Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : ১০ মার্চ, ২০১৭ ১৭:১৩ অনলাইন ভার্সন
আপডেট :
থানা থেকে জানালা ভেঙ্গে চোর পালানোয় কনস্টেবল বরখাস্ত
নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল:
থানা থেকে জানালা ভেঙ্গে চোর পালানোয় কনস্টেবল বরখাস্ত

বরিশাল কোতায়ালী মডেল থানার অব্যহৃত অভ্যর্থনা কক্ষের জানালার গ্রীল ভেঙ্গে মোটরসাইকেল চুরি মামলার এক আসামি পালানোর ঘটনায় দায়িত্বরত সেন্ট্রি (কনস্টেবল) শফিকুর রহমানকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। তবে একই সময়ে ডিউটি অফিসারের দায়িত্ব পালনকারী এএসআই এনায়েতের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি।

 

যদিও ওই ঘটনা তদন্তে মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার সাইফুল্লাহ নাসিরকে প্রধান করে এক সদস্যের তদন্ত কমিটি করা হয়েছে। তাকে পরবর্তী ৭ কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন পুলিশ কমিশনার এসএম রুহুল আমীন। পালিয়ে যাওয়া সোহেল রানার বাড়ি চট্টগ্রাম। সে নারায়নগঞ্জে থেকে দেশের বিভিন্ন এলাকায় মোটরসাইকেল চুরির কথা পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছে। ওই চুরি মামলায় একই সাথে গ্রেফতার হওয়া অপর যুবকের নাম রশিদ রাজু।  

গত ৮ মার্চ নগরীর রূপাতলী থেকে একটি মোটরসাইকেল চুরি মামলার আসামি সোহেল রানা ও রাজুকে বাকেরগঞ্জ থেকে গ্রেফতার করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কোতয়ালী থানার এসআই মামুন। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাদের থানা হাজতে রাখার জন্য পাঠানো হয়।  

থানার নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, সোহেল ও রাজুকে থানা হাজতে না রেখে তাদের ওই রাতে রাখা হয় ডিউটি অফিসার সংলগ্ন অব্যহৃত অভ্যর্থনা কক্ষে। ওই রাতের যে কোন সময় ওই কক্ষের জানালার গ্রীল ভেঙ্গে পালিয়ে যায় সোহেল রানা। পরদিন গত বৃহস্পতিবার সকালে তাদের জিজ্ঞাসাবাদের ডেকে পাঠান ওসি। এ সময় কনস্টেবলরা দেখতে পান রাজু কক্ষে আছে এবং অপর আসামী সোহেল জানালার গ্রীল ভেঙ্গে পালিয়েছে।  

এ ঘটনায় ওই রাতে সেন্ট্রির দায়িত্বপালনকারী শফিকুর রহমানকে দায়িত্বে অবহেলার দায়ে সাময়িক বরখাস্ত করেন কর্তৃপক্ষ। তবে ওই রাতের ডিউটি অফিসার এএসআই এনায়েতকে বাঁচানোর জন্য থানার একটি পক্ষ তৎপরতা চালাচ্ছে বলে জানিয়েছে পুলিশের একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র।  

মেট্রোপলিটন পুলিশের সহকারী কমিশনার (কোতয়ালী) মো. আসাদুজ্জামান জানান, সোহেলের বিরুদ্ধে মোটরসাইকেল চুরির মামলা রয়েছে। ওই মামলায় তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পালিয়ে যাওয়ার ঘটনায় তার বিরুদ্ধে আরেকটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। তাকে গ্রেফতারের সর্বাত্মক চেষ্টা চলছে। দায়িত্বে অবহেলার দায়ে এক কনস্টেবলকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। পুরো ঘটনা তদন্তে এক সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন পুলিশ কমিশনার। তদন্ত প্রতিবেদন পেলে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা নেবেন কর্তৃপক্ষ।


বিডি প্রতিদিন/১০ মার্চ ২০১৭/হিমেল

আপনার মন্তব্য

up-arrow