Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ১৫ জুলাই, ২০১৮ ১৬:১৯ অনলাইন ভার্সন
বর্ণাঢ্য আয়োজনে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় দিবস উদযাপন
প্রিন্স বিশাস, শেকৃবি প্রতিনিধি
বর্ণাঢ্য আয়োজনে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় দিবস উদযাপন

বর্ণাঢ্য আয়োজনে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৮তম বিশ্ববিদ্যালয় দিবস উদযাপিত হয়েছে। এবারের বিশ্ববিদ্যালয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে দুই দিনব্যাপী কর্মসূচি গ্রহণ করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

কর্মসূচির প্রথম দিন রবিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি অনুষদের সামনে জাতীয় সংগীত উচ্চারণ এবং জাতীয় পতাকা ও বিশ্ববিদ্যালয়ের পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় দিবস উদ্বোধন করা হয়।

এ সময় জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড.কামাল উদ্দিন আহাম্মদ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের পতাকা উত্তোলন করেন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. সেকেন্দার আলী, ট্রেজারার প্রফেসর ড. মো. আনোয়ারুল হক বেগ। এরপর উপাচার্য বিশ্ববিদ্যালয়ের বেলুন ও শান্তির প্রতীক পায়রা উড়িয়ে এবং কেক কেটে অনুষ্ঠান শুরু করেন।
বিশ্ববিদ্যালয় দিবসের উদ্বোধন শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান উপাচার্য অধ্যাপক ড. কামাল উদ্দিন আহাম্মদ। এ সময় উপাচার্য বলেন, ‘কৃষি শিক্ষার পীঠস্থান হিসেবে এ বিশ্ববিদ্যালয়কে উচ্চ শিখরে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছি। তাই এখন সময় এসেছে জ্ঞান-বুদ্ধিকে শাণিত করে ব্যক্তিস্বার্থের ঊর্ধ্বে উঠে বিশ্ববিদ্যালয়কে উচ্চ আসনে নিয়ে যাওয়ার। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের চেয়ারম্যান প্রফেসর আব্দুল মান্নান ও কৃষিবিদ আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম এমপিকে ধন্যবাদ জানিয়ে উপাচার্য আরো বলেন, সকলের সহযোগিতায় শিক্ষা, গবেষণা ক্ষেত্রে দ্রুত সামনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে এবং এ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা দেশের উন্নয়নে কাজ করে চলেছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. মিজানুর রহমান। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. সেকেন্দার আলী, ট্রেজারার অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ারুল হক বেগসহ প্রাক্তন ও বর্তমান ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারি উপস্থিত ছিলেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে একাডেমিক ভবন থেকে ক্যাম্পাসে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করা হয়। শোভাযাত্রাটি রাজধানীর বিভিন্ন রাস্তা ঘুরে প্রশাসনিক ভবনে এসে শেষ হয়। বিভিন্ন ব্যানার-ফেস্টুনসহ বাদ্যযন্ত্র বাজিয়ে শোভাযাত্রায় অংশ নেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সদস্য, শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী ও শিক্ষার্থীরা। বিকেল ৩ টায় কেন্দ্রীয় খেলায় মাঠে অনুষ্ঠিত হয় প্রীতি ফুটবল ম্যাচে। এর আগে সকাল ৯টা থেকেই আবাসিক হলগুলোর শিক্ষার্থীরা বাদ্যযন্ত্র বাজিয়ে, ব্যানার-ফেস্টুন নিয়ে একাডেমিক ভবনের সামনে হাজির হতে থাকে। বিশ্ববিদ্যালয়ের এ গৌরবের দিনের সাক্ষী হতে অনুষ্ঠানে যোগ দেন সাবেক শিক্ষার্থীরাও। দিনটি বরণ করতে বিশ্ববিদ্যালয় সাজে এক রঙিন সাজে। সর্বত্রই চোখে পড়ে লাল-নীল মরিচ বাতির ঝলক। বিভিন্ন স্থানে টাঙানো হয়েছে দৃষ্টিনন্দন ব্যানার ও ফেস্টুন।

আগামীকাল সন্ধ্যায় আলোচনা সভা, পুরস্কার বিতরণী ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. কামাল উদ্দিন আহাম্মদের সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এমপি।

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow