Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ১৮:৫২

সিভাসুতে ১০০ প্রজাতির পোষা পাখি নিয়ে ব্যতিক্রমী মেলা

রেজা মুজাম্মেল, চট্টগ্রাম:

সিভাসুতে ১০০ প্রজাতির পোষা পাখি নিয়ে ব্যতিক্রমী মেলা

চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ের (সিভাসু) খেলার মাঠে আয়োজন করা হয়েছে ব্যাতিক্রমী ‘পোষা পাখি প্রাণী মেলা’। মেলায় প্রদর্শন করা হবে ১০০ এর বেশি প্রজাতির প্রায় দেড় হাজার পোষা পাখি।  ব্যতিক্রমী এই পোষা পাখির মেলা উদ্বোধন করবেন শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। আগামী ২৩ ফেব্রুয়ারি সকাল ৯টায় শুরু হয়ে চলবে বিকাল পর্যন্ত।   

সিভাসু সূত্রে জানা যায়, চতুর্থবারের মত আয়োজিত ব্যাতিক্রমী এ আন্তর্জাতিক পোষা পাখি মেলায় প্রদর্শন করা হবে ৫ লাখ টাকা মূল্যের ৫টি ম্যাকাও পাখি, ২টা কাকতুয়া, ১০ প্রজাতির ২০০টি কবুতর, ৬ প্রজাতির লক্ষাধিক টাকা মূল্যের ৩০টি কুকুর, ৪ প্রজাতির ৩০টি বিড়াল, ৪০টি টার্কি, ২০টি খরগোস, ৪০০টি অ্যাকুরিয়াম ফিস।    

এসোসিয়েশন অব এভিয়ান ভেটেরিনারিয়ান বাংলাদেশ উপদেষ্টা ও মেলা কমিটির সমন্বয়কারী ডা. মোহাম্মদ সাদ্দাম হোসেন বলেন, ‘পোষা পাখির এই মেলা আয়োজনে আমাদের একমাত্র উদ্দ্যেশ্য- সাধারণ মানুষ যেন পোষা পাখি সম্পর্কে অবগত হন, পাখি সম্পর্কে বুঝেন। তাছাড়া অনেকে সৌখিনভাবেও পাখি লালন পালন করে অর্থ উপার্জনে সক্ষম হচ্ছেন।’   

সিভাসুর উপ পরিচালক (জনসংযোগ ও প্রটোকল) খলিলুর রহমান বলেন, ‘মেলায় প্রদর্শন করা সবগুলো পোষা পাখি আন্তর্জাতিকভাবে প্রসিদ্ধ। তবে  পর্যায়ক্রমে এসব পোষা পাখি আমাদের দেশেও প্রজনন হচ্ছে। এগুলো প্রজনন করে অনেকেই পেশা হিসাবে নিয়ে আর্থসামাজিক উন্নয়নে অবদান রাখছে।’

জানা যায়, ১৯৯৫ সালের ২৮ নভেম্বর চট্টগ্রাম মহানগরের পাহাড়তলী এলাকায় প্রতিষ্ঠানটির যাত্রা। সিভাসু প্রতিনিয়তই পশু পাখি, পোষা পাখি ও প্রাণী নিয়ে মেলার আয়োজন করে থাকে। তাছাড়া এ হাসপাতালে দেওয়া হয় বিভিন্ন প্রাণীর সেবা। প্রাণি নিয়ে হচ্ছে সমৃদ্ধ গবেষণা। প্রতিবছরই এ প্রতিষ্ঠান থেকে বিদেশের বিভিন্ন ভেটেরিনারি বিশ্ববিদ্যালয়ে যাচ্ছেন ইন্টার্নি করতে। বের হচ্ছে নতুন নতুন উদ্ভাবন। উৎকর্ষতা আসছে প্রাণী শিক্ষা ও গবেষণায়। অনুশীলন হচ্ছে প্রাণীর আদ্যপান্ত নিয়ে। প্রাণী জগতে ক্রমশ যুক্ত হচ্ছে আধুনিকতর সেবা। এ বিদ্যাপীঠ থেকে উচ্চতর ডিগ্রি নিয়ে জ্ঞানের আলো ছড়াচ্ছেন শিক্ষার্থীরা। ছড়িয়ে পড়ছেন দেশ-বিদেশে। শিক্ষা নিয়ে ইতিবাচক বার্তা দিচ্ছে বহির্বিশ্বে। দেশের খ্যাতির দ্যুতি মেলে ধরছেন অন্য দেশে।   

বিডি প্রতিদিন/এ মজুমদার


আপনার মন্তব্য