ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৮ অক্টোবর, ২০১৮

আজকের পত্রিকা

পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ চরমপন্থি নিহত
পাবনা প্রতিনিধি

পাবনায় কুখ্যাত সন্ত্রাসী, চরমপন্থি নেতা, নিস্তার বাহিনীর প্রধান নিজাম নিস্তার পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছেন। গতকাল ভোরে জেলার বেড়া উপজেলার দুর্গম ঢালার চরের দরির চর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত নিজাম নিস্তার পাবনা সদর উপজেলার ভাড়ারা ইউনিয়নের কাথুলিয়া গ্রামের ইয়াছিন আলী মিস্ত্রির ছেলে। তার বিরুদ্ধে ঢালার চরের আলোচিত পুলিশ মার্ডার, অপহরণ, চাঁদাবাজিসহ প্রায় দুই ডজন মামলা রয়েছে। নিস্তার বাহিনীর অত্যাচার নিয়ে বাংলাদেশ প্রতিদিনে ২২ নভেম্বর একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়। এর পর থেকেই র‌্যাব, পুলিশ ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা তাকে খুঁজতে থাকেন। নিজাম নিস্তার সদর উপজেলা জাসদের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। দীর্ঘদিন ধরে তিনি জেলা জাসদের সাধারণ সম্পাদক হাবিবুল ইসলাম মিন্টুর গ্রামের বাড়ি ও শাহজাদপুর পৌর মেয়র মিরুর বাড়িতে অবস্থান করে আসছিলেন। সম্প্রতি সাংবাদিক শিমুল হত্যার পর তার আশ্রয়স্থল নষ্ট হয়ে যায়। আমিনপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তাজুল হুদা জানান, চরমপন্থিদের দুটি দলের মধ্যে মঙ্গলবার দিবাগত রাত সাড়ে ৩টার দিকে সংঘর্ষ ও গোলাগুলির খবরে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। দুই পক্ষকে হটিয়ে দিতে পুলিশও গুলি ছোড়ে। এ সময় পুলিশ ও চরমপন্থিদের দুটি দলের মধ্যে ত্রিমুখী বন্দুকযুদ্ধ হয়। একপর্যায়ে চরমপন্থিরা পিছু হটে। পরিস্থিতি শান্ত হলে ঘটনাস্থল থেকে এক সন্ত্রাসীর লাশ এবং একটি দেশি পিস্তল, একটি বিদেশি পিস্তল, তিন রাউন্ড গুলি ও দুটি চাপাতি উদ্ধার করে পুলিশ। পরে স্থানীয়রা নিহত ব্যক্তি নিজাম নিস্তার বলে নিশ্চিত করেন। এ ব্যাপারে কাথুলিয়া গ্রামের আব্বাস উদ্দিন বলেন, ‘আমরা তার অত্যাচারে গ্রামে থাকতে পারতাম না। রাতের আঁধারে এসে হামলা চালিয়ে চলে যেতেন নিজাম নিস্তার ও তার লোকজন। আজকে আমরা স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলছি তার মৃত্যুর খবরে।’ কাথুলিয়া গ্রামের মাহতাব উদ্দিন বলেন, নিজাম নিস্তার ও তার লোকজন পাবনা, রাজবাড়ী ও ফরিদপুর জেলার অসংখ্য লোককে হত্যার পর পাংশার পদ্মা নদীতে ভাসিয়ে দিয়েছেন। তার বিরুদ্ধে কেউ কোনো কথা বললে তাকেও একইভাবে হত্যা করা হতো। উল্লেখ্য, পাবনার ঢালার চরে আলোচিত তিন পুলিশ হত্যা মামলার প্রধান আসামি চরমপন্থি নিজাম নিস্তারের বিরুদ্ধে পাবনা ও রাজবাড়ীর বিভিন্ন থানায় হত্যা, ডাকাতি, অস্ত্রসহ ২৫টি মামলা রয়েছে।



এই পাতার আরো খবর