Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ২১ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, সোমবার, ২১ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২০:১৯ অনলাইন ভার্সন
আপডেট :
অপূর্ণাঙ্গ কমিটিতে হতাশ জাবি ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি:
অপূর্ণাঙ্গ কমিটিতে হতাশ জাবি ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা

সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নাম ঘোষণার পনের দিনের মধ্যে পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের নির্দেশনা থাকলেও গত দেড় মাসেও ঘোষণা হয়নি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি) শাখা ছাত্রলীগের কমিটি। ফলে সংগঠনের জন্য ভূমিকা রাখা সিনিয়র নেতাকর্মীরা হতাশ হয়ে পড়ছে।

তাদের অভিযোগ ‘এটা সংগঠনের গঠনতন্ত্রের সাথে সাংঘর্ষিক’ এবং ‘এতে সাংগাঠনিক কর্মকান্ডে স্থবিরতা ও সমন্বয়ের অভাব দেখা দিয়েছে। ’

গত ২৭ ডিসেম্বর, সাবেক উপ-অর্থ বিষয়ক সম্পাদক মো. জুয়েল রানাকে সভাপতি এবং আইন বিষয়ক সম্পাদক আবু সুফিয়ান চঞ্চলকে সাধারণ সম্পাদক করে ‘১৫ দিনের মধ্যে পূর্ণাঙ্গ কমিটি হবে’ উল্লেখ করে দুই সদস্যের কমিটি ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। দুই মাস অতিবাহিত হলেও কমিটি ঘোষণা হচ্ছে না। বাংলাদেশ ছাত্রলীগের গঠনতন্ত্রের ১ম ভাগের ৬(চ) ধারায় বলা হয়েছে, ‘একজন আহ্বায়ক, এক বা একাধিক যুগ্ম আহ্বায়ক এবং বাকি সদস্য সমন্বয়ে কমিটি গঠনের জন্য আহ্বায়ক কমিটি গঠিত হবে। তবে কমিটির পরিধি ৫১ জনের বেশি হবে না। ’

এদিকে, নতুন সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নাম ঘোষণার পর জাবি শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা তিন দফা মারামারিতে লিপ্ত হয়। গত ১০ জানুয়ারি সেলিম আল মুক্তমঞ্চের কনসার্টে বসার জায়গা নিয়ে দ্বন্ধের জেরে বঙ্গবন্ধু হল ও মওলানা ভাসানী হলের ছাত্রলীগ কর্মীদের মধ্যে মারামারি ও গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ছাত্রলীগের ১০ জন কর্মী বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন কর্তৃক বহিষ্কৃতও হয়। নতুন কমিটি ‘ছাত্রলীগের পুনর্মিলনী’ উপলক্ষে একটি মতবিনিময় সভা এবং আবাসিক হলগুলোর ডাইনিং পরিদর্শনের কর্মসূচি পালন করে। কিন্তু সেসব কর্মসূচিতে গুরুত্বপূর্ণ নেতাকর্মী না থাকায় সমন্বয়হীনতা ও বিশৃঙ্খলা দেখা দেয়। শাখা ছাত্রলীগের একাধিক ছাত্র নেতা বাংলাদেশ প্রতিদিনের কাছে ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, “শুধুমাত্র সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক দিয়ে এত বড় ক্যাম্পাসের সাংগঠনিক কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে পরিচালনা করা সম্ভব নয়। গুরুত্বপূর্ণ ছাত্র নেতাদের কেউ কোন পদে না থাকায় সিনিয়র-জুনিয়রদের মধ্যে দেখা দিচ্ছে চেইন অব কমান্ডের অভাব। ত্যাগী নেতাদের কোন মূল্যায়ন করা হচ্ছে না। এটা কোন শুভ লক্ষণ নয়। ”

এদিকে, নতুন সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক ‘ত্যাগী সিনিয়র নেতাদের বাদ দেওয়ার জন্যই কমিটি এখনই ঘোষণা করতে চাচ্ছেন না’ বলে অভিযোগ উঠেছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ছাত্র নেতা বাংলাদেশ প্রতিদিনের কাছে আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেন, “এভাবে বেশিদিন চলতে পারে না। যে কোন সময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে গিয়ে অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটতে পারে। ”

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে জাবি শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. জুয়েল রানা বলেন, ‘কমিটির তালিকা প্রস্তুত আছে। যে কোন সময় ঘোষণা হতে পারে। ’ এ বিষয়ে কথা বলতে চেয়ে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক সাইফুর রহমান সোহাগ ও এস এম জাকির হোসাইনকে একাধিক বার তাদের মুঠোফোনে কল করা হলেও তারা কল রিসিভ করেননি।

বিডি প্রতিদিন/এ মজুমদার

 

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow