Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ১৮ জুলাই, ২০১৮ ১৯:২৯ অনলাইন ভার্সন
'চট্টগ্রাম সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্ক' নির্মাণে চুক্তি
নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম:
'চট্টগ্রাম সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্ক' নির্মাণে চুক্তি

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের (চসিক) সঙ্গে বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষের মধ্যে ‘চট্টগ্রাম সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্ক’ নির্মাণে সমঝোতা স্মারক চুক্তি (এমওইউ) স্বাক্ষর হয়েছে। আজ নগরের হোটেল রেডিসন ব্লুতে এ চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠিত হয়। চসিকের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় চসিকের পক্ষে প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সামসুদ্দোহা এবং বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষের পক্ষে ব্যবস্থাপনা পরিচালক হোসেনে আরা বেগম এমওইউতে স্বাক্ষর করেন। নগরের আগ্রাবাদে সিঙ্গাপুর-ব্যাংকক মার্কেটকে ১১ তলায় উন্নীত করার করে এ পার্ক তৈরি করা হবে।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) প্রকৌশলী একেএম ফজলুল্লাহ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. হানিফ সিদ্দিকী, বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক প্রকল্প পরিচালক আজিজুল ইসলাম প্রমুখ।

চসিক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ নির্মাণে নগরের আগ্রাবাদে সিঙ্গাপুর-ব্যাংকক মার্কেটে ‘চট্টগ্রাম সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্ক’  গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। এটি বাস্তবায়ন হলে ব্যাপক কর্মসংস্থানের সুযোগ হবে। বর্তমান ৫ তলা বিশিষ্ট সিঙ্গাপুর-ব্যাংকক মার্কেটকে ১১ তলায় উন্নীত করে সেখানে আইটি পার্ক নির্মাণ করা হবে। প্রায় এক লাখ বর্গফুটের এ আইটি পার্কে অত্যধুনিক তথ্য প্রযুক্তির পাশাপাশি থাকবে আধুনিক সুযোগ-সুবিধা।’

তিনি বলেন, এটি হবে চট্টগ্রামে সর্ব প্রথম এবং সর্বাধুনিক হাইটেক পার্ক। এই পার্কটি চসিককে আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী করে তুলতে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে। পাশাপাশি তথ্য প্রযুক্তি সংশ্লিষ্ট কর্মী বাহিনীর জন্য কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করবে।’

প্রকল্প সূত্রে জানা যায়, অত্যাধুনিক সুযোগ-সুবিধা সম্বলিত ছয় থেকে ১১ তলা পর্যন্ত নির্মিতব্য এ সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কটিতে প্রায় এক লাখ বর্গফুট স্পেস তৈরি হবে। পার্কটির নির্মাণ কাজ শেষ হবে ২০১৯ সালের নভেম্বরে। আইটি/আইটিইএস শিল্পের বিকাশ, দেশিয় শিল্প উদ্যোক্তাদের সক্ষমতা বৃদ্ধি, নতুন কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি ও আর্থ সামাজিক সমৃদ্ধি অর্জনের ক্ষেত্রে এ সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্ক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে জানা যায়।

বিডি প্রতিদিন/মজুমদার

আপনার মন্তব্য

up-arrow