Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৫:৩২ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৬:৪৬
সিফাত হত্যার 'নিরপেক্ষ' বিচার দাবিতে মানববন্ধন
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি
সিফাত হত্যার 'নিরপেক্ষ' বিচার দাবিতে মানববন্ধন

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সাবেক শিক্ষার্থী ওয়াহিদা সিফাত হত্যার রায় পক্ষপাতমূলক দাবি করে এ হত্যার নিরপেক্ষ বিচারের দাবিতে মানববন্ধন করেছে বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। মঙ্গলবার বেলা ১২টায় বিভাগের সামনে এই মানবন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সভাপতি ড. প্রদীপ কুমার পাণ্ডের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মো. মশিহুর রহমান, সহকারী অধ্যাপক, ড. মো. মোজাম্মেল হোসেন বকুল, প্রভাষক মো. মামুন আ. কাইয়ুম, সোমা দেব, মো. আব্দুলাহীল বাকীসহ বিভাগের প্রায় দুই শতাধিক শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় বক্তরা বলেন, সিফাত হত্যার যে রায় আদালত দিয়েছে তা পক্ষপাতমূলক। এই রায় মানি না। রায়ের বিরুদ্ধে আমরা উচ্চ আদালতে আপীল করবো। আমরা নিরপেক্ষ বিচার চাই।

গত ২৯ মার্চ রাজশাহীর মহিষবাথান এলাকায় তার শশুর বাড়িতে মারা যায়। এতে সিফাতের বাবা মা দাবি করেন তাকে শশুরবাড়ির লোকজন হত্যা করেছে। তবে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় গত সোমবার আত্মহত্যার প্ররোচনায় স্বামী মো. আসিফ প্রিসলিকে ১০ বছর সশ্রম কারাদ- দিয়েছে আদালত।

২০১৫ সালের ২৯ মার্চ সন্ধ্যায় রাজশাহী মহানগরীর মহিষবাগান এলাকায় অ্যাডভোকেট হোসেন মোহাম্মদ রমজানের বাড়িতে রহস্যজনক মৃত্যু হয় গৃহবধূ ওয়াহিদা সিফাতের। তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন থাকলেও প্রথমে সিফাত আত্মহত্যা করেছেন বলে তার শ্বশুরবাড়ির লোকজন দাবি করে। তবে দ্বিতীয় দফার ময়নাতদন্তে তাকে যে হত্যা করা হয়েছে তা প্রমাণিত হয়।

পরে সিফাতের চাচা মিজানুর রহমান খন্দকার সিফাতের স্বামী, শ্বশুর ও শাশুড়ির নাম উল্লেখ করে মহানগরীর রাজপাড়া থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ২০০০ ধারায় যৌতুকের দাবিতে হত্যা ও সহায়তা করার অভিযোগে একটি মামলা দায়ের করেন। পরের বছর মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সিআইডির সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার আহম্মেদ আলী চারজনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। ওই মামলায় সোমবার সিফাতের স্বামী মো. আসিফ প্রিসলিকে ১০ বছর সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

বিডি-প্রতিদিন/২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭/মাহবুব

 

আপনার মন্তব্য

up-arrow