Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, বুধবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ২১:৪৫ অনলাইন ভার্সন
আপডেট :
মানবদেহের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ অবৈধ পাচার রোধ কল্পে বিল উত্থাপিত
নিজস্ব প্রতিবেদক
মানবদেহের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ অবৈধ পাচার রোধ কল্পে বিল উত্থাপিত

মানবদেহের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ সংযোজন ও প্রতিস্থাপন ব্যবসায়িক উদ্দেশ্য ব্যবহার বন্ধ করা এবং অবৈধ পাচার রোধ কল্পে মানবদেহে অঙ্গ-প্রতঙ্গ সংযোজন (সংশোধনী) আইন ২০১৭ বিল সংসদে উত্থাপিত হয়েছে।
ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদের ১৭তম অধিবেশনে বিলটি উত্থাপন করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম।

পরে বিলটি পরীক্ষা নিরীক্ষার জন্য সংশ্লিষ্ট সংসদীয় কমিটেতে প্রেরণ করা হয়।
বিলে বলা হয়েছে, কোন হাসপাতাল সরকারের অনুমতি ব্যতীত মানবদেহে অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ সংযোজন করতে পারবে না। অনুমোদনের জন্য সরকারের কাছে নির্ধারিত ফর্মে আবেদন করতে হবে। কোন সুস্থ্য ও জীবিত ব্যক্তি, নিজের জীবণ যাপনে ব্যাঘাত সৃষ্টির আশঙ্কা না থাকলে তার কোন নিকট আত্মীয়র দেহে প্রতিস্থাপনের জন্য নিজ অঙ্গ দান করতে পারবেন।
এছাড়া কেউ জীবিত অবস্থায় অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ দান করলে উক্ত ব্যক্তির মৃত্যুর ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তার উত্তরাধিকারীর লিখিত অনুমতি সাপেক্ষ তা করা যাবে। দুবছরের কম বা ৬৫ বছরের উর্ধে কোন ব্যক্তির অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ করা যাবে না।
এই বিলের অধীনে অপরাধ সংঘটিত হলে হাসপাতাল পরিচালনাকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া যাবে। আইনে সবোর্চ্চ তিন বছরের সশ্রম কারাদন্ড ও দশ লাখ টাকা জরিমানার বিধান করা হয়েছে। বিচারের ক্ষেত্রে ক্রিমিনাল প্রসিডিউর প্রযোজ্য হবে।
বিলের উদ্দেশ্য ও কারণ সম্বলিত বিবৃতিতে বলা হয়েছে, মানব দেহের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ সংযোজন বা প্রতিস্থাপন চিকিৎসার প্রদানের লক্ষ্যে ১৯৯৯ সালে মানব দেহের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ সংযোজন আইন প্রণয়ন করা হয়। আইনটি সংশোধনক্রমে যুগোপযোগী করা প্রয়োজন। মানব দেহের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ সংযোজন ও প্রতিস্থাপনের ক্ষেত্রসমুহ বিস্তৃতকরণ, ব্যবসায়িক উদ্দেশ্য ব্যবহার বন্ধ করা এবং অবৈধ পাচার রোধ কল্পে মানবদেে অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ সংযোজন (সংশোধনী) আইন ২০১৭ বিল সংসদে উত্থপিত হয়েছে।

বিডি প্রতিদিন/ সালাহ উদ্দীন

আপনার মন্তব্য

up-arrow