Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : রবিবার, ৫ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৪ জুন, ২০১৬ ২৩:২৬
রাজধানী সুরক্ষায় ‘সবুজ ঢাকা’ প্রকল্প
বিশ্ব পরিবেশ দিবস আজ
জিন্নাতুন নূর

ঢাকা নগরীর দূষণ ও তাপমাত্রা যে হারে বাড়ছে তাতে করে ভবিষ্যতে অধিবাসীদের যে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হবে সে বিষয়ে পরিবেশ বিশেষজ্ঞরা অনেক দিন ধরেই সতর্ক করে আসছেন। ঢাকায় বর্তমানে গড় তাপমাত্রা আশপাশের এলাকা থেকে ৫ ডিগ্রি বশি।

আর যে হারে এখানে জনসংখ্যা বাড়ছে এবং নগরায়ণ তথা অবকাঠামো নির্মাণ হচ্ছে এর ফলে পরিবেশের তাপমাত্রা দিন দিন আরও বাড়বে বলে সংশ্লিষ্টরা আশঙ্কা করছেন। এর প্রতিকারে প্রয়োজন গাছ রোপণ। কিন্তু স্থাপনা নির্মাণ করতে গিয়ে নগরীতে যে হারে গাছ কাটা হচ্ছে সে হারে গাছ লাগানো হচ্ছে না। এমনকি গাছ লাগানোর মতো ফাঁকা স্থানও আর নেই। এবার তাই নগরীর সবুজায়নে সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে নেওয়া হয়েছে ব্যতিক্রমী প্রকল্প, ‘সবুজ ঢাকা’। এর মাধ্যমে নগরীর বাসাবাড়ির ছাদ, স্কুল, মসজিদ, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে গাছ লাগানোকে উৎসাহিত করে বিনামূল্যে পৌঁছে দেওয়া হবে গাছের চারা ও বীজ। মূলত ‘সবুজ ঢাকা’ প্রকল্পের যাত্রা শুরু হয় আজ থেকে দেড় বছর আগে। বেশ কিছু তরুণ ঢাকা শহরে কার্বন ডাইঅক্সাইডের পরিমাণ ও শহরের তাপমাত্রা কমাতে ব্যতিক্রমী এ প্রকল্প শুরু করেন। তারা তিন বছরে ২৫ লাখ গাছের চারা ও বীজ বিনামূল্যে ঢাকাবাসীর কাছে পৌঁছে দেওয়ার উদ্যোগ নেন। এ কাজের সঙ্গে আনিসুল হকও যুক্ত হয়েছিলেন। উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র নির্বাচিত হওয়ার পরও তিনি এই তরুণদের সব ধরনের লজিস্টিক সহায়তা দেওয়া অব্যাহত রেখেছেন। বর্তমানে সিটি করপোরেশন ছাড়াও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরসহ আরও সাত-আটটি প্রতিষ্ঠান ‘সবুজ ঢাকা’র সঙ্গে কাজ করছে।

‘সবুজ ঢাকা’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক রুপাই ইসলাম বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, ঢাকার কার্বন ডাইঅক্সাইড কমানোর লক্ষ্যে বর্তমানে আমরা ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ওয়ার্ডগুলোয় কাজ করছি। উত্তরের পর দক্ষিণ সিটি করপোরেশনেও আমরা কাজ করতে চাই। বর্তমানে আমাদের সঙ্গে ২৫-৩০ জন বিশেষজ্ঞ ও ৩ হাজার স্বেচ্ছাসেবক কাজ করছেন। সবুজ ঢাকা প্রকল্পের সঙ্গে জড়িতরা বলেন, শহরের তাপমাত্রা কমাতে ঘরের ছাদ ও দেয়ালে বৃক্ষায়ন করা যেতে পারে। এর ফলে ঘরের তাপমাত্রা ২.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত কমানো সম্ভব। গবেষণায় প্রাপ্ত তথ্য থেকে জানা যায়, একটি ৯.৬ মিটার লম্বা গাছ কমপক্ষে ৮% হিটিং-কুলিং লোড কমাতে সক্ষম। ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন কর্তৃপক্ষ জানায় যে, নগরীতে ৫ লাখ গাছ লাগালে তাপমাত্রার ভারসাম্য রক্ষা হবে। এর ফলে বিদ্যুতের ব্যবহারও ১০% কমে যাবে। আর ছাদে বাগান তৈরি করা হলে সেই ভবনের তাপমাত্রা ১ ডিগ্রি কমবে।

সবুজ ঢাকা প্রকল্পের মাধ্যমে এই রোজায় ঢাকার ৬টি স্কুল, ৩৬টি মসজিদ ও ৫০টি প্রতিষ্ঠানে বিভিন্ন ফলদ গাছ বিতরণ করা হবে। এর মধ্যে আছে ধনিয়াপাতা, পুদিনাপাতা, মরিচ, বোম্বাই মরিচ, শসা, ক্যাপসিকামের বীজ। যে কেউ চাইলে বিনামূল্যে সবুজ ঢাকার মহাখালীর আউটলেট থেকে গাছের বীজ ও চারা সংগ্রহ করতে পারবেন। বিদ্যুত্ বিল বা জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি সংযোজনপূর্বক একটি ফরম পূরণ করে গাছ ও বীজ সংগ্রহ করতে হবে। চলতি বছর এ প্রকল্পের মাধ্যমে ১৫০টি স্কুলে বিতরণ করা হবে সাড়ে ৭ লাখ ফুল ও ১৫ হাজার ফল গাছ। এ ছাড়া আড়াই লাখ বাড়ির জন্য আড়াই লাখ ফল গাছও বিতরণ করা হবে। আর ঘরের বারান্দায় লাগানো হবে ১০ লাখ গাছ। এর সঙ্গে মাটিও দেওয়া হবে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow