ঢাকা, শনিবার, ১৭ নভেম্বর, ২০১৮

আজকের পত্রিকা

টরন্টোতে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত
অনলাইন ডেস্ক

যথাযোগ্য মর্যাদায় টরন্টোতে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হয়েছে। সোমবার উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী অব কানাডার উদ্যোগে ৪৩৩ বার্চমাউন্ট রোডস্থ দূর্গা বাড়িতে এ উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচি পালিন করা হয়। 

কর্মসূচির মধ্যে ছিল- সোমবার শিশুদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। পরে মঙ্গলবার প্রথম প্রহরে  ১২টা ০১ মিনিটে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণের মাধ্যমে কর্মসূচি শেষ হয়। 

এর আগে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার মধ্যে দিয়ে অনুষ্ঠান শুরু হয়  সোমবার বিকেল সাড়ে ৪টায়। যা ৬টা পর্যন্ত চলে। বিচারক মন্ডলীর মধ্যে ছিলেন- নূরুন নাহার সুপ্তি, সাইদা রেশমা আকতার এবং ফেরদৌসী ইসলাম পপি। মোট ৫৬ জন প্রতিযোগীর মধ্যে 'ক' শাখায় প্রথম হন দেবস্মিতা দাস; দ্বিতীয় স্থান অধিকার করেন মোহাম্মদ মুনতাহার উল হক এবং তৃতীয় স্থান অধিকার করেন নুহা মোমেন। 

'খ' শাখায় প্রথম স্থান অধিকার করেন-অভিনন্দন কুন্ড; দ্বিতীয় হন-কাশফিয়া চৌধুরী এবং তৃতীয় স্থান অধিকার করেন অক্ষরা দেবনাথ।  বিজয়ীদের পুরস্কার স্পনসর করেন রিয়ালটর তপন সাইয়েদ। বিজয়ীদের সাথে অংশগ্রহণকারী সকলকেই প্রশংসাপত্র দেয়া হয়। 

সংগঠনের সভাপতি মামুনুর রশীদের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক দেবাশীষ সাহার সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি কলামিস্ট,অধ্যাপক/সিনেট স্পিকার ড. মোজাম্মেল খান, সংগীতজ্ঞ আলী আসগর খোকন এবং লেখক/সংস্কৃতি কর্মী সুব্রত কুমার একুশের চেতনায় ফিরে গিয়ে মাতৃভাষাকে সাম্প্রদায়িকতা ও রাজনীতির বেড়াজাল থেকে বেরিয়ে আসার অভিমত ব্যক্ত করেন।

আলোচনা সভার পরই জ্যাকুলিন রোজারিও'র সঞ্চালনায় উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী অব কানাডা পরিবেশন করে একুশের গান। এতে অংশ গ্রহণ করেন-গৌরী দাস,আইরিন আলম, ইন্দিরা রায়, জয়া সেনাপতি, রুমানা তাসনিম কলি, ইভা নাগ, দীনা সাইয়েদ, হারুনুর রশীদ শ্যামল, সামসুল আলম, সুমন সাইয়েদ ও মামুনুর রশীদ। তবলায় ছিলেন দেবাশীষ সাহা।

এরপর শুরু হয় নতুন প্রজন্মের পরিবেশনা। সংগীতে অংশগ্রহণ করেন-তানিশা ভৌমিক,তনুশ্রী ভট্ট্যাচার্য্য, তিথি ভট্ট্যাচার্য্য, শোভন ঘোষ, এমা রক্ষীত, ইন্দ্রা বিদুষী বিদ্যা কর এবং ধিষণা শ্রেষ্ঠা বাসুরী কর। তবলা সঙ্গত করেন সুবর্ণ চৌধুরী-যা হলভর্তি দর্শক শ্রোতাদের মুগ্ধ করে। 

সবনাম সায়মা তনিমা সংকলিত ও সাইদা রেশমা আকতার নির্দেশিত একুশের একাংকিকায় অংশ গ্রহণ করেন সারাফ অথৈ, নিস্বর্গ সাইয়েদ, রেইস রানা রুচি, তাইসির রেজা ও মাহাদীন। ৬ থেকে ১৩ বছর বয়সী এই প্রজন্মের শিশুদের অনবদ্য অভিনয়ে সবাই উচ্ছসিত প্রশংসা করেন। 

নৃত্য পরিবেশন করেন স্বাক্ষরা দেবনাথ, অক্ষরা দেবনাথ, আনিকা, ইন্দ্রা বিদুষী বিদ্যা কর ও ধিষণা শ্রেষ্ঠা বাসুরী কর। অমর একুশে-আন্তর্জাতিক মাতৃভাষার উপর আলোচনা করেন এই প্রজন্মের অনিন্দ দাস।

সংগীতজ্ঞ আলী আসগর খোকন কর্তৃক পুরস্কার বিতরণীর মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান মালা শেষ হয়। বিজ্ঞপ্তি।

বিডি প্রতিদিন/২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৭/এনায়েত করিম



এই পাতার আরো খবর