Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ২০ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, রবিবার, ২০ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : শুক্রবার, ১ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৩০ জুন, ২০১৬ ২৩:৪৭
‘মৃত্যুফাঁদ’ অটোরিকশার মেয়াদোত্তীর্ণ সিলিন্ডার
রেজা মুজাম্মেল, চট্টগ্রাম

চট্টগ্রাম মহানগরীর পাঁচলাইশ থানাধীন বেবি সুপার মার্কেট এলাকায় গত শুক্রবার বিকালে সিএনজিচালিত অটোরিকশার সিলিন্ডার বিস্ফোরণে চালক বজলুর রহমান ঘটনাস্থলে ও চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান দুই যাত্রী পিতা-পুত্র। গত এপ্রিলে নতুন ব্রিজ এলাকায় একটি অটোরিকশার সিলিন্ডার বিস্ফোরণে দুজন আহত হন।

তা ছাড়া ২০১৫ সালে মোট ১৮টি অটোরিকশার সিলিন্ডার বিস্ফোরণের ঘটনায় দুজন নিহত ও ১১ জন আহত হন বলে যাত্রী কল্যাণ সমিতি সূত্রে জানা যায়। চট্টগ্রামে সিএনজিচালিত অটোরিকশার মেয়াদোত্তীর্ণ সিলিন্ডার এখন বিপজ্জনক ‘মৃত্যুফাঁদ’ হয়ে উঠেছে। বিভিন্ন সময় মেয়াদোত্তীর্ণ সিলিন্ডারে দুর্ঘটনা ঘটছে। কিন্তু এ নিয়ে প্রশাসনের কোনো তদারকি নেই। বিআরটিএ সূত্রে জানা যায়, সরকার ২০০৩ সালে ১৩ হাজার অটোরিকশার অনুমোদন দেয়। গাড়িগুলোর মেয়াদ দেওয়া হয় পরবর্তী ৯ বছর। পরে  মালিকদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে দুই বছর বৃদ্ধি করা হয়। ২০১৩ সালের ৩১ ডিসেম্বর গাড়িগুলোর মেয়াদ শেষ হয়। সঙ্গে সিলিন্ডারগুলোও মেয়াদোত্তীর্ণ হয়। কিন্তু এসব গাড়ি এখনো ঝুঁকি নিয়ে চলছে। বিআরটিএ চট্টগ্রাম বিভাগের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ বলেন, অটোরিকশার মেয়াদোত্তীর্ণ সিলিন্ডারের বিষয়টি সরকারের নীতিনির্ধারণী পর্যায়ে রয়েছে। এ ব্যাপারে নতুন কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। সিএমপির উপপুলিশ কমিশনার মাসুদ উল হাসান বলেন, এ ব্যাপারে কোনো সিদ্ধান্ত নেই। ঈদের পর হয়তো কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে। তবে চালক-মালিকদের এ ব্যাপারে সচেতন থাকা জরুরি। চট্টগ্রাম অটোরিকশা অটোটেম্পো শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশিদ বলেন, চট্টমেট্রো অটোরিকশার সিলিন্ডারগুলো মেয়াদোত্তীর্ণ। ফলে এগুলো অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠেছে। বর্তমানে ঝুঁকি নিয়েই গাড়িগুলো চলাচল করছে। আমাদের দাবি হলো- মেয়াদোত্তীর্ণ গাড়িগুলো বাতিল করে নতুন নিবন্ধন হোক। এতে চালক-যাত্রীর এ ঝুঁকি আর থাকবে না।      

চট্টগ্রাম মহানগরী বেবিট্যাক্সি মালিক (সিএনজি) সমিতির সাধারণ সম্পাদক টিটু চৌধুরী বলেন, সরকারি নির্দেশনা মতে গত ২৯ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত প্রায় ১০ হাজার অটোরিকশার পুনঃপরীক্ষণ করা হয়। অনেক সিলিন্ডারের মেয়াদ ২০১৯ বা ২০২১ সাল পর্যন্ত আছে। ফলে এসব সিলিন্ডার ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ার কোনো কারণ নেই।   জানা যায়, যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের সড়ক বিভাগের পরিবহন-২ অধিশাখা ২০১১ সালের ১৯ সেপ্টেম্বরের সংশোধিত প্রজ্ঞাপন মতে ‘সিএনজি/পেট্রলচালিত ফোর স্ট্রোক থ্রিহুইলারের ইকোনমিক লাইফ সর্বমোট এগারো বছর হবে। গাড়ির চেসিস তৈরির পরবর্তী বছরের জানুয়ারি হতে ইকোনমিক লাইফ গণনা শুরু করা হবে বলে একটি প্রজ্ঞাপন জারি করে। প্রজ্ঞাপন মতে, সরকার চট্টমেট্রো অটোরিকশার নিবন্ধন ক্রমান্বয়ে বাতিল করার সিদ্ধান্ত নেয়। প্রথম দফায় ২০১৩ সালের ৩১ ডিসেম্বর দুই হাজার অটোরিকশা বাতিল করার কথা ছিল। কিন্তু পরে তা কার্যকর হয়নি।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow