Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শুক্রবার, ২৪ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২৪ জুন, ২০১৬ ০১:১৩
রোগী ও বিদেশগামীদের ভোগান্তি
সার্ভারে ত্রুটির কারণে পাসপোর্ট ইস্যু করা যাচ্ছে না
নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

চট্টগ্রামের একটি মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থী নাশিদ নিয়াজ। কঠিন রোগে আক্রান্ত হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুর যেতে গত ১৯ জুন পাসপোর্টের জন্য আবেদন করেন।

জরুরি ভিত্তিতে আবেদন করলেও এখনো পাসপোর্ট হাতে পাননি তিনি। ফলে অনিশ্চিত হচ্ছে তার চিকিৎসা। ঝুঁকি বাড়ছে জীবনের। একইভাবে চোখের টিউমার অপারেশন করাতে ভারতের ভিসা দরকার সমিতা দাশ পুনমের। ২০ জুন জরুরি ভিত্তিতে পাসপোর্টের আবেদন করলেও গতকাল পর্যন্ত হাতে পাননি। পাসপোর্ট অফিসের প্রধান কার্যালয়ের সার্ভারে ত্রুটি দেখা দেয় ১৫ জুন। ফলে ৯ দিন ধরে প্রিন্ট দেওয়া যাচ্ছে না। জরুরি ভিত্তিতে আবেদন করেও পাসপোর্ট পাওয়া যাচ্ছে না। অত্যন্ত জরুরি প্রয়োজনে পাসপোর্ট না পাওয়ায় নানাভাবে বিপাকে পড়ছেন মুমুর্ষূ রোগী ও বিদেশগামীরা।

পাসপোর্ট প্রধান কার্যালয়ের সিস্টেম এনালিস্ট প্রকৌশলী আবু নাছের মোহাম্মদ বদরুদ্দোজা বলেন, গত ১৫ জুন থেকে সার্ভারে কাজ করা যাচ্ছে না। এর জন্য বড় কোনো সমস্যা তৈরি হয়নি। তবে ভেকেন্ট ভ্যারিফিকেশনের সার্ভার পুরনো হওয়ায় মাঝে মাঝে একটু ডিস্টার্ব দেয়। বর্তমানে প্রতিনিয়ত গ্রাহক সংখ্যা বাড়ছে। তাই সার্ভারের ওপর চাপ সৃষ্টি হয়েছে। শিগগিরই এর সমাধান হয়ে যাবে।

চট্টগ্রাম বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিসের পরিচালক আবু সাঈদ বলেন, কেন্দ্রীয় সার্ভারে ত্রুটি দেখা দেওয়ায় ৯ দিন ধরে ভ্যারিফিকেশন করে প্রিন্ট দেওয়া যাচ্ছে না। চট্টগ্রাম পাসপোর্ট অফিস সূত্রে জানা যায়, গত ১৫ জুন থেকে দেশের বিভাগীয় ও আঞ্চলিক কার্যালয় থেকে পাঠানো পাসপোর্টের ফরমগুলোর ভেকেন্ট ভ্যারিফিকেশন (ফিঙ্গার প্রিন্ট যাচাই, জাতীয় পরিচয়পত্র যাচাই ও জন্ম নিবন্ধনসহ আবেদনকারীর প্রয়োজনীয় নানা কাগজপত্র যাচাই) করা যাচ্ছে না। ভ্যারিফিকেশন না হওয়ায় কোনো পাসপোর্ট প্রিন্ট করা যায়নি। ৯ দিন ধরে আবেদন করা পাসপোর্টগুলো পড়ে আছে প্রধান কার্যালয়ে।

জানা যায়, বহিরাগমন ও পাসপোর্ট অধিদফতরের অধীনে দেশে পাঁচটি বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস আছে। বিভাগীয় ও আঞ্চলিক অফিস মিলে আছে দেশে মোট ৬৭ কার্যালয়।   প্রতিদিন অন্তত ১৫ হাজার পাসপোর্ট ইস্যু হয়ে থাকে। তা ছাড়া বিভিন্ন দেশে অবস্থানরত বাংলাদেশি দূতাবাসগুলো থেকে পাঁচ হাজার পাসপোর্ট ইস্যুর আবেদন পড়ে। কিন্তু সার্ভার ত্রুটিতে ৯ দিন ধরে এসব কার্যালয় থেকে পাসপোর্ট প্রিন্ট দেওয়া যাচ্ছে না। এ সময়ের মধ্যে পাসপোর্টের জন্য আবেদন করেন প্রায় এক লাখ ৩০ হাজার গ্রাহক।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow