Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : বুধবার, ২৯ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২৮ জুন, ২০১৬ ২৩:১৫
পরিকল্পনাকারী কামুসহ গ্রেফতার ৫, অস্ত্র উদ্ধার
টঙ্গী প্রতিনিধি
পরিকল্পনাকারী কামুসহ গ্রেফতার ৫, অস্ত্র উদ্ধার

টঙ্গীর এরশাদনগরে আলোচিত জোড়া খুনের মূল পরিকল্পনাকারী কামরুল ইসলাম ওরফে কামুসহ (৪৫) পাঁচজনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১এর সদস্যরা। সোমবার গভীর রাতে সাভারের ডেন্ডাবর এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।   গ্রেফতারকৃত অন্যরা হলেন- কামরুল ইসলাম কামুর সহযোগী মোহাম্মদ আলী (২৫), মোবারক  হোসেন (৩২), মো. সাগর (২০) ও নাজমুল ইসলাম (১৮)। গ্রেফতারকৃতদের গতকাল বিকালে টঙ্গী থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।

র‌্যাব-১-এর কোম্পানি কমান্ডার মহিউল ইসলাম জানান, মাদকের টাকা ভাগাভাগি, আধিপত্য বিস্তার নিয়ে নিহত শরীফ প্রভাব খাটিয়ে কামুকে বিভিন্নভাবে হয়রানি করে আসছিল। এ হয়রানি থেকে বাঁচতে এবং নিজের আধিপত্য বিস্তার করতে কামরুল ইসলাম কামু তার সহযোগী হিরা, নাজমুল, মোহাম্মদ আলী, রাসেল, সাগর এবং শামীমকে নিয়ে শরীফকে হত্যার পরিকল্পনা করে। নিহত শরিফকে একটি মেয়েকে দিয়ে ফাঁদ পেতে তারা শরীফকে হত্যার পরিকল্পনা করে। গ্রেফতারকৃতরা জিজ্ঞাসাবাদে ডাবল মার্ডারের সঙ্গে নিজেদের সম্পৃক্ততার কথা স্বীকার করে এসব ঘটনার বর্ণনা দেন। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ শেষে রাতেই টঙ্গীর এরশাদনগর এলাকা থেকে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত ৩টি সামুরাই ও ১টি চাপাতি উদ্ধার করা হয়। প্রসঙ্গত, ১৪ মে রাতে টঙ্গীর এরশাদনগর এলাকার আলাউদ্দিনের  ছেলে শরীফ হোসেন ও হারুন খানের ছেলে জুম্মন মিয়াকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। নিহত শরীফ হোসেন স্থানীয় শেখ রাসেল শিশু কিশোর পরিষদের ৪৯ নং ওয়ার্ড সভাপতি। জুম্মান শরীফের সহযোগী। ঘটনার পর দিন নিহত শরীফের মা ইয়ানুর বেগম বাদী হয়ে বিএনপি নেতা ও এরশাদনগরের শীর্ষ সন্ত্রাসী কামরুল ইসলাম কামুসহ ১২ জনকে এজাহার নামীয় ও কয়েক জনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করে টঙ্গী মডেল থানায় হত্যা মামলা করেন।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow