Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ১৮ জানুয়ারি, ২০১৭

প্রকাশ : ২৮ জুন, ২০১৬ ১৭:০৫
আপডেট : ২৮ জুন, ২০১৬ ১৭:১৪
বরিশালে সমাবেশ ঘিরে ইসলামী শ্রমিক আন্দোলন-পুলিশ মুখোমুখি
নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল:
বরিশালে সমাবেশ ঘিরে ইসলামী শ্রমিক আন্দোলন-পুলিশ মুখোমুখি

হাইকোর্টের নির্দেশে বন্ধ হতে যাওয়া ব্যাটারিচালিত অটোরিক্সা মালিক-শ্রমিকদের স্বার্থ রক্ষাসহ নানা দাবিতে বরিশালে জনসমাবেশ ও গণমিছিলের ডাক দিয়েছে চরমোনাই পীর প্রতিষ্ঠিত ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের সহযোগি সংগঠন ইসলামী শ্রমিক আন্দোলন। আগামী ৩০ জুন দুপুর ২টায় নগরীর ফজলুল হক এভিনিউ সিটি করপোরেশনের সামনে আয়োজিত ওই সমাবেশে প্রধান অতিথি থাকবেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের সিনিয়র নায়েবে আমীর আলহাজ্ব মাওলানা মুফতি সৈয়দ মুহাম্মাদ ফয়জুল করিম। এ ছাড়া সংগঠনের কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নেতৃবৃন্দ ওই কর্মসূচিতে উপস্থিত থাকবেন বলে ইসলামী শ্রমিক আন্দোলন জেলা ও মহানগর কমিটি প্রকাশিত লিফলেটে উল্লেখ রয়েছে। এসব লিফলেট গত কয়েক দিনে ছাড়া হয়েছে বরিশালের সর্বত্র।

তবে ওই দিন নগরীতে ইসলামী শ্রমিক আন্দোলনের কোন জনসমাবেশ কিংবা গণমিছিলের অনুমতি দেয়ায় পক্ষে নয় বলে জানিয়েছে মেট্রোপলিটন পুলিশ।
বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-কমিশনার (দক্ষিন) গোলাম রউফ খান বলেন, হাইকোর্ট ব্যাটারিচালিত অটোরিক্সা বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন। এ অবস্থায় অটোরিক্সা মালিক-শ্রমিকদের স্বার্থ সংরক্ষণের দাবিতে কোন সমাবেশ হতে দেওয়া মানেই হাইকোর্টের রায়ের প্রতি অশ্রদ্ধা দেখানো। তাছাড়া ঈদের আগ মুহূর্তে নগরীর ব্যস্ততম ফজলুল হক এভিনিউতে তাদের সমাবেশ করতে দেওয়া হলে জনগনের দুর্ভোগ বাড়বে। বিকল্প হিসেবে ইসলামী শ্রমিক আন্দোলন বঙ্গবন্ধু উদ্যান কিংবা আউটার স্টেডিয়ামে জনসমাবশ করার প্রস্তাব দিয়েছে। কিন্তু মেট্রোপলিটন পুলিশ হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে কোনভাবেই সমাবেশ করার অনুমতি দেয়ার পক্ষে নয় বলে জানান উপ-কমিশনার রউফ।

এদিকে হাইকোর্টের নির্দেশনা উপেক্ষা করে আবারো এসব অটোরিক্সার লাইসেন্স নবায়নের উদ্যোগ নিয়েছে বরিশাল সিটি করপোরেশন। এ লক্ষ্যে বরিশাল সিটি করপোরেশন (বিসিসি) নিয়োজিত আইন উপদেষ্টা ব্যারিস্টার ওবায়দুর রহমান মোস্তফার কাছে চিঠি লিখে মতামত চাওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিসিসি'র প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রনজিত কুমার। তিনি বলেন, আইন উপদেষ্টার মতামত পাওয়ার পর লাইসেন্স নবায়নের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

২০১৫ সালের ২ আগস্ট একটি ইংরেজি জাতীয় দৈনিকে প্রকাশিত সংবাদের প্রেক্ষিতে হাইকোর্টের একটি দ্বৈত বেঞ্চ পরদিন ৩ আগস্ট স্বপ্রণোদিত হয়ে ভুয়া লাইসেন্স, অবৈধ যানবাহন এবং ব্যাটারিচালিত অটোরিক্সা (ইজিবাইক) বন্ধের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি রুল জারি করেন।

পরবর্তীতে উচ্চ আদালত ভুয়া লাইসেন্সে যানবাহন চালনা বন্ধ এবং সড়ক-মহাসড়কে অননুমোদিত ও ব্যাটারিচালিত ইজিবাইক চলাচল বন্ধের নির্দেশ দেন। কিন্তু ওই নির্দেশ দেওয়ার আগেই ২০১৫ সালের জুলাই মাসে বরিশাল সিটি করপোরেশন তাদের দেওয়া ২ হাজার ৬১০টি লাইসেন্স পরবর্তী এক বছরের জন্য নবায়ন করে। সেই হিসেবে আগামীকাল ৩০ জুন শেষ হচ্ছে সিটি করপোরেশনের দেওয়া ইজিবাইকের লাইসেন্সের মেয়াদ। মেয়াদ শেষে ইজিবাইকগুলো সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বন্ধ করে দিতে পারে বলে আশংকা করা হচ্ছে।

এ অবস্থায় ব্যাটারিচালিত অটোরিক্সা মালিক-শ্রমিকদের স্বার্থ রক্ষাসহ নানা দাবিতে আগামী ৩০ জুন বরিশালে জনসমাবেশ ও গনমিছিলের ডাক দিয়েছে ইসলামী শ্রমিক আন্দোলন। জনসমাবেশের প্রচারনা লিফলেটে প্রধান অতিথি উল্লেখ থাকা ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের সিনিয়র নায়েবে আমীর মুফতী সৈয়দ মুহাম্মাদ ফয়জুল করিম বলেন, তারা হাইকোর্টের রায়ের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। এ কারনে এই রায়ের বিরুদ্ধে সুপ্রীম কোর্টে আপীল করা পর্যন্ত সময় বাড়ানোর দাবিতে জনসমাবশ এবং গনমিছিলের আয়োজন করেছে ইসলামী শ্রমিক আন্দোলন। এটা কোনভাবেই হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে নয়। বিকল্প কোন ব্যবস্থা না করে হঠাৎ ব্যাটারিচালিত অটোরিক্সা বন্ধ করে দিলে হাজার হাজার মানুষ বেকার হয়ে পড়বে।

বিডি-প্রতিদিন/এস আহমেদ

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow