Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ১১ জানুয়ারি, ২০১৯ ২১:১০ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ১১ জানুয়ারি, ২০১৯ ২১:৪১
সৈয়দ আশরাফ অমর ছিলেন, থাকবেন : ইনু
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
সৈয়দ আশরাফ অমর ছিলেন, থাকবেন : ইনু
ফাইল ছবি

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের স্মরণে শুক্রবার বিকেলে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে এক স্মরণানুষ্ঠানের আয়োজন করে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট। 

জোটের সভাপতি বিশিষ্ট সাংস্কুতিক ব্যক্তিত্ব গোলাম কুদ্দুসের সভাপতিত্বে এতে বক্তব্য রাখেন  নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চেীধুরী, সাবেক তথ্যমন্ত্রী ও জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু, সাবেক সংস্কৃতি মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নুরসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের নের্তৃবৃন্দ।

স্মারণানুষ্ঠানে হাসানুল হক ইনু বলেন, সৈয়দ আশরাফ ছিলেন একজন সাহসী যোদ্ধা। স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলন থেকে শুরু করে বিএনপি-জামাত শাসনামল, এক-এগারো, ২০১৩ সালের সংকটকালীন সময়ে তিনি তার আদর্শ থেকে বিন্দুমাত্র সরে যাননি, নীতিভ্রষ্ট্র হননি। সে সময়ও তিনি সাহসের সাথে গণতন্ত্রের জন্য লড়াই করেছেন। তিনি ক্ষমতা বা টাকার পেছনে ছোটেননি। সৈয়দ আশরাফ একজন ব্যতিক্রমী গুণী মানুষ ছিলেন। তিনি এমন সময় আমাদের ছেড়ে চলে গেলেন যখন আমরা স্বাধীনতা বিরোধীদের বিরুদ্ধে জয়ী হয়েছি। তিনি অমর ছিলেন, থাকবেন।   

সৈয়দ আশরাফের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে আসাদুজ্জামান নুর বলেন, বাংলাদেশের রাজনীতিতে উজ্জল নক্ষত্র ছিলেন তিনি। মাটিতে অবস্থান করেও নিজেকে আকাশের উচ্চতায় নিয়ে গিয়েছিলেন। তার মত আদর্শবান, রুচিশীল ও নির্মোহ রাজনীতিবিদ সাম্প্রতিককালে পাওয়া খুব দুরুহ। আন্দোলন-সংগ্রাম ও সরকার পরিচালনা করতে গিয়ে তাকে চিনেছি এবং জেনেছি। এটুকু বলতে পারি, তার মত মানুষকেই মানুষ নেতা হিসেবে চায়।

প্রয়াত এই নেতার বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করে খালিদ মাহমুদ চেীধুরী বলেন, আমরা তার রাজনৈতিক জীবন দেখেছি এবং তাকে বুঝতে চেষ্টা করেছি। তার জানাজা নামাযে মানুষের স্বতঃফুর্ত উপস্থিতি প্রমাণ করে তিনি কোন মাপের মানুষ ছিলেন। সোনার বাংলার যে স্বপ্ন নিয়ে তিনি যুদ্ধে গিয়েছিলেন, তা বাস্তবায়নে শেখ হাসিনার সাথে কাজ করে আজকের সৈয়দ আশরাফ হয়েছিলেন। তিনি সবাইকে নিয়ে রাজনীতি করতে চেয়েছিলেন।
 
সভাপতির বক্তব্যে গোলাম কুদ্দুস বলেন, তিনি আপাতদৃষ্টিতে শান্ত , ধীরস্থির বা বড় গড়নের কোন মানুষ ছিলেন না। কিন্তু প্রয়োজনে তিনি কতটা শক্ত হতে পারেন, তার প্রমাণ তিনি তার রাজনেতিক জীবনে দিয়েছেন। নের্তৃত্বের প্রতি শ্রদ্ধা, নির্ভিকতা আর প্রজ্ঞা তাকে অনন্য মানুষের অবস্থানে নিয়ে গিয়েছিল ।  

স্মারণানুষ্ঠানে জোটের সাধারণ সম্পাদক আবৃত্তিশিল্পী হাসান আরিফের সঞ্চালনায় আরও উপস্থিত ছিলেন ছাত্রলীগ সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন, ঢাবি ছাত্রলীগ সভাপতি সনজিত চন্দ্র দাস, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ফকির আলমগীর প্রমুখ। অনুষ্ঠানে সঙ্গীত ও কবিতা পাঠের মাধমে প্রিয় নেতার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন সংস্কৃতিকর্মীরা। এছাড়াও তার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে শোকলিপি পাঠ করেন দেশের বিশিষ্ট আবৃত্তিশিল্পীবৃন্দ।  


বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ তাফসীর

আপনার মন্তব্য

up-arrow