Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শনিবার, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:১১
ঈদের ছুটি কাটিয়ে কাজে ফেরা
শামছুল হক রাসেল
ঈদের ছুটি কাটিয়ে কাজে ফেরা

বেশ কয়েকদিন ঈদের ছুটি কাটিয়ে কাজে যোগ দিলেন  মোশাররফ সাহেব। দেশের নামকরা একটি করপোরেট হাউসে ব্যবস্থাপকের দায়িত্বে রয়েছেন তিনি।

এই ক’দিন কর্মব্যস্ততা থেকে দূরে ছিলেন তিনি। সময় দিয়েছেন পরিবার ও বন্ধুবান্ধবকে। অফিস থেকে এতদিন বিচ্ছিন্ন থাকার পর এই কম্পিটিটিভ ওয়ার্ল্ডে মানিয়ে নিতে কিছুটা সমস্যা হচ্ছে তার। প্রায়ই তার মনে হচ্ছে ছুটির আগে যে রকম চটপটে ছিলেন, ছুটি কাটিয়ে আসার পর ঠিক ততটা ঝিমিয়ে পড়েছেন। সহকর্মীরা কীভাবে তার পরিবর্তন মেনে নেবেন? কাজে ফিরে এসে হঠাৎ করেই মোশাররফ সাহেব বুঝতে পারেন, আগের আত্মবিশ্বাস কিছুটা হলেও কমে গেছে। তার মতো অনেকেই কখনো পারিবারিক কিংবা নিজের শারীরিক কারণে বেশ কিছু দিনের জন্য ব্রেক নিয়ে আবার কাজে ফেরেন। কিন্তু আগের এনার্জি, সেলফ কনফিডেন্স কতটা ফিরে পাবেন তা নিয়েও তাদের মনে একটা অজানা ভয় থেকেই যায়। কর্মক্ষেত্রে নতুন করে ফিরে আসাকে কীভাবে টেনশন ফ্রি করে তুলবেন, তা নিয়ে রইল কিছু পরামর্শ —

কী করবেন : যে কোনো কাজ করতে গেলেই একটি নির্দিষ্ট মাত্রায় কম্পিউটার নলেজ এবং কমিউনিকেশন স্কিল প্রয়োজন। সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে প্রযুক্তিও এগিয়ে চলেছে। তাই নিজের কম্পিউটার ও টেকনিক্যাল দক্ষতা যাচাই করে নিন। কারণ লং ব্রেকের সময় নতুন কোনো ফরমেট বা সফটওয়্যার এসেছে কিনা তা আপনার জানা নেই। আপনার অফিসে নতুন কোনো ফরম্যাট বা সফটওয়্যার ইনস্টল হলে ভালোভাবে তা খতিয়ে দেখুন।   যদি কোনো ঘাটতি থাকে, তাহলে ছোটখাটো একটি প্রফেশনাল কোর্সে এনরোল করে ফেলুন। যেহেতু আপনি কাজের ব্যাপারে উৎসাহী, শিখে নিতে বেশি সময় লাগবে না। যাদের আগে থেকেই মোটামুটি এ বিষয়ে জ্ঞান রয়েছে তারাও নিজেকে আপডেট করে নিতে ভুলবেন না।  ♦ কোনো বিশেষ কর্মক্ষেত্র যেমন ল অথবা মার্কেটিংয়ের সঙ্গে যুক্ত থাকলে কর্মক্ষেত্রে ফেরার আগে অবশ্যই এসব ক্ষেত্রে রিসেন্ট আপডেট সম্পর্কে সচেতন থাকুন। কারণ আপডেট জানা না থাকলে প্রতিদ্বন্দ্বী বা প্রতিযোগিতায় পিছিয়ে পড়বেন। ♦ নিজের কাজকে সিরিয়াসলি নিন। ছোটখাটো ব্যাপারে হীনমন্যতায় ভুগবেন না। আপনার সহকর্মী বয়সে ছোট হলেও তাদের কাছ থেকে যতটা সম্ভব ভালো করে কাজ বুঝে নিন। প্রয়োজনে একটু বেশি সময় দিন। আপনার সিনসিয়ারিটি সবার ভালো লাগবে। আপনিও পরিশ্রমী ওয়ার্কার হিসেবে মর্যাদা পাবেন।  ♦ যে সময়টুকু আপনি কর্মক্ষেত্রের বাইরে ছিলেন, সেই সময়ে আপনি নিজের অজান্তেই অনেক কিছু শিখে ফেলেছেন। মাল্টিট্যাস্কিং, টাইম ম্যানেজমেন্ট, একাধিক টেনশন হ্যান্ডেল করা— এসব। এ ছাড়া বাড়ির কাজের ক্ষেত্রেও নানা ধরনের দক্ষতা দরকার। পদে পদে মানিয়ে নিতে হয় এবং সবদিক ব্যালেন্স করে চলতে হয়। প্রফেশনাল স্কিল না হলেও এগুলো মোটেই ফেলে দেওয়ার মতো নয়। অফিসের কাজেও খুঁটিনাটি বিষয়গুলো প্রয়োজন হবে। আত্মবিশ্বাস হারাবেন না।  ♦ কাজে ফেরার আগে পরিবারের সদস্যদের কাছ থেকে সাহায্য চান। নিজের অসুবিধা, দ্বিধাদ্বন্দ্বগুলো নিয়ে আলোচনা করুন।   কর্মরত সহকর্মী বন্ধু থাকলে তার সঙ্গেও আলোচনা করতে পারেন। এভাবে মনের ভয় অনেকটা কেটে যাবে।

সবচেয়ে বড় কথা আত্মবিশ্বাস ও মনের জোরটাই বড় জিনিস। এ দুটো জিনিস থাকলে সব বাধাকেই অতিক্রম করতে পারবেন।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow