Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : ১৯ মার্চ, ২০১৭ ১৪:১৬ অনলাইন ভার্সন
কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে নতুন ভিসির দাবিতে শিক্ষকদের মানববন্ধন
নিজস্ব প্রতিবেদক
কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে নতুন ভিসির দাবিতে শিক্ষকদের মানববন্ধন

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরকৃবি) শিক্ষকরা নতুন ভিসির দাবিতে আজ সকালে সংবাদ সম্মেলন ও মানববন্ধন করেছেন। এসময় তারা বর্তমান উপাচার্য মো. মাহবুবর রহমানকে দ্বিতীয় দফা মেয়াদ না বাড়ানোরও দাবি জানান।

 

বিশ্ববিদ্যালয়ের কনফারেন্স রুমে অনুষ্ঠত সংবাদ সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি অধ্যাপক আব্দুল মান্নান আকন্দ। অধ্যাপক মো. কামরুজ্জামানের সঞ্চালনায় সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন সহযোগী অধ্যাপক অধ্যাপক মো. ইমরুল কায়েস, সহকারি অধ্যাপক আরিফুর রহমান খান, জাহাঙ্গীর আলম খান প্রমুখ।  

এসময় তারা বলেন, বর্তমান ভিসি ২০১৩ সালের ২০ মার্চ চার বছর মেয়াদে ভিসির দায়িত্ব পান। ২০১৭ সালের ১৯মার্চ তার ওই মেয়াদ শেষ হচ্ছে। ইতোমধ্যে তিনি দ্বিতীয় মেয়াদে পূনঃনিয়োগ পাওয়ার তদবির শুরু করেছেন।  

সংবাদ সম্মেলনে বিশ্ববিদ্যালয়ের কতিপয় শিক্ষক তার কর্মকালীণ সময়কার বিভিন্ন  দুর্নীতি ও অপকর্মের তথ্য তুলে ধরেন। তারা অভিযোগ করে বলেন, ভিসি মাহমুবর রহমান আওয়ামী লীগের নাম ভাঙ্গিয়ে বিভিন্ন সুবিধা নিয়েছেন। তিনি ক্ষমতার উন্মদনায় ভুগেন। তিনি তার সময়ে স্বজনপ্রীতি ও আর্থিক লেনদেনের মাধ্যমে শিক্ষক-কর্মচারী নিয়োগ করেছেন।

এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়টিতে গবেষণার মান নিম্নগামী হয়েছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিক্যাল সেন্টারে চিকিৎসা ব্যবস্থা নিম্নমান  ও ঝুকিপূর্ণ হয়েছে।  

এসময় শিক্ষকরা ভিসির মেয়াদ শেষ হওয়ার পর নতুন করে মেয়াদ না বাড়ানোর জন্য প্রধানমন্ত্রী ও শিক্ষামন্ত্রীর কাছে অনুরোধ জানান। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে যোগ্য শিক্ষকদের ভিসি নিয়োগের দাবিও জানিয়েছেন শিক্ষকরা।  

সংবাদ সম্মেলন শেষে শিক্ষকরা বিশ্ববিদ্যালয়ের চত্বরে মানববন্ধন করেন। মানববন্ধনে শিক্ষকরা বলেন, দাবি মানা না হলে কর্মবিরতিসহ বৃহত্তর আন্দেলনের কর্মসূচী দেয়া হবে।  

এদিকে ভিসি মাহবুবর রহমান তার বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, উদ্দেশ্যমূলকভাবে তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। তার সময়ে প্রতিষ্ঠানটি শান্তিপূর্ণভাবে ও আন্দোলনবিহীনভাবে চলেছে। সাবেক ভিসি আব্দুল মান্নান আকন্দের নেতৃত্বে একটি মহল বিশ্ববিদ্যালয়টিকে অস্থিতিশীল করার চেষ্টা চালাচ্ছে।  

 

বিডি প্রতিদিন/১৯ মার্চ ২০১৭/হিমেল

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow