Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ২০ অক্টোবর, ২০১৭

ঢাকা, শুক্রবার, ২০ অক্টোবর, ২০১৭
প্রকাশ : ১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৪:৪৪ অনলাইন ভার্সন
আপডেট :
বরিশালে প্রথমবারের মতো বিশেষায়িত শিশু হাসপাতাল
নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল:
বরিশালে প্রথমবারের মতো বিশেষায়িত শিশু হাসপাতাল

বরিশালে প্রথমবারের মতো নির্মিত হচ্ছে বিশেষায়িত শিশু হাসপাতাল। রবিবার (১২ ফেব্রুয়ারি) বেলা ১২টার দিকে নগরীর আমানতগঞ্জ এলাকায় প্রায় এক একর জমির উপর ২শ’ শয্যাবিশিষ্ট ‘শহীদ সুকান্ত বাবু শিশু হাসপাতাল’ নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্থর উদ্বোধন করেন স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রনালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান সাবেক চিফ হুইপ ও জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ এমপি।

এ সময় দোয়া-মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়।

পরে সিভিল সার্জন কার্যালয়ের উদ্যোগে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন শেরে-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. এসএম সিরাজুল ইসলাম।

১৫ আগস্টে শহীদ সুকান্ত বাবুর বাবা প্রধান অতিথি হাসানাত আবদুল্লাহ এমপি ছাড়াও বক্তব্য রাখেন বিশেষ অতিথি তালুকদার মো. ইউনুস এমপি, জেবুন্নেছা আফরোজ এমপি, পঙ্কজ নাথ এমপি, শেখ টিপু সুলতান এমপি, বিভাগীয় কমিশনার মো. গাউস, ডিআইজি শেখ মোহাম্মদ মারুফ হাসান, পুলিশ কমিশনার এসএম রুহল আমীন, জেলা প্রশাসক ড. গাজী মো. সাইফুজ্জামান, সিভিল সার্জন ড. এএফএম শফিউদ্দিন সহ অন্যান্যরা। উপস্থিত ছিলেন শহীদ সুকান্ত বাবুর মা শাহানারা আবদুল্লাহসহ অন্যরা।

বরিশাল গণপূর্ত বিভাগ এই হাসপাতাল নির্মান বাস্তবায়ন করছে। ১৯ কোটি ৪৮ লাখ টাকা ব্যয়ে ১০তলা ভিত্তি দিয়ে ৪তলা বিশিষ্ট শিশু হাসপাতাল নির্মানে সময় ধরা হয়েছে দুই বছর। এরপর শুরু হবে শিশু হাসপাতালের সেবা কার্যক্রম। এই হাসপাতালে থাকছে জরুরি বিভাগ, রেডিওলজি, ডায়াগনস্টিক ও প্যাথলজি বিভাগ, অপারেশন ব্লক, ওষুধ সরবরাহ বিভাগ, থেরাপী বিভাগ, সাধারণ শিশু ওয়ার্ড, প্রশাসনিক ব্লক এবং কনফারেন্স রুম।

উল্লেখ, এর আগে বরিশালে কোন বিশেষায়িত শিশু হাসপাতাল ছিল না। এই হাসপাতাল নির্মিত হলে বরিশালের শিশু স্বাস্থ্য সেবার দ্বার উন্মোচিত হবে বলে মনে করছেন বরিশালবাসী।

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট তৎকালীন মন্ত্রী শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাতের সরকারি বাসায় অবস্থানকালে ঘাতকদের বুলেটে শহীদ হন হাসানাত আবদুল্লাহ ও শাহানারা আবদুল্লাহ দম্পত্তির বড় ছেলে সুকান্ত বাবু। ওইদিন মন্ত্রী রব সেরনিয়াবাত এবং তার নাতি সুকান্ত বাবুসহ ওই পরিবারের ৫ সদস্য শহীদ হন।


বিডি-প্রতিদিন/এস আহমেদ

আপনার মন্তব্য

up-arrow