Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ৩০ জানুয়ারি, ২০১৮ ১০:১৫ অনলাইন ভার্সন
পরিচ্ছন্ন নগরী গড়ার উদ্যোগ
শাহ্ দিদার আলম নবেল, সিলেট
পরিচ্ছন্ন নগরী গড়ার উদ্যোগ
bd-pratidin

ছিমছাম পরিচ্ছন্ন শহর হিসেবে পরিচিত ছিল সিলেট। কিন্তু বর্তমানে সে পরিবেশ আর নেই। জঞ্জাল আর আবর্জনায় সিলেট নগরী এখন অপরিচ্ছন্নতার বেড়াজালে বন্দী। এই অবস্থা থেকে উত্তরণে সিলেট চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি পরিচ্ছন্ন সিলেট গড়ার উদ্যোগ নিয়েছে। চেম্বারকে সহযোগিতা করছে সিটি করপোরেশন।

উদ্যোগের শুরু হিসেবে সিলেট নগরীর প্রাণকেন্দ্র জিন্দাবাজার থেকে চৌহাট্টা পর্যন্ত সড়ক ‘মডেল সড়ক’ হিসেবে প্রতিষ্ঠার সিদ্ধান্ত হয়েছে। আগামী মাস থেকেই শুরু হবে এ কার্যক্রম। এ কর্মসূচির সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করেছেন অর্থমন্ত্রীও।আধ্যাত্মিক আর পর্যটন নগরী হিসেবে খ্যাত সিলেটে প্রতিনিয়ত দেশ-বিদেশের হাজারো পর্যটক আসে। সিলেটের নান্দনিক প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে মুগ্ধ হন তারা। কিন্তু সিলেট নগরীর ফুটপাথ ও সড়কজুড়ে হকারদের দৌরাত্ম্য, যেখানে-সেখানে ময়লা-আবর্জনা সবার বিরক্তির উদ্রেক ঘটায়। 

এ বিষয় নিয়ে কয়েকদিন আগে সিলেট চেম্বারের উদ্যোগে এক মতবিনিময় সভায় বসেন বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ। পরিচ্ছন্ন সিলেট গড়ে তুলতে নেওয়া হয় ‘কিপ সিলেট ক্লিন’ কর্মসূচি। কর্মসূচির শুরুতে জিন্দাবাজার থেকে চৌহাট্টা পর্যন্ত সড়কটি ‘পরিচ্ছন্ন সড়ক’ হিসেবে গড়ে তোলার সিদ্ধান্ত হয়েছে। সিলেট চেম্বারের এই উদ্যোগে সিলেট বিভাগীয় কমিশনার, সিটি করপোরেশন, মহানগর পুলিশ, জনপ্রতিনিধি সবাই কাজ করবেন। এই উদ্যোগ প্রশংসা কুড়াচ্ছে সাধারণ মানুষের। 

জিন্দাবাজারের বাসিন্দা আসলাম খান বলেন, ‘দিন দিন সিলেট শহর অপরিচ্ছন্ন হয়ে পড়ছে। এই অবস্থায় পরিচ্ছন্ন সিলেট গড়ার উদ্যোগ প্রশংসনীয়।’ 

জিন্দাবাজার থেকে চৌহাট্টা পর্যন্ত সড়কটি ‘পরিচ্ছন্ন সড়ক’ হিসেবে গড়তে এ সড়কের ফুটপাথের অবৈধ হকারদের এখান থেকে সরিয়ে দেওয়া হবে। সড়কের পাশে স্থাপন করা হবে আধুনিক ডাস্টবিন। মানুষকে সচেতন করতে রাখা হবে স্কাউট সদস্যদের। ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে রাখা হবে স্বেচ্ছাসেবকও। সচেতনামূলক কার্যক্রম হিসেবে বিভিন্ন ধরনের প্ল্যাকার্ড, ফেস্টুন লাগানো হবে। 

এদিকে, ‘কিপ সিলেট ক্লিন’ কর্মসূচির সঙ্গে একাত্মতা পোষণ করে এটিকে এগিয়ে নিতে বলেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। চেম্বার সভাপতি খন্দকার সিপার আহমদ অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করে বিষয়টি জানালে তিনি এই পরামর্শ দেন। 

সিলেট চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি খন্দকার সিপার আহমদ বলেন, ‘সিলেট নগরীর বর্তমান যে অবস্থা, তাতে বাইরে থেকে কেউ এলে মনে হবে সর্বত্র আবর্জনার স্তূপ ছড়িয়ে আছে। আমরা সিলেটকে পরিচ্ছন্ন নগরী হিসেবে গড়ে তুলতে চাই। ধাপে ধাপে নগরীর অন্যান্য এলাকায় কার্যক্রম চলবে।

এজন্য সবার সহযোগিতা চাই।’ সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, ‘পরিচ্ছন্ন সিলেট গড়ার উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছি আমরা। এজন্য যত ধরনের সাপোর্ট প্রয়োজন, আমরা তা দেব। সবাই মিলেই নগরীর সৌন্দর্য রক্ষা করতে হবে।’

আপনার মন্তব্য

up-arrow