Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭

প্রকাশ : ৬ জানুয়ারি, ২০১৭ ১৪:২১
আপডেট :
বর্ণিল পাখি মেলায় উৎসবমুখর জাহাঙ্গীরনগর
শরিফুল ইসলাম সীমান্ত
বর্ণিল পাখি মেলায় উৎসবমুখর জাহাঙ্গীরনগর

পাখিরা আমাদের প্রকৃতির অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ এক অংশ। অথচ নগরায়নের ফলে প্রকৃতিতে দিন দিন কমে যাচ্ছে পাখির সংখ্যা। আমরা একটু সচেতন হলেই পাখিরা ফিরে পাবে নিজেদের নিরাপদ আবাসস্থল। পরিবেশ ও প্রকৃতি রক্ষায় সবাইকে সচেতন করার এমন লক্ষ্য নিয়েই জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) অনুষ্ঠিত হয়েছে 'পাখি মেলা-২০১৭'। শুক্রবার বিশ্ববিদ্যালয়ের জহির রায়হান মিলনায়তন প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত বর্ণিল এই পাখি মেলায় উৎসবমুখর হয়ে উঠেছিল পুরো ক্যাম্পাস।

পাখি সংরক্ষণে গণসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ২০০১ সাল থেকে ধারাবাহিকভাবে জাবিতে অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে ব্যতিক্রমী এই মেলাটি। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগ ও ওয়াইল্ড লাইফ রেসকিউ সেন্টারের যৌথ উদ্যোগে অনুষ্ঠিত এবারের মেলাটি ছিল ১৬তম আয়োজন। প্রতিবারের মতোই এবারো মেলার স্লোগান ছিল- 'পাখ-পাখালি দেশের রত্ন, আসুন সবাই করি যত্ন'।

সকাল সাড়ে ১০টায় প্রধান অতিথি হিসেবে মেলার উদ্বোধন করেন জাবির কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক আবুল খায়ের। উদ্বোধনী ভাষণে প্রধান অতিথি পরিবেশ ও প্রকৃতি রক্ষায় সবাইকে সচেতন হওয়ার আহবান জানিয়ে বলেন, 'বন্যপ্রাণি, পশু-পাখি আমাদের পরিবেশ ও প্রকৃতিকে রক্ষা করে। এরা পরিবেশ সর্বোপরি আমাদেরই বন্ধু। একটি সুন্দর আগামীর জন্য তাদের  ভালবাসতে হবে এবং যথেষ্ট যত্নশীল হতে হবে। '
 
নতুন প্রজাতির পাখি সনাক্ত করার কৃতিত্বস্বরূপ তিনজন পাখি প্রেমীকে মেলার পক্ষ থেকে আয়োজকরা বিগবার্ড অ্যাওয়ার্ড প্রদান করেন। অ্যাওয়ার্ড প্রাপ্তরা হলেন- মিজানুর রহমান মিঠু, সালাহ উদ্দিন জাহিদ ও নাজমুল হুসাইন নিশাদ।

এবারের মেলায় পাখিবিষয়ক আটটি সংগঠন তাদের স্টল সাজান। এগুলো হল- বাংলাদেশ বার্ড ক্লাব, কমিউনিটি বেজড ভালচার ফিডিং স্টেশন, জবির নেচার স্টেশন এন্ড কনজারভেশন ক্লাব, জাবির বাটারফ্লাই পার্ক অ্যান্ড রিসার্চ সেন্টার, ঢাবির প্রাণিবিদ্যা বিভাগের নেচার কনজারভেশন ক্লাব, ওয়াইল্ড লাইফ রেসকিউ সেন্টার এবং জাহাঙ্গীরনগর ইউনিভার্সিটি ফটোগ্রাফিক সোসাইটি।  

মেলায় অন্যান্য আয়োজনের মধ্যে ছিল আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় পাখি দেখা প্রতিযোগিতা, পাখির আলোকচিত্র প্রদর্শনী, শিশু-কিশোরদের জন্য পাখির ছবি আঁকা প্রতিযোগিতা, টেলিস্কোপে শিশু-কিশোরদের পাখি পর্যবেক্ষণ, অডিও-ভিডিও'র মাধ্যমে আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় পাখি দেখা প্রতিযোগিতা, পাখি বিষয়ক কুইজ প্রতিযোগিতা এবং সবশেষে বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ ও সমাপনী অনুষ্ঠান।

অধ্যাপক এটিএম আতিকুর রহমানের সঞ্চালনায় মেলায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আরণ্যক ফাউন্ডেশনের প্রধান নির্বাহী ফরিদ উদ্দিন আহমেদ, আইইউসিএনের বাংলাদেশ প্রতিনিধি ইশতিয়াক উদ্দিন আহমেদ, বাংলাদেশ বার্ড ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা ইনামস আল হক, বাংলাদেশ বন বিভাগের সিএফ অসিত রঞ্জন পাল, ডব্লিউআরসির প্রতিষ্ঠাতা মো. মোস্তফা ফিরোজ, অধ্যাপক সাজেদা বেগম এবং মেলার আহ্বায়ক অধ্যাপক মো. কামরুল আহসান।


বিডি প্রতিদিন/৬ জানুয়ারি, ২০১৭/ফারজানা

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow