Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ২৫ নভেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, শনিবার, ২৫ নভেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : ২০ মার্চ, ২০১৭ ২১:১৯ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ২০ মার্চ, ২০১৭ ২১:২১
চসিকের সভায় মেয়র
'গৃহকর নিয়ে ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করা হচ্ছে'
নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম
'গৃহকর নিয়ে ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করা হচ্ছে'

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের (চসিক) মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেছেন, নাগরিকদের উপর ট্যাক্স ধার্য্য করার কোন এখতিয়ার বা ক্ষমতা মেয়রের নেই। চসিক কেবল সরকারের ধার্য্যকৃত এবং প্রকাশিত গ্যাজেট বাস্তবায়ন করে।

কিন্তু অতি সম্প্রতি একজন দায়িত্বশীল ব্যক্তি ও বিশেষ মহল জনমনে বিভ্রান্তি সৃষ্টি, ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করার লক্ষে এবং সরকারের আইনের প্রতি বৃদ্ধাঙ্গুলি প্রদর্শন করে নানামুখি অপপ্রচারে লিপ্ত রয়েছেন। এতে সরকারের ভাবমুর্তি প্রশ্নবিদ্ধ হচ্ছে। এ ধরনের মিথ্যা অপপ্রচার ও বিভ্রান্তি ছড়ানো বন্ধ করার নৈতিক দায়িত্ব চসিকের। তাই সংশ্লিষ্ট বিশেষ মহলটির মন মানসিকতা পরির্তন করা প্রয়োজন বলে মনে করে চসিক।  

সোমবার দুপুরে চসিকের পঞ্চম পরিষদের ২০তম সাধারণ সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এর আগে গত রবিবার চট্টগ্রামের একটি অনুষ্ঠানে নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী ‘সামনে সংসদ নির্বাচন তাই গৃহকর বাড়াবেন না’ শীর্ষক আহবান জানান। সভায় চসিকের আইনের ভিত্তিতে চলমান ট্যাক্স পূনঃমুল্যায়ন সংক্রান্ত বিষয়ে বিশেষ মহল কর্তৃক মিথ্যা অপপ্রচার ও বিভ্রান্তি ছড়ানোর কার্যক্রমের নিন্দা করা হয়।      

চসিকের ভারপ্রাপ্ত প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবুল হোসেনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভার তিনি বলেন, কর আদায় বৃদ্ধির জন্য আগামীতে নগরীতে চসিকের উদ্যোগে হোল্ডিং ট্যাক্স মেলার আয়োজন করা হবে। তাছাড়াও হোল্ডিং ট্যাক্স নিয়ে জনমনে কোনো ধরনের বিভ্রান্তি বা প্রশ্ন থাকলে অথবা কোনো অসংগতি থাকলে তা নিরসনে ৪১টি ওয়ার্ডে পৃথকভাবে জনসচেতনতামূলক সমাবেশ করা হবে।

তিনি বলেন, পরিচ্ছন্ন কার্যক্রম নগরবাসীর প্রশংসা অর্জন করছে। এ কার্যক্রমকে আরও জোরদার করা হবে। চলমান ১৯ ওয়ার্ডে ডোর টু ডোর বর্জ্য সংগ্রহ অপসারণ কার্যক্রম কাউন্সিলরগণ কঠোরভাবে পর্যবেক্ষণ করবেন। আগামী ১ এপ্রিল থেকে ২১টি ওয়ার্ডে ডোর টু ডোর বর্জ্য সংগ্রহ ও অপসারণ কার্যক্রম শুরু করা হবে। ডোর টু ডোর বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় ৭ ‍লাখ ৪২ হাজার ৭০০টি ছোট বিন, ২ হাজার ৩১০টি বড় বিন, ৬৩০ টি ভ্যান গাড়ি এবং ৯৯৩ জন বিন পরিবহন শ্রমিক নিয়োজিত থাকবে।

সভায় সিদ্ধান্ত হয়, দামপাড়া চসিক সিএনজি ফিলিং স্টেশন গতিশীল করা, জঙ্গি প্রতিরোধ কমিটিগুলোকে সক্রিয় করা, বৈদ্যুতিক লাইনে ডিজিটাল মিটার স্থাপন, ৪১টি ওয়ার্ডকে পরিপূর্ণ আলোকায়ন, বর্ষার আগে নালা নর্দমা দ্রুত সংস্কা, ৪১টি ওয়ার্ডে আধুনিক যাত্রীছাউনি নির্মাণ, সাগরিকা গরু বাজারসংলগ্ন শপিং কমপ্লেক্সে কক্ষ বরাদ্দ সংক্রান্ত নতুন চুক্তি প্রনয়ণ, তৃতীয় ও চতুর্থ তলার অর্ধেক অংশ বাণিজ্যিক কাজে ব্যবহার, যৌতুক ও নারী নির্যাতন সম্পর্কে জনসচেতনতা বৃদ্ধি, অটোমেশন কার্যক্রম গতিশীল, আয়বর্ধক প্রকল্প গ্রহণ, স্থায়ী কমিটির মাধ্যমে বিউটিফিকেশন কার্যক্রম তদারকি, ওয়ার্ড পর্যায়ে পরিত্যক্ত জায়গায় উদ্যান স্থাপন, ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবস যথাযোগ্য মর্যাদায় উদযাপন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর শিক্ষার মান উন্নয়ন, মাদকের ব্যবহার শূন্য পর্যায়ে আনার লক্ষ্যে জনমত গঠন, ই-টেন্ডার কার্যক্রমকে আরও আধুনিকায়ন করা।

বিডি প্রতিদিন/ সালাহ উদ্দীন

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow