Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : ৯ অক্টোবর, ২০১৬ ২০:১৭
আশুলিয়ায় 'জঙ্গি' অভিযানের ঘটনায় ২ মামলা
নাজমুল হুদা, সাভার
আশুলিয়ায় 'জঙ্গি' অভিযানের ঘটনায় ২ মামলা
আশুলিয়ার সেই পাঁচতলা বাড়ি

ঢাকার অদূরে সাভারের আশুলিয়ায় জেএমবির অর্থদাতা আব্দুর রহমানের বাড়িতে অভিযানের ঘটনায় দু'টি মামলা দায়ের করেছে র‌্যাব-৪।

রবিবার সন্ধ্যায় আশুলিয়ার নবীনগর র‌্যাব ক্যাম্পের উপ-সহকারী পরিচালক (ডিএডি) হুমায়ুন আহম্মেদ বাদী হয়ে সন্ত্রাস দমন ও বিস্ফোরক আইনে এ মামলা দু'টি দায়ের করেন। তবে জেএমবির অর্থদাতা গুরুতর আহত হয়ে মারা যাওয়ায় তার স্ত্রী শাহনাজ আক্তার রুমাকে প্রধান আসামি করে মামলাটি দায়ের করা হয়। মামলায় আরও তিন চারজনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে।

জেএমবির অর্থদাতার স্ত্রী শাহনাজ আক্তার রুমা পীরগঞ্জ থানার ঠাকুরগাও জেলার চন্দ্রীপাড়া গ্রামের রহমান মিয়ার মেয়ে।

মামলা সূত্র জানায়, জেএমবিএর অর্থদাতা বিভিন্ন জঙ্গি সদস্যদের অর্থ সরবরাহ করে আসতেন। পরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শনিবার দুপুর সাড়ে তিনটার দিকে আশুলিয়ার ওই পাঁচতলা বাড়িতে অভিযান শুরু করে। এসময় র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে জেএমবির অর্থদাতা ওই ভবনের গ্রিল কেটে লাফিয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। তবে নিচে পড়ে গুরুতর আহত হয় জেএমবি সদস্য। তাকে উদ্ধার করে সাভার এনাম মেডিকেল কলেজ অ্যান্ড হাসপাতালে ভর্তি করলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ওই দিন রাত পৌনে ৯টার দিকে আব্দুর রহমানের মৃত্যু হয়। জেএমবির অর্থদাতার মৃত্যু হওয়ায় ও জঙ্গি কাজে সম্পৃক্ত থাকার দায়ে তার স্ত্রী শাহনাজ আক্তার রুমাকে প্রধান আসামি করে অস্ত্র ও বিস্ফোরক আইনে দু'টি মামলা দায়ের করে র‌্যাব।

আশুলিয়ার নবীনগর র‌্যাব-৪ ক্যাম্পের উপ-সহকারী পরিচালক হুমায়ুন আহম্মেদ জানায়, আটককৃত নারী শাহনাজ আক্তার রুমাও জেএমবির সাথে সম্পৃক্ত রয়েছে। এ কারণেই তাকে প্রধান আসামি করে দু'টি মামলা দায়েরর মাধ্যমে আশুলিয়া খানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। এছাড়াও নিহত জেএমবি সদস্য বিভিন্ন কখনো নাজমুল হক, এনামুর হক আবারও কখনো সরোয়ার জামান নামে বাসা ভাড়া নিয়ে বসবাস করতেন।

আশুলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মহসিনুল কাদির বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, র‌্যাব বাদী হয়ে সন্ত্রাস দমন ও বিস্ফোরক আইনে আশুলিয়া থানায় দু'টি মামলা দায়ের করেছে। এছাড়াও আটককৃত নারী ও তার তিন শিশু সন্তানও তার সাথে পুলিশ হেফাজতে রয়েছে বলে তিনি জানান।

এদিকে নিহত জেএমবির স্ত্রী শাহনাজ আক্তার রুমার সাথে আশুলিয়া থানায় কথা হলে তিনি জানান, আশুলিয়ার ভলিবদ্র এলাকা থেকে আটক জেএমবি সদস্য মিলন তার স্বামীর কাছ থেকে প্রায় টাকা নিয়ে আসতেন। এছাড়াও তাদের সাথে তার স্বামীর যোগাযোগ ছিল বলেও তিনি স্বীকার করেন।

বিডি-প্রতিদিন/০৯ অক্টোবর, ২০১৬/মাহবুব

 

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow