Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ৭ জানুয়ারি, ২০১৮ ১৩:২৬ অনলাইন ভার্সন
শীতে কাঁপছে রাজশাহী
নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী:
শীতে কাঁপছে রাজশাহী
bd-pratidin

টানা শীতে যেন কাঁপছে রাজশাহী। রবিবার বছরের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৫ দশকি ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। শনিবার বছরের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল ৫ দশকি ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সেই হিসেবে রবিবার সকালে তাপমাত্রা আরও দশমিক ৫ ডিগ্রি কমে আসে।

এদিকে তাপমাত্রা হঠাৎ করে নিচে নেমে যাওয়ায় শীতে আরও অতিষ্ট হয়ে পড়ে জনজীবন। বিশেষ করে তীব্র শীতে খেটে খাওয়া মানুষ ও ছিন্নমূল মানুষের মাঝে নেমে আসে চরম দুর্ভোগ। শীত নিবারণ করতে অনেককে খুড়কুটো জ্বালিয়ে রাখতে দেখা যায়। কিন্তু ছিন্নমূল বা খেটে খাওয়া হতদরিদ্র মানুষের মাঝে সাহায্য নিয়ে হাত বাড়ানোর তেমন কোনো খবর পাওয়া যায়নি। ফলে ভোগান্তিতে পড়েছেন এসব মানুষরা।

রাজশাহী আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আশরাফুল আলম জানান, রবিবার রাজশাহীতে বছরের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ৫ দশকি ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এর আগে শনিবার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ৫ দশকি ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তবে রবিবার ছিল চলতি বছরের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা। রবিবার ভোর ৫টা থেকে সকাল ছয়টার মধ্যে এ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়। তাপমাত্রা নিচে নামার পাশাপাশি উত্তরের হিমেল হাওয়া ঠান্ডার পরিমাণ আরও কয়েকগুণ বেড়ে যায়। পাশাপাশি বয়ে যাচ্ছে শৈতপ্রবাহ। চলতি সপ্তাহজুড়েই এইরকম ঠান্ডা থাকতে পারে বলেও জানান তিনি।

আবহাওয়া অফিস জানায়, ১০ বছর পরে ২০১৩ সালের ৯ জানুয়ারি রাজশাহীতে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল ৪ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা তার আগের ১০ বছরের মধ্যে রেকর্ড সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল। এর আগে ২০০৩ সালের ২৩ জানুয়ারি সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল ৪ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

রাজশাহী জেলা প্রশাসক হেলাল মাহমুদ শরীফ বলেন, ‘আমাদের কাছে পর্যাপ্ত পরিমাণ শীতের কাপড় আছে। গত কয়েকদিন ধরেই আমরা উপজেলা পর্যায়েই শীতের কম্বল বিতরণ করেছি। এখনও করছি। নগরীতে তিনটি টিমের মাধ্যমে শীতের কম্বল বিতরণ করা হচ্ছে। কাজেই কোনো সংকট নেই।’

বিডি প্রতিদিন/০৭ জানুয়ারি, ২০১৮/ওয়াসিফ

আপনার মন্তব্য

up-arrow