Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ১৬:৩৪

পারকি সমুদ্র সৈকতের ‘গলার কাঁটা’ সেই জাহাজ

রেজা মুজাম্মেল, চট্টগ্রাম:

পারকি সমুদ্র সৈকতের ‘গলার কাঁটা’ সেই জাহাজ

চট্টগ্রামের আনোয়ারার পারকি সমুদ্র সৈকত সংরক্ষিত পর্যটন কেন্দ্র। কিন্তু এই সংরক্ষিত পর্যটন কেন্দ্রে আটকে যাওয়া জাহাজ এখন সৈকতের গলার কাঁটা হয়ে আছে। এটি যেমন স্থানান্তর করা যাচ্ছে না, আবার পরিবেশের ক্ষতির শঙ্কায় কাটাও যাচ্ছে না। এমন অবস্থায় জাহাজটি সমুদ্র সৈকতের জন্য গলার কাঁটা হয়ে আছে।    

তবে গত সোমবার চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন জাহাজটি নিয়ে পরিবেশ সম্মত উদ্যোগ গ্রহণ করতে ‘পারকি সমুদ্র সৈকতে এমভি ক্রিস্টাল গোল্ড জাহাজ বিভাজন’ শীর্ষক একটি চিঠি দেয় পরিবেশ অধিদপ্তর চট্টগ্রাম অঞ্চলকে।    

চট্টগ্রামের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) দেলোয়ার হোসেন বলেন, সমুদ্র সৈকতে জাহাজটি বিভাজনে বাংলাদেশ জাহাজ পুনঃপ্রক্রিয়াজাতকরণ আইন ২০১৮ ও সংশ্লিষ্ট অন্যান্য আইন অনুযায়ী দায়ীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বলা হয়েছে। এ ব্যাপারে আইনগত প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেবে পরিবেশ অধিদপ্তর।’

পরিবেশ অধিদপ্তর চট্টগ্রাম অঞ্চলের পরিচালক মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, ‘আমরা লিখিতভাবে ওই প্রতিষ্ঠানকে বলে দিয়েছি, পরিবেশ সম্মতভাবে জাহাজটি বিভাজন করতে; অথবা পরিবেশ, বন্দর, শিল্প, পর্যটনসহ সংশ্লিষ্ট সংস্থাগুলো নিয়ে পরিবেশসম্মত পন্থায় বিভাজন করতে। তাদের লিখিত প্রস্তাবের প্রেক্ষিতে মন্ত্রণালয় থেকে অনুমোদনের ব্যবস্থা করা হবে।’

জানা যায়, ২০১৭ সালের ৩০ মে ঘূণির্ঝড় মোরার আঘাতে পারকি সমুদ্র সৈকতে আটকা পড়ে ‘এমভি ক্রিস্টাল গোল্ড’ জাহাজ। পরে এই জাহাজটি নিলামে ক্রয় করে ফোর স্টার এন্টারপ্রাইজ। ক্রয়ের পর ফোর স্টার এন্টারপ্রাইজ জাহাজটি ভাঙ্গার কাজ শুরু করে। কিন্তু পরিবেশ অধিদপ্তরের অনুমতি ছাড়াই পরিত্যক্ত জাহাজ কেটে পরিবেশের ক্ষতি করায় গত ৬ জানুয়ারি দুই কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ পরিশোধের নির্দেশ দেয় পরিবেশ অধিদপ্তর।  সৈকতের এক হাজার ৪৯১ শতাংশ এলাকার জীববৈচিত্র নষ্ট এবং সামুদ্রিক জীববৈচিত্র ধ্বংস করার অপরাধে এ ক্ষতিপূরণ নির্ধারণ করা হয়।   

জানা যায়, আটকে যাওয়ার পর জাহাজটির নাবিক ও কর্মচারিরা বেতন ভাতা পাওয়ার দাবিতে অ্যাডমিরালটি মোকাদ্দমা (২৮/২০১৭) দায়ের করেন।  আদালত জাহাজটি অন্যত্র সরিয়ে কেটে (বিভাজন) বেতন পরিশোধ করতে নির্দেশ দেন। তবে পরে ফোর স্টার কর্তৃপক্ষ এটি অন্যত্র সরানোর সম্ভব নয় বলে আদালতকে অবহিত করে।

বিডি প্রতিদিন/এ মজুমদার


আপনার মন্তব্য