Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি, ২০১৮ ১৮:১৯
আপডেট : ২৬ জানুয়ারি, ২০১৮ ১৯:৩৬

শীত মৌসুমেও সবজির দাম চড়া

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

শীত মৌসুমেও সবজির দাম চড়া

বছরের সাধারণ সময়ে নানা কারণে সবজির দামে উত্তাপ থাকে। কিন্তু শীত মৌসুমে বিভিন্ন রকমের সবজি উৎপাদন হয়, সরবরাহও থাকে পর্যাপ্ত। এর পরও এবারের শীত মৌসুমে চট্টগ্রামের কাঁচা বাজারগুলোতে সবজির দাম অতীতের চেয়ে তুলনামূলক চড়া। ফলে শুস্ক মৌসুমে কম মূল্যে সবজি পাওয়ার যে আকাঙ্খা থাকে ক্রেতাদের, তা অনেকটা ব্যহ্যত হয়েছে।

শুক্রবার চট্টগ্রামের প্রধান কয়েকটি কাঁচা বাজার থেকে এ তথ্য জানা যায়।
তবে বিক্রেতারা বলছেন, সবজির বাজার বর্তমানে যে অবস্থায় আছে এর চেয়ে আর কমবে বলে মনে হয় না। কারণ বর্তমানে শীত মৌসুম প্রায় শেষ পর্যায়ে। বরং সামনে গরম পড়া আরম্ভ হলে তখন ক্রমেই সবজির দাম বৃদ্ধি পাবে।      
জানা যায়, নিকট অতীতেও শীত মৌসুমে প্রতি কেজি আলু বিক্রি হতো ৮ থেকে ১০ টাকা, সর্বোচ্চ ১৫ টাকা। কিন্তু বর্তমানে প্রতিকেজি নতুন আলু বিক্রি হচ্ছে ২৫ টাকায়। তাছাড়া প্রতিকেজি শিম বিক্রি হতো ১৫ থেকে ২০ টাকা, এখন বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৬০ টাকা। ২০ টাকার ফুল কপি বিক্রি হচ্ছে ৩০ থেকে ৪০ টাকা, ১৫ টাকার বাধা কপি বিক্রি হচ্ছে ২০ থেকে ৩০ টাকা, ১০ টাকার মুলা বিক্রি হচ্ছে ২০ থেকে ২৫ টাকা, ১০ টাকার টমেটো বিক্রি হচ্ছে ৩০ থেকে ৪০ টাকা, ২০ টাকার দেশি লাউ ৩০ থেকে ৪০ টাকা, ১০-১৫ টাকার মিষ্টি কুমড়া ৩০ টাকা। এ ছাড়া বাজারে শাকের দামও চড়া দেখা যায়। গত শীত মৌসুমেও প্রতি আটি পালং শাক বিক্রি হয়েছে ৫ থেকে ৭ টাকা, এবার বিক্রি হচ্ছে ১০ থেকে ১৫ টাকা। একইভাবে ১০ টাকার প্রতি আটি লাল শাক বিক্রি হচ্ছে ১৫ টাকা, প্রতি আটি কপি শাক ১০ টাকা, কধু শাক প্রতি আটির দাম ২০ থেকে ২৫ টাকা।
বক্সির হাট কাঁচা বাজার ক্রেতা জামাল উদ্দিন বলেন, ‘বাজারে সবজির সরবরাহ ভাল। কিন্তু দামও চড়া। এর কারণ হলো বর্তমানে সবজি উৎপাদন খরচ আগের তুলনায় কয়েকগুণ বাড়ছে। এর সঙ্গে আছে পরিবহন খরচ। ফলে অতীতে শীত মৌসুমে যে হারে কম মূল্যে মৌসুমী সবজি বিক্রি হতো এখন তা সম্ভব হচ্ছে না।’      

বিডি-প্রতিদিন/ সালাহ উদ্দীন


আপনার মন্তব্য