Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ১৮ ডিসেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, সোমবার, ১৮ ডিসেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : শুক্রবার, ১৫ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৪ জুলাই, ২০১৬ ২৩:২০
রেলের এএসএম নিয়োগে বেতন স্কেল নিয়ে জটিলতা
আন্দোলনের হুমকি শ্রমিক নেতাদের
নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

সহকারী স্টেশন মাস্টার (এএসএম) নিয়োগে গ্রেড বিন্যাস বা বেতন স্কেল নিয়ে জটিলতা নিরসনে অর্থ মন্ত্রণালয়ের অনাপত্তি পাওয়ার পরও বাস্তবায়ন করেনি রেল কর্তৃপক্ষ। নিয়ম অনুযায়ী ১৫তম গ্রেডে অর্থ ছাড়ে মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনের সাড়ে তিন মাস পেরিয়ে গেলেও রেলপথ মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে উদ্যোগ না নেওয়ায় জটিলতায় আটকে আছে নতুন নিয়োগপ্রাপ্ত ২৫৭ এএসএমের পদায়ন। রেলওয়ে সংগ্রাম পরিষদের ব্যানারে এর মধ্যে গ্রেড বিন্যাস জটিলতা নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করা হয়েছে। দ্রুত এ সমস্যার সমাধান না হলে কঠোর আন্দোলনের হুমকি দিয়েছে রেল শ্রমিক নেতারা। রেলওয়ে সংগ্রাম পরিষদের আহ্বায়ক মোখলেছুর রহমান বলেন, অর্থ মন্ত্রণালয়ের সম্মতির পরও জিএমসহ রেল কর্তৃপক্ষের উদাসীনতার কারণে গ্রেড অবনমনের বিষয়টি সুরাহা হয়নি। বিষয়টি নিয়ে যথাযথ কর্তৃপক্ষকে একাধিকবার অবহিত করার দীর্ঘ সাড়ে তিন মাসেও দফতরাদেশ দেয়নি রেলওয়ে।   পূর্বাঞ্চলের চিফ পার্সোনাল অফিসার (সিপিও) অজয় কুমার পোদ্দার বলেন, নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির নিয়মমোতাবেক অপার লেটার ইস্যু করা হচ্ছে। এরই মধ্যে বা পরবর্তীতে মন্ত্রণালয়ের আদেশ পেলেই নতুন স্কেলেই বেতন প্রদান করা হবে।   রেলওয়ে সূত্রে জানা গেছে, ২০১৪ সালের ২৯ জুন সরকার প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে ৩০০টি এএসএম পদকে (গ্রেড-১৪) বিলুপ্ত ঘোষণা করে। মঞ্জুরিকৃত পদ কম থাকায় এ পদে ৩০০টি পদ মঞ্জুরি করা হয়। এর আগে এএসএমের গ্রেড বিন্যাস ১৫তম থাকলেও ভুলবশত ১৬তম গ্রেডে নামিয়ে আনা হয়।

বর্তমানে চাকরিরত সহকারী স্টেশন মাস্টাররা ১৫তম গ্রেডে বেতন পেয়ে থাকলেও নতুন নিয়োগপ্রাপ্তদের ১৬তম গ্রেডে নামিয়ে নেওয়ায় নিয়োগপ্রাপ্তদের পদায়ন নিয়ে অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে। ২০১৪ সালের অক্টোবরে বিভিন্ন জাতীয় দৈনিক পত্রিকায় ২৭০ জন সহকারী স্টেশন মাস্টার নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি দেয় রেলওয়ে পূর্বাঞ্চল। বিজ্ঞপ্তিতে ২৭০টি পদ নব-সৃষ্ট পদ এবং ২০০৬ ও ২০১০ সালের বিজ্ঞপ্তিকৃত পদ থেকে আলাদা হিসাবে উল্লেখ করা হয়। এদিকে গত ১৪ ফেব্রুয়ারি রেলওয়ে শ্রমিক-কর্মচারীরা গ্রেড বিন্যাস জটিলতা নিরসনে বৃহত্তর আন্দোলনের ঘোষণা দেয়। দাবি মানা না হলে সারা দেশের রেল যোগাযোগ বন্ধ করে দেওয়ার ঘোষণা দেয় তারা। এর পরিপ্রেক্ষিতে রেল কর্তৃপক্ষ গ্রেড বিন্যাস জটিলতা নিরসনের আশ্বাস দেয়। তবে নিয়োগ পরীক্ষার ফলাফল ঘোষণার পরও গ্রেড বিন্যাস ঠিক না হওয়ায় ফের আন্দোলনে নামছে রেল কর্মীরা।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow