Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৭:২৩ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৭:৩০
পরিবহন ধর্মঘটে চট্টগ্রামে চরম ভোগান্তিতে যাত্রীরা
সাইদুল ইসলাম, চট্টগ্রাম:
পরিবহন ধর্মঘটে চট্টগ্রামে চরম ভোগান্তিতে যাত্রীরা

সারাদেশে ডাকা পরিবহণ ধর্মঘটের জেরে চট্টগ্রামে পুরোপুরি যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। এতে নগর ও জেলায় যাত্রীরা চরম দুর্ভোগে পড়েছেন একাধিক যাত্রী। মঙ্গলবার ধর্মঘট চলাকালীন সময়ে প্রতিটি স্পটে পরিবহণ শ্রমিকরা বাস থামিয়ে যাত্রীদের নেমে যেতেও বাধ্য করেছেন বলে যাত্রীদের অভিযোগ করেন। 

এর আগে দুই বাস চালককে দেওয়া সাজার প্রতিবাদে সারাদেশে এ ধর্মঘট ডাকা হয়েছে। সকাল সাড়ে ৯টার দিকে নগরীর বহদ্দারহাটে উত্তেজিত শ্রমিকরা একটি সিটিবাস ভাংচুর করেছে। বাস নিয়ে রাস্তায় নামার কারণে এক চালক শ্রমিকদের মারধরের শিকারও হয়েছেন।

চান্দগাও থানার ওসি সাইফুল ইসলাম বলেন, বহদ্দারহাট থেকে রাহাত্তারপুল হয়ে শাহ আমানত সেতু পর্যন্ত এলাকায় পরিবহন শ্রমিকরা বাস থামিয়ে যাত্রীদের নেমে যেতে বাধ্য করেছেন। এসময় পুলিশ বাধা দিলে কয়েক দফা উত্তেজনার ঘটনাও ঘটে।

নূর বানু নামের এক মহিলা যাত্রী বলেন, বাস চলাচল বন্ধ থাকায় কর্মজীবীদের কর্মস্থলে যেতে দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে। যাত্রীদের কাছ থেকে বাড়তি ভাড়া আদায় করছে রিকশা, অটোরিকশা ও হিউম্যান হলারগুলো।

অক্সিজেন মোড়ে কথা হয় রাউজান উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুনের সাথে। তিনি বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, ‍বাস না পেয়ে রিকশা, অটোরিকশার নেয়ার চেষ্টা করি। কিন্তু অতিরিক্ত ভাড়া চাওয়ায় নিতে পারিনি। হিউম্যান হলারগুলোতে অস্বাভাবিক ভিড় থাকায় সেগুলোতেও ‍উঠতে পারিনি। অনেকটা পায়ে হেঁটে কুয়াইশ তিন রাস্তার মোড়ে পৌঁছেছি। তারপর আবারও গাড়িতে উঠে রাউজানের উদ্দেশে রওনা দিই। একইভাবে রাঙ্গুনীয়া ‍রাণীরহাট ডিগ্রি কলেজের শিক্ষক রোখসানা আক্তারসহ অনেক যাত্রী বিভিন্ন ধরণের ভোগান্তি ও চরম নাজেহালের অভিযোগের কথা তুলে ধরেন।

পূর্বাঞ্চলীয় সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি মৃণাল চৌধুরী বলেন, রাস্তায় বাস চলাচলে বাধা দেয়ার জন্য কাউকে বলা হয়নি। টার্মিনালে, স্ট্যান্ডে গিয়ে বাস না চালানোর অনুরোধ করার জন্য শ্রমিকদের বলা হয়েছে। বাস চালাতে বাধা দেয়া এবং যাত্রীদের নামিয়ে দেয়া দুঃখজনক।

উল্লেখ্য, মানিকগঞ্জে চলচ্চিত্রকার তারেক মাসুদ ও গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব মিশুক মুনীরসহ পাঁচজন নিহতের ঘটনায় জামির হোসেন নামের এক বাস চালকের যাবজ্জীবন সাজা হয়েছে। এরপর ঢাকার সাভারে ট্রাকচাপা দিয়ে এক নারীকে হত্যার দায়ে ট্রাকচালক মীর হোসেনের ফাঁসির রায় হয়েছে। এর প্রতিবাদে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন সারাদেশে অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতির কর্মসূচি দিয়েছে।

 

বিডি প্রতিদিন/২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৭/হিমেল

আপনার মন্তব্য

up-arrow