Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ১৪ আগস্ট, ২০১৮ ১৬:৩৬ অনলাইন ভার্সন
শেখ হাসিনাকে আবারও ক্ষমতায় আনতে মুক্তিযোদ্ধারা ঐক্যবদ্ধ: ক্যাপ্টেন তাজ
নিজস্ব প্রতিবেদক
শেখ হাসিনাকে আবারও ক্ষমতায় আনতে মুক্তিযোদ্ধারা ঐক্যবদ্ধ: ক্যাপ্টেন তাজ

স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে রাজধানীতে শোক মিছিল করেছে মুক্তিযোদ্ধারা। আজ মঙ্গলবার দুপুরে ধানমন্ডির সোবহানবাগ সড়কে জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা সমন্বয় কমিটির উদ্যোগে এই সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান ক্যাপ্টেন (অব.) এ.বি তাজুল ইসলাম এমপি।

সংগঠনের নির্বাহী চেয়ারম্যান মো. হারুন-উর-রশিদের সভাপতিত্বে এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন কামাল আহমেদ মজুমদার এমপি। বক্তৃতা করেন জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা সমন্বয় কমিটির মহাসচিব শফিকুল বাহার মজুমদার টিপু, আনোয়ার হোসেন পাহাড়ী বীর প্রতিক, মো. আব্দুল হাই, সৈয়দ সামছুল কাউনাইন কুতুব ও মাহমুদ পারভেজ জুয়েল, মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্টের মো. রফিকুল ইসলাম ও মাকসুদ আহম্মেদ, কমান্ডার মোশাররফ হোসেন, ঢাকার সাবেক কমান্ডার শফিকুর রহমান শহীদ, মোহাম্মদপুরের কমান্ডার এল.এম.জি. আব্দুর রব, তেজগাঁওয়ের কমান্ডার মো. আবুল বাশার, মিরপুরের আহমদ উল্লাহ রতন, কাফরুলের মো. সিদ্দিক মোল্লা, আওয়ামী লীগ নেতা মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মো. ইসমাইল, সমন্বয় কমিটির কেন্দ্রীয় নেতা হারুনুর রশিদ জিল্লুর, আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি মো. হুমায়ুন কবির ও সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম নয়ন প্রমুখ।  


  
প্রধান অতিথির বক্তব্যে ক্যাপ্টেন এবি তাজুল ইসলাম বলেন, বঙ্গবন্ধু হত্যার খুনি ও যুদ্ধাপরাধীদের শাস্তি দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতিকে কলঙ্কমুক্ত করেছেন। বর্তমানে প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধেও নানা ষড়যন্ত্র-চক্রান্ত চলছে। মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযোদ্ধার সন্তানেরা যেকোন মূল্যে তা প্রতিহত করে শেখ হাসিনাকে আবারও রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় আনতে ঐক্যবদ্ধ। 

কামাল আহমেদ মজুমদার এমপি বলেন, ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধু হত্যার প্রতিবাদে রাজপথে ছিলাম এখনও রাজপথই আমাদের ঠিকানা। বাংলার মাটিতে শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে যারা ষড়যন্ত্র করছে তাদেরকে প্রতিহত করার জন্য সবাইকে প্রস্তুত থাকতে হবে। 

সংগঠনের মহাসচিব শফিকুল বাহার মজুমদার টিপু বলেন, ১৯৭৫ সালের পর থেকেই মাঠে ময়দানে আছি। আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় আনার জন্য আমরা কাজ করেছি। জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকার গঠনের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার ও যুদ্ধাপরাধীদের বিচার কাজ সমাপ্ত করে ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে মুক্তিযোদ্ধারা তাদের সন্তানদের নিয়ে শেখ হাসিনার সাথে কাজ করে যাচ্ছে এবং করবে। 

সমাবেশ শেষে কয়েক হাজার মুক্তিযোদ্ধর শোক মিছিলটি মুক্তিযোদ্ধা পতাকা, কালো পতাকা নিয়ে ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে স্থাপিত বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি জ্ঞাপন করেন।  

বিডি-প্রতিদিন/১৪ আগস্ট, ২০১৮/মাহবুব

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow