Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : সোমবার, ১১ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১১ জুলাই, ২০১৬ ০০:৩৭
ঈদ-পরবর্তী করপোরেট পার্টি
ক্যারিয়ার ডেস্ক
ঈদ-পরবর্তী করপোরেট পার্টি

বর্তমান প্রেক্ষাপটে অনেক করপোরেট অফিসই ঈদ-পরবর্তী গেট টুগেদার বা পার্টির আয়োজন করে থাকে। এ ছাড়া সামাজিক ও বন্ধুচক্রেও অনুষ্ঠিত হয় বিভিন্ন গেট টুগেদার। এসব অনুষ্ঠানে আদান-প্রদান হয় বিভিন্ন কমপ্লিমেন্ট বা প্রশংসা। এসব পেতে কার না ভালো লাগে? তবে সেটা গ্রহণেরও রীতি আছে। এসব নিয়ে প্রতিবেদন—

 ♦ যখনই কেউ প্রশংসা করবেন বা কমপ্লিমেন্ট দেবেন, তখনই তাকে উপহার দিন স্মিত হাসি, সঙ্গে বলুন ‘ধন্যবাদ’। অনেকে প্রশংসাকে স্তবকতা বলে ভুল করেন। সন্দেহের চোখে দেখেন যে কোনো প্রশংসাবাক্যকে। এটা সিনিকদের স্বভাব। তারা মনে করেন,  কথাচ্ছলে তাকে ভোলানো হচ্ছে নিশ্চয়ই কোনো কার্যসিদ্ধির জন্য। মনে রাখবেন, মুক্তকণ্ঠে অন্যের প্রশংসা করতে খোলা মনের দরকার হয়। যিনি সেটা করতে পারেন, তাকে অ্যাপ্রিশিয়েট করার জন্যই আপনাকে তার অ্যাপ্রিসিয়েশনটি খোলা মনে গ্রহণ করতে হবে।

 ♦ কোনো পার্টির আপনিই হয়তো হোস্ট, কোনো অভ্যাগত আপনার আয়োজনের প্রশংসা করছেন, তাকে উল্টো ‘না, না, আপনার পার্টি আরও ভালো হয়েছিল’— এ রকম না বলে বলতে পারেন  আপনার ভালো লেগেছে, শুনে খুশি হলাম।

 ♦ পার্টিতে কেউ যদি একেবারে একান্ত মধুর প্রশংসাবাক্য শোনান, তার অভিসন্ধি সম্পর্কে সতর্ক থাকুন। বিষয়টি আপনার নজরে রাখুন।

 ♦ এমন কেউ যদি কমপ্লিমেন্ট দেন, যাকে আপনি অপছন্দ করেন, তবুও মৃদু হেসে আন্তরিকভাবেই সে কমপ্লিমেন্ট গ্রহণ করতে হবে।

কী করবেন না : কেউ প্রশংসা করলে বা কমপ্লিমেন্ট দিলে সঙ্গে সঙ্গে ‘না, না এরকম বলবেন না, বা যা, এসব বাজে কথা একদম বলো না’ গোছের কিছু বলবেন না। এটা অস্বস্তিকর পরিস্থিতি তৈরি করবে।

♦ প্রশংসাকারীর মধ্যে যদি প্রশংসা করার মতো কোনো গুণ থাকে, সেটা তার প্রশংসার সঙ্গে সঙ্গে বলে উঠবেন না। সেটা শুনতে খুবই অস্বস্তিকর। কিছুটা সময় নিন।

 ♦ কমপ্লিমেন্ট পেয়ে লজ্জায় কুঁকড়ে যাবেন না বা অপ্রতিভ হয়ে আমতা আমতা করবেন না। সেটা মোটেই স্মার্টনেসের পরিচায়ক হবে না।  

 ♦ অনেকে প্রশংসা পাওয়ামাত্র দ্বিগুণ উৎসাহে নিজের আরও নানা গুণপনার কথা জাহির করতে থাকেন। ভাবটা এমন যে, এ আর কতটুকুই বা! তিনি আরও বেশি বাহবার হকদার। এমন হাস্যকর কাণ্ড করে সবার চোখে হাস্যকর হবেন না। মনে রাখবেন, সবার আগে ব্যক্তিত্ব।

 ♦ কেউ হয়তো পোশাক, গহনা কি হেয়ারকাটের প্রশংসা করল, সেই সঙ্গে চারপাশের সবাই তাকে সমর্থন করতে লাগল, তখন সেই সম্মিলিত বাহবার মধ্যে অস্বস্তি কাটাতে সে জায়গা ছেড়ে চলে যেমন যাবেন না। আবার চুপচাপ সেখানে দাঁড়িয়েও থাকবেন না। সুকৌশলে অথচ সন্তর্পণে আলোচনার মোড় ঘুরিয়ে দিন।

 ♦ কেউ কমপ্লিমেন্ট দিলে সবাই খুশি হয়। সে খুশি যদি মুখে ফুটে ওঠে, সেটা অস্বাভাবিক নয়। সেটা ঢাকবার চেষ্টা করাটাই বরং অস্বাভাবিক।   আিপনাকে যিনি কমপ্লিমেন্ট দিলেন, তাকে নিয়েই ব্যস্ত হয়ে পড়বেন না। সবাইকে ছেড়ে তার সঙ্গেই সময় কাটাচ্ছেন কিংবা সবার চেয়ে তাকেই বেশি যত্ন করছেন এটা কিন্তু

করবেন না। সবার সামনে খুব দৃষ্টিকটু হয়ে দাঁড়ায়। মনে রাখবেন করপোরেট পার্টি বা গেট টুগেদারে নিজের ব্যক্তিত্ব বা ইমেজকে ফুটিয়ে তুলতে হবে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow