Bangladesh Pratidin

ফোকাস

  • চাটাইয়ে মুড়িয়ে প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধাকে রাষ্ট্রীয় সম্মান!
  • কেরানীগঞ্জে বাচ্চু হত্যায় ৩ জনের ফাঁসি, ৭ জনের যাবজ্জীবন
  • ৩ মামলায় জামিন চেয়ে হাইকোর্টে খালেদার আবেদন
  • হালদা নদীর পাড়ের অবৈধ স্থাপনা ভাঙার নির্দেশ
  • আফগানিস্তানের বিপক্ষে টাইগারদের টি-টোয়েন্টি দল ঘোষণা
  • কাদেরের বক্তব্যে একতরফা নির্বাচনের ইঙ্গিত: রিজভী
  • কলারোয়া সীমান্তে স্বামী-স্ত্রীসহ ৩ বাংলাদেশিকে ফেরত দিল বিএসএফ
  • বিএনপি নির্বাচনে না এলেও গণতন্ত্র অব্যাহত থাকবে: কাদের
প্রকাশ : বুধবার, ১ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ১ জুন, ২০১৬ ০৩:৪৭
শেষ হলো বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে সিম নিবন্ধন
বন্ধ হয়ে যাওয়া সিমটি ফের চালু করা যাবে
নিজস্ব প্রতিবেদক

আঙ্গুলের ছাপ (বায়োমেট্রিক) পদ্ধতিতে সিম পুনর্নিবন্ধন কার্যক্রম গতকাল মধ্যরাত ১২টায় শেষ হয়েছে। এর ফলে এখন পর্যন্ত যেসব সিম নিবন্ধিত হয়নি সেগুলো আজ বুধবার থেকে বন্ধ হয়ে যাবে। আর বন্ধ হয়ে যাওয়া সিম চালু করতে চাইলে গ্রাহককে এখন থেকে ১৫০-২০০ টাকা গুনতে হবে। বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) সূত্রে জানা যায়, নির্ধারিত সময়ে সিম নিবন্ধন না করার জরিমানা হিসেবে ব্যবহারকারীদের ১৫০-২০০ টাকা দিতে হবে। তবে এ ক্ষেত্রে আগের কঠোর অবস্থান কিছুটা শিথিল করা হয়েছে। এর আগে বিটিআরসির সিদ্ধান্ত ছিল আজ থেকে বন্ধ হয়ে যাওয়া সিমগুলো আগামী দুই মাস পর্যন্ত জব্দ অবস্থায় থাকবে। অর্থাৎ দুই মাস পার হওয়ার পর নির্ধারিত সময়ে জরিমানা দিয়ে সিমটি আবার চালু করা যাবে। এমন সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসে এবার বিটিআরসি সিদ্ধান্ত নিয়েছে গ্রাহককে দুই মাস পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে না। নির্ধারিত নিয়ম অনুযায়ী নিবন্ধন সম্পন্ন করে বন্ধ হয়ে যাওয়া সিমটি আবার চালু করা যাবে। গতকাল বিটিআরসি মুঠোফোন অপারেটরদের এমন নির্দেশনা পাঠায়। বিটিআরসির হিসাব অনুযায়ী সোমবার পর্যন্ত ১০ কোটি ৪৮ লাখ ৬৫ হাজার সিম নিবন্ধিত হয়েছে। বর্তমানে চালু আছে ১৩ কোটি ১৯ লাখ সিম। এ হিসাবে ৭৯ শতাংশ সিম বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে নিবন্ধিত হয়েছে।

এদিকে সিম পুনর্নিবন্ধনের সময় আরও এক মাস বাড়ানোর দাবি জানিয়েছেন জনস্বার্থ রক্ষা জাতীয় কমিটির আহ্বায়ক আমিনুল ইসলাম বুলু।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow