Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ২২ অক্টোবর, ২০১৮ ১০:৪৬ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ২২ অক্টোবর, ২০১৮ ১১:৩৪
নারায়ণগঞ্জে বকেয়া পাওয়া নিয়ে শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষ, আহত অর্ধশত
সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি
নারায়ণগঞ্জে বকেয়া পাওয়া নিয়ে শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষ, আহত অর্ধশত

নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের আদমজী ইপিজেডের রপ্তানীমুখী একটি পোশাক কারখানার শ্রমিকরা বকেয়া বেতন-বোনাস পরিশোধের দাবিতে সড়ক অবরোধ ও বিক্ষোভ করেছে। এ সময় বাধা দিলে পুলিশের সাথে তাদের ব্যাপক ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।  এতে পুলিশসহ আহত হয়েছেন অর্ধশত শ্রমিক।

সোমবার সকাল ৭টায় প্রথমে আদমজী ইপিজেডের প্রধান ফটকের সামনে অবস্থান নেয় শ্রমিকরা। পরে পুলিশ তাদেরকে সরিয়ে দিতে চাইলে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়। 

পরে আবার ৮টার দিকে শ্রমিকরা সড়ক অবরোধ করে। সেখন থেকে তাদেরকে সরিয়ে দিতে চাইলে পুলিশের সাথে তাদের ব্যাপক সংঘর্ষ হয়। এতে শ্রমিকরা অর্ধশতাধিক গাড়ি ভাংচুর করে এবং একটি কাভার্ড ভ্যানে আগুন ধরিয়ে দেয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ করে ও শ্রমিকদের উপর লাঠিচার্জ করে। এতে তিন পুলিশ সদস্যসহ আহত হন অর্ধশত শ্রমিক। সেখান থেকে ৭ জন শ্রমিককে আটকের অভিযোগ করেছেন শ্রমিকরা। আহত শ্রমিকদের বিভিন্ন স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

নারায়ণগঞ্জ শিল্প পুলিশের এসপি জাহিদুল ইসলাম জানান, শ্রমিকরা অবস্থান নিয়ে আছে, পরিস্থিতি এখন স্বাভাবিক রয়েছে। কোন শ্রমিককে আটক করা হয়নি। তাদেরকে বুঝিয়ে সরিয়ে দেয়ার চেষ্টা চলছে। সংঘর্ষে পুলিশের তিন সদস্য আহত হয়েছে।

এর আগে ২২ সেপ্টেম্বর বকেয়া বেতন, ছুটি ও ফান্ডের টাকা পরিশোধ না করায় এবং শ্রমিকদের না জানিয়ে কারখানা বন্ধের নোটিশ দেয়ায় বিক্ষুদ্ধ হয়ে তারা সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে।

বিক্ষোভকারী পোশাক শ্রমিকদের অভিযোগ, ওই পোশাক কারখানায় সাড়ে তিন হাজার শ্রমিক কাজ করছে। ৫-৬ মাস ধরে ঠিকমতো বেতন পরিশোধ করছে না কারাখানা কর্তৃপক্ষ। সেই সঙ্গে বোনাস, ছুটি ও রিজার্ভ ফান্ডের টাকাও দেয়া হয়নি। এ অবস্থায় এসব পোশাক শ্রমিকরা বাসা ভাড়াসহ সংসার চালানো নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করছে। 

কারখানাটির কর্মরত আরিফ হোসেন জানান, কর্তৃপক্ষ আমাদেরকে না জানিয়ে হঠাৎ কারখানা বন্ধ করে দেয়। শুনতে পেরেছি মালিক অন্যত্র কারাখানা বিক্রি করে দিয়েছে। একই সাথে বিগত ৪ বছরের ছুটি, ফান্ড ও রিজার্ভের টাকাও আমাদেরকে পরিশোধ করা হয়নি। 

একই কারখানার শ্রমিক মো. সবুজ জানান, আমরা বেপজার কর্মকর্তাদেরকে বিষয়টি অবহিত করেছি। তারা বলছে, এ ব্যাপারে তারা কিছুই জানে না। অথচ এর আগে মালিক পক্ষ বেতন নিয়ে গড়িমসি করলে আমরা বেপজার কাছে গেলে কারখানা এই সমস্যা সমাধানের জন্য তারা আমাদের বিভিন্ন ধরনের আশ্বাস প্রদান করেন। কিন্তু আজ তারা বলছে কিছুই জানেনা। কেন তাদের মুখে আজ এমন দায়িত্বহীন কথা শোনা যাচ্ছে?

এদিকে বিক্ষুব্ধ পোশাক শ্রমিকরা সকাল থেকে ইপিজেট গেট সংলগ্ন আদমজী-ডেমরা-নারায়ণগঞ্জ সড়ক অবরোধ করে রাখায় সকাল থেকেই সড়কের দুই দিকেই দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। ফলে সড়কটিতে একেবারেই যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। 

বিডি প্রতিদিন/ফারজানা

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow