Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : বুধবার, ১ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপডেট : ৩১ মে, ২০১৬ ২৩:০৮
সড়কে ধান ফেলে কৃষকের প্রতিবাদ
সরকারি গুদামে ধান বিক্রির স্লিপ অধরা
নিজস্ব প্রতিবেদক, রংপুর

ন্যায্যমূল্যের দাবিতে সড়কে ধান ফেলে প্রতিবাদ জানিয়েছেন রংপুরের বোরো চাষিরা। গতকাল দুপুরে নগরীর মাহিগঞ্জ সাতমাথায় সড়ক অবরোধ ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেন কয়েকশ বোরো চাষি।

সমাবেশে সাতমাথা এলাকার আবদুস সাত্তার প্রামাণিক বলেন, এ বছর এক মণ বোরো ধান উৎপাদনে খরচ হয়েছে ৮০০ টাকা। সেই ধান বিক্রি করতে হচ্ছে ৪৫০-৫৫০ টাকা মণ দরে। কৃষি উপকরণের দাম বেড়েছে দ্বিগুণ। সিটি করপোরেশনের ৩০ নম্বর ওয়ার্ডের পূর্ব খাসবাগ এলাকার বোরো চাষি আবদুল জলিল বলেন, তিন একর জমিত বোরো আবাদ করি ধান পাচি ৩১০ মণ। ৪৫০ থাকি ৫৫০ টাকা মণ দরে ধান বেচাইলে অর্ধেকের মতন লোকসান হয়। সরকারি গুদামে ধান বেচতে গেলে স্লিপ লাগে। ঘুরিয়াও একটা স্লিপ জোটে নাই।

৩০ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আঙ্গুর মিয়া বলেন, জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রকের দফতর থেকে ১৮ মেট্রিক টন ধানের বরাদ্দ পাওয়া গেছে। চাহিদা এক হাজার মেট্রিক টনের। বরাদ্দ পাওয়ার পরপরই তা কৃষি ভর্তুকি কার্ডধারী কৃষকের মধ্যে বিতরণ করা হয়েছে।

রংপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক এস এম আশরাফ আলী বলেন, এ বছর প্রতি কেজি বোরো ধান উৎপাদনে মণপ্রতি খরচ পড়ে ৮০০ টাকা। হাটবাজারে প্রতি মণ ধান বিক্রি করছেন ৪৫০-৫৫০ টাকা। এতে তাদের লোকসান হচ্ছে। সরকার বোরো ধানের কেজি ২৩ টাকা নির্ধারণ করলেও বরাদ্দ কম থাকায় বেশিরভাগ কৃষক সরকারি ক্রয়কেন্দ্রে ধান বিক্রি করতে পারছেন না।




এই পাতার আরো খবর
up-arrow