Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শুক্রবার, ১০ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপডেট : ৯ জুন, ২০১৬ ২২:২৯
উচ্ছেদ হয় না চসিকের বিবি মরিয়ম খালের স্থাপনা
৮০ ফুট প্রস্থের খাল এখন ১০ ফুটে
নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

চট্টগ্রাম মহানগরের পানি নিষ্কাশনের অন্যতম প্রধান মাধ্যম মরিয়ম বিবি খাল। এখানকার অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের নির্দেশ দেওয়া হয়, কিন্তু উচ্ছেদ হয় না। বারবার উচ্ছেদের নির্দেশ মানছেই না প্রভাবশালী দখলদাররা। ফলে আসন্ন বর্ষা মৌসুমে এ খাল দিয়ে পানি নিষ্কাশনের সম্ভাবনা অনেকটাই ক্ষীণ। সর্বশেষ গত ৭ এপ্রিল চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) সাত দিনের মধ্যে এ খালের অবৈধ সব স্থাপনা সরাতে নির্দেশ দেয়। তা ছাড়া ২০১১ সালের ১২ জানুয়ারি চসিকের রাজস্ব বিভাগ থেকে মরিয়ম খালের অবৈধ দখলদারসহ সংশ্লিষ্টদের গণনোটিস দেয়। নোটিসে অবৈধভাবে দখল করা জায়গা ছেড়ে দিতে সাত দিনের সময় দেওয়া হয়েছিল। এভাবে বারবার নির্দেশ দেওয়া হলেও উচ্ছেদ হয় না মরিয়ম খালের অবৈধ স্থাপনা। চসিক সূত্রে জানা যায়, গত ৭ এপ্রিল সরেজমিন পরিদর্শনে যান চসিক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন। পরিদর্শনকালে তিনি খালটির পাথরঘাটা ওয়ার্ডের ওমর আলী মার্কেট এলাকায় মোহনাটি পানি চলাচল বন্ধ দেখে ক্ষোভ ও অসন্তোষ প্রকাশ করেন। এ সময় তিনি খালে গাছ ফেলে দখল করে ভরাট করায় অভিযুক্ত পাঁচ ব্যবসায়ীকে তাত্ক্ষণিক তলব করেন। মেয়র এসব গাছ ব্যবসায়ীদের তিরস্কার করে ‘তাদের নিজ খরচে সাত দিনের মধ্যে গাছ সরিয়ে মরিয়ম খালকে দখলমুক্ত করতে নির্দেশ দেন’। স্থানীয় পাথরঘাটার ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. ইসমাঈল বালি বলেন, মেয়রের নির্দেশের পর খাল থেকে বড় গাছগুলো সরিয়ে নেওয়া হলেও ছোট কিছু গাছ ও স্থাপনা এখনো আছে। 




up-arrow