

জেরায় হায়দার জানান অস্ত্র বহনের বৈধ নথি তার কাছে রয়েছে। বাংলাদেশের সিরাজগঞ্জ পুলিশ থানা থেকেই রিভলবারের লাইসেন্স পেয়েছিলেন, যার লাইসেন্স নম্বর ১৩৩/১৯৮২। ওই বন্দুকের জন্যই তিনি এই গুলি বাংলাদেশ নিয়ে যাচ্ছিলেন। যদিও তদন্তকারী কর্মকর্তাদের সামনে তিনি কোন বৈধ নথিই দেখাতে পারেন নি বলে জানা গেছে। এমনকি গুলি বহনের বিষয়টি বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষকে আগাম জানানো হয় নি। এরপরই তাকে আটক করে সিআইএসএফ। পরে দুপুরের দিকে বিমানবন্দর থানার হাতে তুলে দেওয়া হয় ওই বাংলাদেশি নাগরিককে। 

বিমানবন্দর সূত্রে খবর কলকাতার ইএম বাইপাশের ধারে মুকুন্দপুরের আর.এন.টেগোর হাসপাতালে স্ত্রীর চিকিৎসার জন্য গত ৫ সেপ্টেম্বর ঢাকা থেকে তিনি কলকাতায় আসেন এবং গতকালই স্ত্রী ও তার একজন অ্যাটেন্ডেন্ট-কে সাথে নিয়ে গোলাম হায়দার ঢাকার উদ্যেশ্যে যাচ্ছিলেন। কিন্তু মেডিকেল গ্রাউন্ডে কলকাতা বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ হায়দারের স্ত্রী ও তার অ্যাটেন্ডেন্টকে বাংলাদেশে যাওয়ার ছাড়পত্র দেওয়ায় তারা দুই জনেই হায়দারকে ছেড়েই ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা দেন। 

নিষিদ্ধ অস্ত্র ও গোলাবারুদ বহনের অভিযোগে গোলাম হায়দারের বিরুদ্ধে ভারতীয় দন্ডবিধির অস্ত্র আইনের ২৫ (১এ) ধারায় মামলা করা হয়েছে। আজ মঙ্গলবার তাকে ব্যারাকপুর আদালতে তোলা হবে। সেক্ষেত্রে দোষী সাব্যস্ত হলে সর্বোচ্চ ১০ বছরের কারাগারের সাজা হতে পারে ওই বাংলাদেশি নাগরিকের।   গোলাম হায়দারের গ্রেফতারি নিয়ে বিমানবন্দর থানার পুলিশ ইতিমধ্যেই কলকাতাস্থ বাংলাদেশ ডেপুটি হাইকমিশনকে জানিয়েছে। কলকাতা পুলিশের ইন্টেলিজেন্স ব্রাঞ্চ (আইবি) এবং ডিটেকটিভ ডিপার্টমেন্ট (ডিডি)-কেও ওই বাংলাদেশি নাগরিকের গ্রেফতারের গোটা ঘটনাটি জানানো হয়েছে। 

বিডি-প্রতিদিন/ ই-জাহান



এই পাতার আরো খবর