Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : মঙ্গলবার, ৫ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৫ জুলাই, ২০১৬ ০০:২৪
ঈদ ঘিরে পর্যটন স্পটগুলো সেজেছে বর্ণিল সাজে
প্রতিদিন ডেস্ক
ঈদ ঘিরে পর্যটন স্পটগুলো সেজেছে বর্ণিল সাজে
পর্যটকের অপেক্ষায় দৃষ্টিনন্দন পর্যটনকেন্দ্র রাঙামাটির ঝুলন্ত ব্রিজ —বাংলাদেশ প্রতিদিন

খুশির ঈদ সমাগত। ঈদের প্রস্তুতি চলছে প্রতিটি মুসলমানের ঘরে। আর এই ঈদকে পর্যটকদের জন্য আকর্ষণীয় করতে পর্যটন স্পটগুলোকে সাজানো হচ্ছে ভিন্নভাবে। ইতিমধ্যে আগাম বুকিং হয়েছে পর্যটন এলাকাগুলোর ৯০ শতাংশেরও বেশি হোটেলে। আজ-কালের মধ্যে বাকি হোটেলসমূহও বুকিং হবে বলে আশা করছেন ব্যবসায়ীরা। এরই মধ্যে শুক্রবার থেকে শুরু হয়ে গেছে থেকে টানা ৯ দিনের সরকারি ছুটি। এ লম্বা ছুটি কাটাতে অনেকেই চলে যাচ্ছেন পর্যটন স্পটগুলোয়। অনেকে পরিবার-পরিজন নিয়ে ছুটছেন ঘুরে বেড়িয়ে আনন্দ উপভোগ করার জন্য।

সরেজমিন দেখা গেছে, কক্সবাজারের পর্যটন এলাকাসমূহের ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলো সাজানো হচ্ছে নানা আকর্ষণীয় সাজে। হোটেল-মোটেলে পরিবর্তন করা হচ্ছে পুরনো জিনিসপত্র। দেয়ালের পুরনো আস্তর তুলে লাগানো হচ্ছে প্লাস্টিক পেইন্ট কিংবা ডিসটেমপার। রেস্তোরাঁগুলোতেও চলছে ধোয়ামোছা ও রং লাগানোর প্রতিযোগিতা। প্রশাসনের পক্ষে সার্বিক নিরাপত্তা প্রদানের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। কলাতলী মোড়ের ‘জ ভাস্কর্য’ নতুনভাবে রাঙানোর কাজ চলছে। সব মিলিয়ে এ পর্যটন নগরীতে অন্তত পাঁচ লাখ পর্যটকের সমাগম ঘটবে বলে আশা করছেন পর্যটন-সংশ্লিষ্টরা। কক্সবাজারের তারকা মানের হোটেল সি-গালের ব্যবস্থাপক (এইচআর) হারুন-অর-রশিদ জানান, ৭, ৮ ও ৯ জুন ৯০ শতাংশ কক্ষ বুকিং হয়ে গেছে। এর মধ্যে বিদেশি পর্যটকরাও রয়েছেন। এদিকে হোটেল-মোটেল জোনের প্রায় প্রতিটি হোটেল-মোটেল-গেস্টহাউসে চলছে সাজসজ্জার কাজ। একটু রাঙিয়েও নেওয়া হচ্ছে প্রতিটি হোটেল-মোটেল। এ ছাড়া জেলা সদরের বাইরেও পর্যটন স্পট মহেশখালী, হিমছড়ি, ইনানী, দরিয়ানগর, বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কসহ বিভিন্ন পর্যটন স্পটগুলো সাজছে নতুন করে। ঈদ উত্বকে ঘিরে পর্যটক বরণে প্রস্তুত পর্যটন নগরী রাঙামাটি। ইতিমধ্যে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। অতিথি বরণে চলছে নানা আয়োজন। আবাসিক হোটেল, মোটেল, সরকারি-বেসরকারি রেস্টহাউসগুলো সাজানো হয়েছে বর্ণিল সাজে। এরই মধ্যে অগ্রিম বুকিং হয়ে গেছে এখানকার প্রায় প্রতিটি হোটেল, মোটেল, রেস্টহাউস। সরকারি পর্যটন মোটেলে ঈদের পরদিন থেকে অর্ধমাস পর্যন্ত সবগুলো কক্ষ বুকিং হয়ে গেছে। শহরের পর্যটন মোটেলে ঈদের আগের দিন থেকে সপ্তাহজুড়ে বুকিং সম্পন্ন। পর্যটন সংস্থা ও আবাসিক হোটেল-মোটেল কর্তৃপক্ষ অতিথিদের স্বাগত জানাতে বর্ণিল সাজে সাজিয়েছে নিজেদের ভবন।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow