Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : বুধবার, ২৯ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২৮ জুন, ২০১৬ ২৩:১৫
বেতনের দাবিতে রেশম বোর্ডে বিক্ষোভ ডিজি অবরুদ্ধ
নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী

বকেয়া বেতন-ভাতা ও ঈদ বোনাসের দাবিতে রাজশাহীতে বাংলাদেশ রেশম উন্নয়ন বোর্ডের প্রধান কার্যালয়ে বিক্ষোভ করেছেন চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারীরা। এ সময় তারা প্রায় সাড়ে ৪ ঘণ্টা রেশম বোর্ডের মহাপরিচালক (ডিজি) আনিস-উল-হক ভুঁইয়াকে তার কার্যালয়ে অবরুদ্ধ করে রাখেন। পরে তিনি দাবি পূরণের আশ্বাস দিলে তাকে মুক্ত দেওয়া হয়।

বোর্ডের কর্মচারীরা জানিয়েছেন, কয়েক বছর আগে এখানে প্রায় ৪০ জন চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী কয়েকটি প্রকল্পের আওতায় অস্থায়ীভাবে নিয়োগ পান। পরবর্তীতে প্রকল্পগুলোর মেয়াদ শেষ হয়ে গেলে তারা তাদের চাকরি স্থায়ী করার জন্য আদালতে মামলা করেন। উচ্চ আদালত তাদের পক্ষে রায় দেয়। রাজস্ব খাত থেকে তাদের বেতন-ভাতা পরিশোধের জন্যও নির্দেশ দেয়     আদালত। কিন্তু তাদের চাকরি স্থায়ী করা হয়নি। গত ছয় মাস ধরে বোর্ডের মহাপরিচালক তাদের কোনো বেতন-ভাতাও দেননি। এ অবস্থায় আসছে ঈদে কর্মচারীদের তিন মাসের বেতন দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু করেন তিনি। তবে কর্মচারীদের জন্য ঈদ বোনাসও রাখা হয়নি। ফলে ক্ষুব্ধ হয়ে কর্মচারীরা গতকাল দুপুর ১টার দিকে বকেয়া ছয় মাসের বেতন ও ঈদ বোনাস পরিশোধের দাবিতে মহাপরিচালককে তার কার্যালয়ে রেখে রেশম ভবনের প্রধান ফটকে তালা ঝুলিয়ে দেন। এ সময় তারা রেশম ভবনের বাইরে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ শুরু করেন। পরে বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে মহাপরিচালক কর্মচারীদের দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাস দিলে তাকে মুক্ত করে দেওয়া হয়।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে বাংলাদেশ রেশম উন্নয়ন বোর্ডের মহাপরিচালক আনিস-উল-হক ভুঁইয়া বলেন, রেশম বোর্ডের এসব কর্মচারীদের পক্ষে আদালত রায় দিয়েছে। তবে রেশম বোর্ডও এই রায়ের বিরুদ্ধে রিভিউ শুনানি করছে। ফলে বিষয়টি এখনো অমীমাংসিত।

তাই রাজস্ব খাত থেকে তাদের বেতন-ভাতা দেওয়া যাচ্ছে না। তিনি আরও জানান, মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন তহবিল থেকে এসব কর্মচারীদের তিন মাস পর পর বেতন দেওয়া হয়। এবার ঈদে তাদের এই তিন মাসের বেতনও আসেনি। তিনি ১৬ লাখ টাকা ঋণ করে তাদের তিন মাসের বেতন দিতে চেয়েছিলেন। এ সিদ্ধান্ত কর্মচারীরা মেনে না নেওয়ায় এখন তাকে আরও ১৬ লাখ টাকা বেশি ঋণ করতে হবে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow