Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ২৩ জানুয়ারি, ২০১৯ ০১:০৫ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ২৩ জানুয়ারি, ২০১৯ ১০:৪২
চাঁদাবাজি ও পুলিশের ওপর হামলা
পল্টন থানা ছাত্রলীগের সভাপতিসহ গ্রেফতার ১৭
নিজস্ব প্রতিবেদক
পল্টন থানা ছাত্রলীগের সভাপতিসহ গ্রেফতার ১৭

ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে চাঁদাবাজি ও পুলিশের উপর হামলার অভিযোগে পল্টন থানা ছাত্রলীগের সভাপতি শেখ নাজমুল হোসাইন মিরনসহ ১৭ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। 

পুলিশ জানায়, পল্টনের একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে চাঁদাবাজি করতে গিয়ে তারা প্রতিষ্ঠানের ভেতর মারামারি শুরু করে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে ছাত্রলীগের কর্মীদের কাছে উল্টো হামলার শিকার হয় পুলিশ। এসময় অন্তত পাঁচজন পুলিশ আহত হয়েছেন। পরে পুলিশ তাদের গ্রেফতার করে থানায় নেয়।

রাত সাড়ে ১২টায় যোগাযোগ করা হলে পল্টন থানার কর্তব্যরত ডিউটি অফিসার রেজাউল বলেন, দুটি মামলার করার প্রক্রিয়া চলছে। একটি মামলার বাদী পুলিশ, অন্যটির ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে দায়ের হবে। 

পুলিশ ও অন্য সূত্রগুলো জানায়, সন্ধ্যায় পল্টনের আজাদ সেন্টারের ১৮ তলায় বিশ্বাস ট্রেডার্স ইন্টারন্যাশনাল নামের একটি প্রতিষ্ঠানে মিরণ তার দলবল নিয়ে চাঁদাবাজি করতে যায়। এসময় তারা প্রতিষ্ঠানের লোকজনের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে ছুটি যায়। এসময় পুলিশ তাদের থামানোর চেষ্টা করে। কিন্তু মিরন ও তার কর্মীরা পুলিশের উপর হামিলা চালায়। এতে পাঁচজন পুলিশ আহত হন। তিনজনের হাত-পা কেটে যায়। 

ডিএমপির মতিঝিল বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার শিবলী নোমান জানান, মিরনসহ ১৭ জনকে থানায় নেওয়া হয়েছে।  

গ্রেফতারের সময় মিরন পুলিশকে জানায়, তারা অন্য একজনের পক্ষ নিয়ে সেখানে যায় পাওনা টাকা আদায়ের জন্য। সেই প্রতিষ্ঠানের তুহিন একজন প্রতারক বলে দাবি করে মিরন। কিন্তু তুহিন পুলিশের কাছে অভিযোগ করেছে, মিরনের নেতৃত্বে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা তার কাছে ‘চাঁদা চাইতে’ এসেছিল।

ঘটনার পর পর ডিএমপির মতিঝিল বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার শিবলী নোমান জানান, দুই পক্ষের অভিযোগ খতিয়ে দেখা হচ্ছে। যে দোষী তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 

তিনি আরও জানান, ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা পুলিশ ও আনসার সদস্যদের মারধর করে। এতে তিনজন আহত হয়। ছাত্রলীগের মিরনসহ কয়েকজনের বিরুদ্ধে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে বাধা এবং মারধরের ঘটনায় মামলা করা হবে।

বিডি প্রতিদিন/২৩ জানুয়ারি ২০১৯/আরাফাত

আপনার মন্তব্য

up-arrow