Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ২৩ জানুয়ারি, ২০১৯ ১৩:১৮ অনলাইন ভার্সন
ববি শিক্ষার্থীদের পরিবেশনায় যাত্রাপালা ‘দাতা হাতেম তায়ী’
রাহাত খান, বরিশাল:
ববি শিক্ষার্থীদের পরিবেশনায় যাত্রাপালা ‘দাতা হাতেম তায়ী’

বরিশালে অনুষ্ঠিত হয়ে গেলো যাত্রাপালা ‘দাতা হাতেম তায়ী’। যাত্রাপালার আদি ঐহিত্য ফিরিয়ে আনতে গত মঙ্গলবার রাতে বরিশাল নগরীর প্রাণ কেন্দ্র সদর রোডের অশ্বিনী কুমার হলে এই যাত্রাপালা মঞ্চস্থ হয়। যারা কখনও যাত্রা করেননি, এমনকি দেখেনওনি বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের এমন একঝাঁক তরুণ নাট্যশিল্পির মনোমুগ্ধকর পরিবেশনায় যাত্রাপালা ‘দাতা হাতেম তায়ী’ দেখতে কানায় কানায় পরিপূর্ণ ছিল অশ্বিনী কুমার হল।

মিলন কান্তি দে’র রচনা ও অনিমেশ সাহা লিটুর নির্দেশনায় পরিবেশিত যাত্রাপালার ইতিবাচক প্রসংশা করেছেন সবাই। লোকজ সাংস্কৃতিকে পূর্বের ধারায় ফিরিয়ে নেওয়ার মাধ্যমে তরুণ সমাজকে বিপথগামী হওয়া থেকে রক্ষা করবে বলে প্রত্যাশা সাংস্কৃতিক সংগঠকদের। এদিকে সুস্থ ধারার যাত্রাপালাসহ যে কোন সাংস্কৃতিক আয়োজনে সার্বিক সহায়তার কথা বলেছেন বরিশালের জেলা প্রশাসক।

যাত্রাপালার নির্দেশক অনিমেষ সাহা লিটু বলেন, ইয়েমেনের বাদশা পুত্র শাহাজাদা হাতেম তায়ী ক্ষুধার্ত-নিরন্ন মানুষের মুখে হাসি ফুটিয়ে তুলতে ছুটে বেড়িয়েছেন পৃথিবীর নানাপ্রান্ত। নিজে না খেয়ে অপরকে খাইয়েছেন, নিজের সুখ-সম্পদ অকাতরে ঢেলে দিয়েছেন আর্ত মানবতার। ত্যাগ করেছেন নিজের পরিবার এবং বিশাল রাজ্যভার। এ কারনে জগত জোড়া দানবীর খ্যাতি পান তিনি।

এদিকে জোর করে অপাত্রে অর্থদান সহ বিদেশীদের বেশী মূল্যের উপহার প্রদান করে হাতেম তায়ীর সঙ্গে খ্যাতি অর্জনের অসম প্রতিযোগীতায় লিপ্ত হয় বাদশা নওফেল। শক্তির অহমিকায় সে ছড়িয়ে দিয়েছিলো ষড়যন্ত্রের জাল। ইয়েমেনের এক মুসাফির বাদশা নওফেলের দান প্রত্যাখ্যান করলে তাকে নির্যাতন করে বন্দি করে রাখেন বাদশা নওফেল।

নওফেলের একান্ত ঘনিষ্টজন মকবুল তুর্কি মেয়ের সম্ভ্রম হানী করার চেষ্টা করে। হাতেম তায়ী তাদের রক্ষা করেন নিজের পরিচয় লুকিয়ে জীবন বাজি রেখে। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে বাদশা নওফেল হাতেমের মাথার মূল্য ঘোষণা করে বিশ সহস্র দিহরাম। তখন হাতেমের সাথে জঙ্গলে পরিচয় হয় এক দরিদ্র কাঠুরিয়া পরিবারের, যারা অর্থের জন্য হাতেমকে খুঁজতে জঙ্গলে জঙ্গলে ঘুরছিলেন। তাদের অভাব ঘোচাতে, যাতে পুরস্কারের অর্থ কাঠুরিয়া পায় সেজন্য নিজের জীবন তুচ্ছ করে নওফেলের কাছে ধরা দিয়েছিলেন হাতেম তায়ী। হাতেম তায়ীর এই মহানুভবতায় নওফেল তার ভুল বুঝতে পেরে হাতেমকে জড়িয়ে ধরে ক্ষমা চান। হাতেমের জয়ধ্বনিতে মুখর হয়ে ওঠে প্রসাদ-মাঠ-প্রান্তর-নদী-আকাশ-বাতাস। এই পরিবেশনার মধ্য দিয়ে অহমিকা আর মহানুভবতার চিত্র ফুটিয়ে তোলার চেস্টা করা হয়েছে বলে জানান অনিমেষ সাহা লিটু।

যারা কখনও যাত্রায় অভিনয় করেননি, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের এমন একদল তরুণ শিক্ষার্থীর পরিবেশনায় যাত্রাপালা ‘দাতা হাতেম তায়ী’ দেখে মুগ্ধ দর্শনার্থীরা। প্রচলিত যাত্রাপালা নিয়ে নানা নেতিবাচক মনোভাব থাকলেও বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের পরিবেশিত যাত্রায় কোন অশ্লীলতা না থাকায় ভূয়সী প্রসংশা করেছেন সবাই।

মানুষ যে সুস্থ ধারার সাংস্কৃতি পছন্দ করে ‘দাতা হাতেম তায়ী’ পরিবেশনায় বিপুল সংখ্যক দর্শনার্থীর উপস্থিতিই তার প্রমাণ বলে মন্তব্য করেছেন বলছেন বরিশালের সাংস্কৃতিক সংগঠক এসএম ইকবাল। এই ধরনের অনুষ্ঠান বেশী বেশী পরিবেশনার মাধ্যমে তরুন সমাজ মাদক ও সন্ত্রাস থেকে দূরে থাকবে প্রত্যাশা তার।

নাট্য ব্যক্তিত্ব সৈয়দ দুলাল বলেন, লোকজ সংস্কৃতিক সব চেয়ে বড় উপদান যাত্রাপালা। ৮০ দশকের পর এই যাত্রাপালা নানা ঢংয়ে বিবর্ণ করা হয়েছে। সরকারি উদ্যোগে আদি যাত্রাপালা পরিবেশনের মাধ্যমে আবারও সুস্থ ধারার সাংস্কৃতির ঐহিত্য ফিরে আসবে বলে মনে করেন তিনি।

সুস্থ ধারার সাংস্কৃতিক চর্চায় সকলকে উৎসাহিত করতেই এই যাত্রাপলার আয়োজন করার কথা জানিয়েছেন আয়োজক জেলা শিল্পকলা একাডেমির কর্মকর্তা মো. হাসানুর রশীদ মাকসুদ। তবে বরাদ্দ অপ্রতুলতার কারনে পরিপূর্ণ সাংস্কৃতিক চর্চা ব্যহত হওয়ার কথা জানিয়েছেন তিনি।

এদিকে সুস্থ ধারার সাংস্কৃতিক আয়োজন সর্বত্র ছড়িয়ে দিতে সব সময় সার্বিক সহায়তা অব্যাহত রাখার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন বরিশালের জেলা প্রশাসক এসএম অজিয়র রহমান।  

জেলা প্রশাসনের সার্বিক তত্ত্বাবধায়নে ‘দাতা হাতেম তায়ী’ যাত্রাপালার আয়োজন করে শিল্পকলা একাডেমি।

বিডি প্রতিদিন/হিমেল

আপনার মন্তব্য

up-arrow