Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৩ মার্চ, ২০১৭

প্রকাশ : ২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৭:০৯
আপডেট :
শিক্ষার্থীদের ‘গরু’ বলায় দ্বিতীয় দিনের মত বিক্ষোভ নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে
ময়মনসিংহ প্রতিনিধি:
শিক্ষার্থীদের ‘গরু’ বলায় দ্বিতীয় দিনের মত বিক্ষোভ নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে

ময়মনসিংহের ত্রিশালে প্রতিষ্ঠিত জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী রেজিস্ট্রার খন্দকার এহসান হাবীব পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের গরু বলে মন্তব্য করার প্রতিবাদে দ্বিতীয় দিনের মত বিক্ষোভ করেছে শিক্ষার্থীরা।

বৃহস্পতিবার সহকারী রেজিস্ট্রারের স্থায়ী পদত্যাগের দাবিতে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে বিক্ষোভ মিছিল ও আন্দোলন করেছে শিক্ষার্থীরা।

বৃহস্পতিবার সকাল ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রায় চার হাজার শিক্ষার্থী এ বিক্ষোভ মিছিলে অংশগ্রহণ করেন। বিক্ষোভ মিছিলটি বিশ্ববিদ্যালয়ের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে প্রশাসনিক ভবনের সামনে এসে শেষ হয়। এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের উত্তেজিত শিক্ষার্থীরা টায়ার জ্বালিয়ে সহকারী রেজিস্ট্রারের বিরুদ্ধে নানা স্লোগান দেয়।
পরে শিক্ষার্থীরা সহকারী রেজিস্ট্রার এহসান হাবীব এর স্থায়ী পদত্যাগের দাবিতে উপাচার্য বারাবর স্মারকলিপি জমা দেন।
বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর জাহিদুল কবীর জানান, এ ঘটনায় ট্রেজারার প্রফেসর এ এম এম শামসুর রহমান’কে সভাপতি করে পাঁচ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠিত হয়েছে এবং পাঁচ কর্মদিবসের মাঝেই তদন্তের প্রতিবেদন জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।
গত ৩১ মঙ্গলবার রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী রেজিস্ট্রার এহসান হাবীব তিনি তার ফেসবুকের টাইমলাইনে লিখেন, ‘পাবলিকের অনেক গরু প্রতিদিন আমি আমার বাড়ির মাঠে ঘাস খেতে দেখেছি। ’ এর আগে তিনি আরেকটি স্ট্যাটাসে লিখেন ‘বিষয়টা প্রাইভেট পাবলিক না। বিষয়টা হলো মেধার। যোগ্যতার। আপনি পাবলিকের গরু নিবেন, নাকি প্রাইভেটের মেধা নিবেন?’ সহকারী রেজিস্ট্রারের এমন স্ট্যাটাসে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তোলপার সৃষ্টি হয়।
বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি সূত্র বলছে, বর্তমান উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহীত উল আলম এর ছেলে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাশ করলেও তাকে জাতীয় কবি কাজী নজরুর ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগে প্রভাষক হিসেবে নিয়োগ প্রদানের পায়তারা চলছে। এরই প্রেক্ষিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী রেজিস্ট্রার এহসান হাবীব এমন মন্তব্য করেছেন বলে জানা যায়।

বিডি প্রতিদিন/২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭/ সালাহ উদ্দীন

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow