Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : ১৯ অক্টোবর, ২০১৬ ১৫:৪৬
নয়নাভিরাম ফয়'স লেক
অনলাইন ডেস্ক
নয়নাভিরাম ফয়'স লেক

চট্টগ্রাম শহরের কোলাহলের ভেতরেই মনোরম প্রাকৃতিক পরিবেশে ফয়’স লেকের অবস্থান। জীব বৈচিত্র্যে সমৃদ্ধে ফয়’স লেকে রয়েছে নানা রকম গাছ আর পাহাড়। এখানকার বিভিন্ন পাহাড়ের মধ্যে রয়েছে অরুণিমা, জলটুঙ্গি, গোধূলি, অস্তাচল, আকাশমণি, হিমঝুরি, আসমানি, গগণদ্বীপ, উদয়ন প্রভৃতি। এসব পাহাড়ে নানা প্রজাতির গাছগাছালির মধ্যে রয়েছে সেগুন, গর্জন, কড়াই, কৃষ্ণচূড়া, সোনালু, কদবেল, পাম, বাদাম ইত্যাদি।  

ফয়'স লেককে কেন্দ্র করে গড়ে উঠেছে চট্টগ্রামের অন্যতম বিনোদন কেন্দ্র। পরিবার, বন্ধু-বান্ধব নিয়ে অবসর সময়ে বেড়ানো, পিকনিক অথবা কর্পোরেট অনুষ্ঠানের জন্য এটি অন্যতম আর্কষণীয় স্থান। ৩৩৬ একর জমির উপর গড়ে ওঠা আর্কষণীয় এই বিনোদন কেন্দ্র দুটি ভাগে বিভক্ত অ্যামিউজমেন্ট পার্ক ও ওয়াটার পার্ক সি ওয়ার্ল্ড। অ্যামিউজমেন্ট পার্ক সাজানো হয়েছে অনেকগুলো রাইড নিয়ে, বাচ্চা ও বড়দের জন্য আছে ভিন্ন ভিন্ন রাইডস্। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে ফেরিস হুইল, বাম্পার কার, ফ্যামিলি রোলার কোস্টার, পাইরেট শিপ প্রভৃতি।  

বাচ্চাদের রাইডগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে বেবি কেরাওসাল, ট্রেন, দোলনা ইত্যাদি। ঝিক্ঝিক্ শব্দে চলা সার্কাস ট্রেন, বেবি কেরাওসালের নানা রঙ্গেও ঘোড়ায় চড়ে মজা পায় বাচ্চারা। এই কমপ্লেক্সের ভিতরেই রয়েছে সিঁড়ি বেয়ে পাহাড়ে ওঠার ব্যবস্থা। অনেকগুলো সিঁড়ি বেয়ে  উঠলে দেখা পাওয়া যাবে অনন্য সুন্দর এক পিকনিক স্পট যা ফটো কর্নার নামে পরিচিত। আরও খানিকটা এগোলে পাওয়া যাবে অবজারভেশন টাওয়ার আর এখান থেকে দূরবীণের সাহায্যে দেখা যাবে চট্টগ্রাম শহর। পিজন স্কয়ারে খাবার ছিটালে পার্কের কবুতরগুলো উড়ে এসে বসে দর্শনার্থীদের গায়ে।  

হ্রদের পাশেই নানারকম সামুদ্রিক প্রাণীর ভাস্কর্য দিয়ে সাজানো হযেছে অ্যাকোয়াটিক জোন যা পিকনিক স্পট হিসেবে জনপ্রিয়তা পেয়েছে। নৌ-ভ্রমণের জন্য রয়েছে সুব্যবস্থা। কেউ চাইলে প্যাডেল বোট, ইঞ্জিন বোট কিংবা স্পিড বোট নিয়ে ঘুরতে ঘুরতে দেখতে পাবে সংরক্ষিত সবুজ, বুনো খরগোশ আর হরিণের ছুটে চলা। সন্ধ্যার মৃদু আলোয় হ্রদের পাড় আড্ডায় মুখরিত হয়ে ওঠে। সেইসঙ্গে বাতাসে ভেসে বেড়ায় কাবাব, চটপটি, ফুসকাসহ নানারকম মুখরোচক খাবারের ঘ্রাণ। এছাড়া দেশী-বিদেশি বিভিন্ন মজাদার খাবার নিয়ে অত্যাধুনিক রেস্টুরেন্ট “লেক ভিউ” ও একাধিক ফুডকোর্টের ব্যবস্থা রয়েছে।  

শহর কিংবা দূর-দূরান্ত থেকে আগত দর্শনার্থীদের বিস্মিত করে তোলে ফয়’স লেকের দিন-রাত্রির নৈসর্গিক সৌন্দর্যমণ্ডিত প্রকৃতি।  আধুনিক সুযোগ-সুবিধা, নির্মল আনন্দ, পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থার জন্য পর্যটকদের অনিবার্য গন্তব্য হতে চলেছে এই ফয়’স লেক। দর্শনার্থীদের সুবিধার্থে পার্ক কর্তৃপক্ষ সাপ্তাহিক ছুটি ও সরকারি ছুটির দিনে সকাল ১০টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত এবং অন্যান্য দিনে সকাল ১০টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত পার্ক খোলা রাখে।  


বিডি-প্রতিদিন/ ১৯ অক্টোবর, ২০১৬/ জনি/ আফরোজ

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow