Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ১৯ নভেম্বর, ২০১৮ ১৮:০২ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ১৯ নভেম্বর, ২০১৮ ১৮:০৬
হাবিপ্রবি’র আন্দোলনরত শিক্ষকদের সঙ্গে প্রগতিশীল শিক্ষক ফোরামের একাত্মতা
দিনাজপুর প্রতিনিধি
হাবিপ্রবি’র আন্দোলনরত শিক্ষকদের সঙ্গে প্রগতিশীল শিক্ষক ফোরামের একাত্মতা

বেতন বৈষম্যের সমাধান এবং লাঞ্ছনাকারীদের বিচার দাবিতে দিনাজপুরের হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (হাবিপ্রবি) প্রতীকী অনশন কর্মসূচি পালন করেছেন পদন্নোতি প্রাপ্ত শিক্ষকরা। সোমবার সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত আন্দোলনরত শিক্ষকরা ক্লাশ-পরীক্ষা বর্জন করে মাথায় সাদা কাফনের কাপড় বেঁধে ৫৭ জন শিক্ষক দাবি মেনে নেয়ার জন্য প্রতীকী অনশন পালন করেন। 

এদিকে, আন্দোলনকারী শিক্ষকদের দাবির সঙ্গে সংহতি প্রকাশ করে হাবিপ্রবি’র সিএসই অনুষদের শিক্ষক-শিক্ষার্থীবৃন্দ মানববন্ধন পালন করেছেন। অপরদিকে যৌন নির্যাতক রমজান আলীর স্থায়ী বহিষ্কারের দাবিতে অবস্থান কর্মসূচি পালন করা শিক্ষকদের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করেছেন প্রগতিশীল শিক্ষক ফোরাম।  

সোমবার এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে হাবিপ্রবি’র প্রগতিশীল শিক্ষক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ড. বলরাম রায় জানান, গত ১৪ নভেম্বর বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের সদ্য পদোন্নতিপ্রাপ্ত ৫৭ জন শিক্ষকের বেতন বৈষম্য নিরসনের আলোচনা সভায় প্রশাসনের প্রত্যক্ষ মদদে কতিপয় উশৃঙ্খল ব্যক্তি কর্তৃক শিক্ষকদের ওপর হামলা ও লাঞ্ছনার ঘটনা ঘটে। উদ্ভুত পরিস্থিতিতে লাঞ্ছিত শিক্ষকবৃন্দ লাগাতার ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে। গত বৃহস্পতিবার তারা প্রশাসন ভবনের সামনে মুখে কালো কাপড় বেধে দিয়ে প্রতিবাদ জানায়। তারা বেতন বৈষম্য নিরসন, প্রক্টর, রেজিষ্ট্রার এবং স্টুডেন্ট এডভাইজারের পদত্যাগ দাবি করে। হামলায় জড়িতদের শাস্তির দাবি করে। রোববারও উক্ত শিক্ষকবৃন্দ ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে মাথায় কাফনের কাপড় বেধে প্রতিবাদ করে। বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের ওপর এমন বর্বোরচিত হামলা ও লাঞ্ছনার ঘটনা সত্যিই দু:খজনক।
 
বিশ্ববিদ্যালয়ের আওয়ামী মুল্যবোধ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী শিক্ষকদের সংগঠন প্রগতিশীল শিক্ষক ফোরাম এর তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানায়। সাথে সাথে প্রগতিশীল শিক্ষক ফোরামের সকল শিক্ষকবৃন্দ লাঞ্ছিত শিক্ষকদের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করছে। তাদের দাবি আদায়ে প্রগতিশীল শিক্ষক ফোরামও একমত এবং সাথে সাথে নিন্মোক্ত কর্মসূচি গ্রহণ করছে। এক, আগামীকাল থেকে সকল ক্লাস বর্জন। দুই, যদি আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তাদের উল্লেখিত দাবিসমূহ মেনে নেয়া না হয়, তবে পরবর্তী দিন থেকে প্রগতিশীল শিক্ষক ফোরামের সকল শিক্ষকবৃন্দ ক্লাস ও যে কোনো ধরনের পরীক্ষা গ্রহণ থেকে বিরত থাকবে। 

বিডি-প্রতিদিন/বাজিত হোসেন

আপনার মন্তব্য

up-arrow