Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ১১:২৪ অনলাইন ভার্সন
গৃহশিক্ষকের বিরুদ্ধে একাধিকবার ধর্ষণ ও ভিডিও ধারণের অভিযোগ
নাজমুল হুদা, সাভার
গৃহশিক্ষকের বিরুদ্ধে একাধিকবার ধর্ষণ ও ভিডিও ধারণের অভিযোগ

ঢাকা জেলার সাভারে এক কিশোরীকে জোরপূর্বক ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে রুস্তম আলী দেওয়ান (৪৫) নামের এক গৃহশিক্ষকের বিরুদ্ধে। শুধু তাই নয়, প্রথমবার ধারণ করা ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে পরবর্তীতে পড়ানোর নামে ওই কিশোরীকে প্রতিনিয়ত ধর্ষণ করতো রুস্তম।

গতকাল বুধবার গভীর রাতে সাভারের কলমা থেকে রুস্তমকে গ্রেফতার করে সাভার মডেল থানা পুলিশ। পুলিশ জানায়, ভয় দেখিয়ে ওই কিশোরীকে কলমা এলাকায় একটি ভাড়া বাড়িতে আটকিয়ে রেখে ধর্ষণ করে আসছিলেন রুস্তম আলী। পরে রাতে কৌশলে বিষয়টি ওই স্কুলছাত্রী সাংবাদিকদের জানায়। খবর পেয়ে সাভার মডেল থানার উপ পরির্দশক (এসআই) তারিকুল ইসলাম ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই ধর্ষণকারী ও তরুণীকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যান।

কলমার বিদেশ প্রবাসী মামুনের বাড়ির ২য় তলার ভাড়া থাকেন গৃহশিক্ষক রুস্তম। আর ওই বাড়িতে ওই কিশোরীকে ধর্ষণ করেন বলে জানান স্কুলছাত্রীর মা ময়না বেগম। মেয়ের বরাত দিয়ে তিনি বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, আমার মেয়েকে রুস্তম আলী দেওয়ান বাসার প্রাইভেট পড়ানার সময় জোরপূরক ধর্ষণের ভিডিও মোবাইল ফোনে ধারণ করেন। পরবর্তীতে সেই ভিডিও ইন্টারনেটে ছেড়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে প্রতিদিন সে আমারকে মেয়েকে ধর্ষণ করতো। এ ঘটনায় একবার আমার মেয়ে আত্মহত্যারও চেষ্টা করে। 

এদিকে, ঘটনা জানাজানি হতেই বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী ওই বখাটে শিক্ষক রুস্তম আলী বিচারের দাবিতে মিছিল করেছে।  

সাভার বিরুলিয়ার পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্য তরিকুল ইসলাম বাংলাদেশ প্রতিদিনকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, স্কুলছাত্রীর ভিডিও ফুটেজ উদ্ধারে জন্য রাতে তার বাড়িতে অভিযান চালানো হলে তার পবিবার পুলিশের উপর হামলা করে আসামী ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। ধর্ষণের শিকার স্কুলছাত্রীকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য (ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে) পাঠানো হয়েছে।

সাভার মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মহাসিনুল কাদির বলেন, বুধবার সকালে রুস্তমকে আসামি করে পর্নোগ্রাফি এবং ধর্ষণ আইনে মামলা হয়েছে।

বিডি-প্রতিদিন/২১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮/মাহবুব
 

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow